The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/12/saudi-arab-to-france-portugal.html

দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় ও দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে অনেকেই জানতে আগ্রহী। তাই আজকে আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় ও দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে একটি বিস্তারিত আলোচনা। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করবো দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় ও দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে সকল খুঁটিনাটি তথ্য নিয়ে। আশা করছি আপনারা সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে এ সম্পর্কে ভালো একটি ধারণা লাভ করবেন।

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. দুবাই থেকে ইউরোপের দেশগুলোর ভিসা
  2. দুবাই থেকে ইউরোপের দেশগুলোতে যাওয়ার সহজ উপায়
  3. দুবাই থেকে পর্তুগাল
  4. দুবাই থেকে ফ্রান্স
  5. প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
  6. আবেদন
  7. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর
  8. লেখকের মন্তব্য

১.দুবাই থেকে ইউরোপের দেশগুলোর ভিসা | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

আপনি যদি দুবাই থেকে ইউরোপ ভ্রমণের কথা ভাবেন অথবা কাজের ক্ষেত্রে দুবাই থেকে ইউরোপ যাওয়ার মনোনিবেশ করে থাকেন তাহলে সর্বপ্রথম কিছু বিষয় ভালোভাবে জানা আবশ্যক। দুবাই থেকে ইউরোপে যাওয়ার জন্য ভিসা খুবই জরুরি একটি মাধ্যম ও বিষয়।দুবাই থেকে ইউরোপে যাওয়ার সবচেয়ে সহজ উপায় হল সঠিক নিয়ম মেনে ভিসা নিশ্চিত করা। কেননা, অনেক সময় কিছু ভুলের কারণে ভিসা বাতিল হয়ে যেতে পারে। 

যেহেতু আপনি দুবাই থেকে ইউরোপ কাজের ক্ষেত্রে যাচ্ছেন সেহেতু কমপক্ষে ২-৩ বছর এর জন্য ভিসা নিশ্চিত করুন। তাহলে আপনার ভিসা কখনই বাতিল হবে না। আপনি যদি দুবাই হতে ইউরোপে যেতে চান তাহলে আপনাকে প্রথমত দুই বছর মেয়াদি ১টি ভিসা প্রস্তুত করতে হবে। যে ভিসাটির দ্বারা আপনি ইউরোপে প্রবেশ করতে পারবেন। ইউরোপ যেতে হলে আপনাকে দুবাইতে সর্বনিম্ন ১ বছরের মতো থাকতে হবে। তারপরে আপনি সে জায়গা হতে ইউরোপ যাওয়ার প্রসেস করতে পারবেন।

কখনো কখনো ভিসা এখান থেকে বাতিল করা হয়। তাই আপনাকে অন্তত ১ বছর ভালোভাবে প্রক্রিয়া করতে হবে কিভাবে আপনি ইউরোপে প্রবেশ করবেন। দুবাইয়ে ১ বছর থাকা পর আপনার কতিপয় রিকোয়ারমেন্ট আছে, সেগুলো পূর্ণ করা লাগবে। সেই রিকোয়ারমেন্ট সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।

২.দুবাই থেকে ইউরোপের দেশগুলোতে যাওয়ার সহজ উপায় | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

দুবাই থেকে ইউরোপে যাওয়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে দুই বছর মেয়াদী একটি ভিসা তৈরি করা লাগবে এবং সেখানে অবশ্যই মিনিমাম এক বছর অবস্থান করতে হবে। অনেকের মতে এখানে শুধুমাত্র সাত থেকে আট মাস পর্যন্ত থাকার পরে দুবাই থেকে ইউরোপে যাওয়ার জন্য প্রসেস করা যায়। তবে এক্ষেত্রে কিন্তু ভিসা বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই অবশ্যই মিনিমাম এক বছর দুবাইতে অবস্থান করা লাগবে। দুবাইতে এক বছর অবস্থান করার পরে আপনার কিছু প্রয়োজনীয় রিকোয়ারমেন্ট আছে সেগুলো পূরণ করতে হবে। সে সম্পর্কে নিচে তুলে ধরা হলো।

আপনি এই এক বছরের মধ্যে দুবাইতে আপনি চাইলে টুরিস্ট ভিসার মাধ্যমে সেখানে গিয়ে অবস্থান করতে পারবেন। টুরিস্ট ভিসার মাধ্যমে সেখানে যাওয়ার পরে আপনি আপনার ফ্যামিলির সদস্য অথবা আপনার পরিচিত কেউ যদি থেকে থাকে তাহলে তাদের মাধ্যমে আপনারা টুরিস্ট ভিসা কনভার্ট করে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা তে নিয়ে যেতে পারবেন। এইভাবে আপনি এক বছর সেখানে অবস্থান করতে পারলেই ইউরোপের দেশগুলোতে যাওয়ার আপনার একটি সুযোগ তৈরি হবে।

তবে অবশ্যই আপনাকে যেকোন মূল্যে সেখানে অবস্থান করতেই হবে ।আপনি টুরিস্ট ভিসা তে যান না কেন আর ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যান না কেনো অবশ্যই আপনাকে দুই বছর মেয়াদী একটি ভিসা তৈরি করতে হবে এবং সেখানে অবশ্যই এক বছর মিনিমাম থাকায় লাগবে। তারপরে আপনি ইউরোপের দেশগুলোতে যাওয়ার জন্য সুযোগ তৈরি করতে পারবেন। তাহলে চলুন কিভাবে আপনারা এই প্রসেসে আগাবেন।

৩.দুবাই থেকে পর্তুগাল | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

দুবাই থেকে পর্তুগাল এর বিভিন্ন কাজের ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন অথবা টুরিস্ট ভিসা নিয়ে সেখানে যেতে পারবেন। তবে আপনাকে দুবাইয়ে ৪ মাসের মত অবস্থান করা লাগবে। তারপরে আপনি দুবাই থেকে পর্তুগালের ভিসা পাবেন। এক্ষেত্রে ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রয়োজন আছে এবং আপনি যেখানে কাজ করছেন তার একটি প্রমাণপএ থাকা লাগবে। তারপরে আপনি দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার জন্য ভিসা তৈরি করতে পারবেন।

দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার জন্য মিনিমাম ৪ লাখ টাকা খরচ করা লাগবে। তবে এজেন্সি ভেদে দাম বিভিন্ন রকম হতে পারে। তবে অবশ্যই এজেন্সিতে কথা বলে অথবা দূতাবাসে কথা বলে আপনারা পর্তুগালের যাওয়ার খরচ সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন। তাছাড়াও বিভিন্ন এজেন্সির মাধ্যমে কাজের ভিসা নিয়ে পর্তুগালে যেতে পারবেন। এক্ষেত্রে কিন্তু ক্যাটাগরিতে কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। তা না হলে ভিসা পাওয়া সম্ভব নয়।

তবে এক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশগুলোতে যাওয়ার জন্য অবশ্যই আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট স্ট্রং থাকা লাগবে। আপনি যদি টুরিস্ট ভিসার মাধ্যমে যেতে চান অথবা ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্যে যেতে চান তার পরেও কিন্তু আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট ভালো থাকা লাগবে ।মানে অধিক পরিমাণ ট্রানজেকশন যদি থাকে তার পরেই আপনি এ সমস্ত দেশগুলোতে যাতে পারবেন।

৪.দুবাই থেকে ফ্রান্স | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

দুবাই থেকে ফ্রান্সের বিভিন্ন কাজের সুযোগ রয়েছে। যেমন বর্তমানে ফ্রান্সে ফ্যাক্টরিতে কাজের নিয়োগ চলছে। সেই হিসেবে দুবাই থেকে বিভিন্ন এজেন্সির মাধ্যমে ফ্রান্সে যাওয়া যাচ্ছে ।তবে এক্ষেত্রে আপনার খরচ পড়বে মিনিমাম 5 থেকে 6 লাখ টাকার মতো। তাছাড়া টুরিস্ট ভিসা দিয়ে যদি আপনি ঢুকতে পারেন তাহলে ফ্রান্সে গিয়ে আপনি একটি কাজের ইনভাইটেশন লেটার নিয়ে আসতে পারলেই দুবাই ফ্রান্স দূতাবাসে আপনার ভিসার জন্য আবেদন করে দুবাই থেকে ফ্রান্সে যেতে পারবেন।

৫.প্রয়োজনীয় কাগজপত্র | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

দুবাই থেকে ফ্রান্স ও পর্তুগাল যাওয়ার জন্য আপনার কিছু কাগজপত্র প্রয়োজন হবে ।কি কি কাগজপত্র লাগবে তা নিচে আলোচনা করা হলো।
  • ছয় মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট
  • এনআইডি কার্ডের ফটোকপি
  • দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • বিমান টিকিট এর ফটোকপি
  • পূর্বে ট্রাভেল করেছেন তার প্রমাণ
  • বর্তমানে যে কাজে নিয়োজিত আছেন তার প্রমাণ
  • কী উদ্দেশ্যে ইউরোপ যাচ্ছেন তার একটি বৃত্তান্ত

এই রিকোয়ারমেন্ট গুলো সাধারণত আপনার যখন হয়ে যাবে তখন আপনার এজেন্সী মাধ্যমেই তারা ভিসা কার্যক্রম চালিয়ে যাবে এবং এ সমস্ত ডকুমেন্টস নিয়ে তারাই কাজকর্ম করবে। তবে এক্ষেত্রে কিন্তু আপনি চাইলে নিজেও এগুলো এর জন্য কাজ করতে পারবেন এজেন্সি অথবা দূতাবাসের মাধ্যমে। যদি আপনি নিজেই পারেন তাহলে সরাসরি নিজে গিয়ে করা ভালো হবে। এক্ষেত্রে দালালের মাধ্যম এড়িয়ে চলবেন এবং অবশ্যই বৈধ পথে চলার চেষ্টা করবেন। তাহলেই আশা করা যায় সফল হতে পারবেন।

৬.আবেদন | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

এবার আসা যাক দুবাই থেকে ফ্রান্স এবং পর্তুগাল কিভাবে যাবেন। দুবাই থেকে ফ্রান্স এবং পর্তুগাল যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ এর অনেক এজেন্সি রয়েছে। সেগুলোর মাধ্যমে আপনারা যেতে পারবেন। অথবা ইন্ডিয়ান অনেক কোম্পানি রয়েছে। পাশাপাশি শ্রীলংকা এবং মালদ্বীপের অনেক কোম্পানি রয়েছে‌ যেগুলোর মাধ্যমে আপনারা দুবাই থেকে ফ্রান্স এবং পর্তুগালের বিভিন্ন কোম্পানিতে যেতে পারবেন ।অথবা দুবাইয়ের দূতাবাস থেকেও আপনারা ফ্রান্স অথবা পর্তুগালের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে অবশ্যই এই সমস্ত জায়গায় আবেদন করতে হলে উপরের দেওয়া রিকোয়ারমেন্ট গুলো আপনার অবশ্যই থাকতে হবে।

৭. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

প্রশ্ন ১: দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার জন্য কত টাকা খরচ হতে পারে?

উত্তর:চার লক্ষ টাকার মতো।

প্রশ্ন ২: দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার জন্য সর্বনিম্ন কত টাকা লাগতে পারে?

উত্তর: পাঁচ থেকে ছয় লক্ষ টাকা।

৮. লেখকের মন্তব্য | দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

আজকে আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করলাম দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে। আশা করছি দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে আপনারা একটি ধারণা লাভ করতে পেরেছেন। দুবাই থেকে ফ্রান্স যাওয়ার উপায় | দুবাই থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে সেটি আমাদের জানাবেন। এছাড়াও এই সম্পর্কে আপনার কি মতামত তা আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। যে কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট THE DU SPEECH ভিজিট করবেন।
আর্টিকেলটি লিখেছেন: নুসরাত জাহান হিভা 
পড়াশোনা করছেন: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় 
লেখকের জেলার নাম: কুমিল্লা



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?