The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/07/all-scholarship-.html

সকল শিক্ষা বৃত্তি ২০২৩ | বিভিন্ন ব্যাংকের এসএসসি, এইচএসসি, অনার্স শিক্ষাবৃত্তি

এই আর্টিকেলে আমরা 'অনার্স শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩' বা স্নাতক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩, এইচএসসি, HSC শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ নিয়ে বিস্তারিত আপনাকে জানাবো। এসএসসি,  এইচএসসি ও অনার্স বা স্নাতক প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য বোর্ড স্কলারশিপ ছাড়াও অনেক ধরনের স্কলারশিপের সুযোগ আছে। বিভিন্ন শর্ত সাপেক্ষে ও যোগ্যতার ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশন, সংগঠন ও বিভিন্ন ব্যাংক অনার্স চলাকালীন সময়ে এসএসসি, এইচএসসি ও অনার্স শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ প্রদান করে থাকে। অনার্স শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ নিয়ে বিস্তারিত জনতে এই আর্টিকেল সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়বেন। আশা করি এই আর্টিকেল পড়ার পর আপনাকে আর অন্য কোন আর্টিকেল পড়তে হবে না।


যে সকল ব্যাংক ও সংগঠনের শিক্ষাবৃত্তির আবেদনের মেয়াদ চলছে

  • ডাচ বাংলা ব্যাংকের এসএসসি শিক্ষাবৃত্তির আবেদনের মেয়াদ চলবে ৩০ নভেম্বর ২০২২ থেকে ২৫ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত। (বর্তমানে বন্ধ)
  • শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ এর আবেদন চলেছে ১৭ ই আগস্ট ২০২২ পর্যন্ত (২০২৩ এর নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় নি) 
  • মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি এর কোন নির্দিষ্ট কোন তারিখ নেই, যে কোন সময় আবেদন করতে পারবেন। ফেসবুকে এই ফাউন্ডেশনের পেজে আপনার সমস্যার কথা জানিয়ে মেসেজ করুন। 
  • প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ এর আবেদন চলেছে ১৫ জুন ২০২২ পর্যন্ত। (২০২৩ এর নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় নি)
  • আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ এর আবেদন চলেছে ০২ জুন ২০২২ পর্যন্ত এখন শেষ । (২০২৩ এর নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় নি)
  • সিজেডএম বৃত্তি ২০২২ আবেদন ছিল ১৫ এপ্রিল ২০২২ পর্যন্ত(অনার্স পর্যায়ের জন্য), এখন মেয়াদ শেষ। (২০২৩ এর নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় নি)
  • ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি ২০২২ এর মেয়াদ ছিল ১৭ এপ্রিল ২০২২ পর্যন্ত, এখন মেয়াদ শেষ। (২০২৩ এর৷ নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় নি)
  • এইচএসসি ও অনার্স পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের জন্য সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি : ২৭-০২-২২ থেকে ১৩-০৩-২২ আবেদন চলেছে এখন মেয়াদ শেষ। (২০২৩ এর নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় নি)
  • মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি এর কোন নির্দিষ্ট কোন তারিখ নেই, যে কোন সময় আবেদন করতে পারবেন।

অনুচ্ছেদ সূচি (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

বিভিন্ন ব্যাংক ও ফাউন্ডেশনের অনার্স স্কলারশিপ ২০২৩

  1. ডাচ বাংলা ব্যাংক স্কলারশিপ(মাসিক)
  2. ইসলামী ব্যাংক স্কলারশিপ(মাসিক)
  3. আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি)
  4. প্রাইম ব্যাংক স্কলারশিপ(মাসিক)
  5. সোনালী ব্যাংক স্কলারশিপ(এককালীন)
  6. শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক স্কলারশিপ (মাসিক)
  7. আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 
  8. মার্কেন্টাইল ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 
  9. পুসান শিক্ষাবৃত্তি 
  10. মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি
  11. ওয়ান ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি
  12. ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি 
  13. ব্র্যাক ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 
  14. গ্রামীণ ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 

এইচএসসি ফলাফল অনুসারে মেধাতালিকায় প্রথম সারির কিছু শিক্ষার্থী বোর্ড স্কলারশপ এর অন্তর্ভুক্ত হয়। বোর্ড স্কলারশিপ এর ক্ষেত্রে মেধা তালিকার বাইরে অন্য কোন বিষয়ের উপর বিবেচনা করা হয় না। কিন্তু বিভিন্ন ব্যাংক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো যেসব বৃত্তি প্রদান করে থাকে তা শিক্ষার্থীর পূর্বের পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর এর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের অর্থনৈতিক অবস্থা, বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত(নদী ভাঙনে বলি,বন্যা কবলিত এলাকা ইত্যাদি), প্রত্যন্ত এলাকার সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থী, প্রতিবন্ধী ইত্যাদি অনেক বিষয়গুলো বিবেচনা করে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে। যা অনেকটাই শিক্ষার্থী বান্ধব।

আজকে আমরা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে অনার্স স্কলারশিপ ২০২২ এ সরকারি উপবৃত্তি ২০২২,করোনাকালীন বিভিন্ন স্কলারশিপ, দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন ব্যাংক প্রদত্ত স্কলারশিপ এর শর্ত,আবেদনের যোগ্যতা,আবেদন প্রক্রিয়া, সিলেকশন প্রক্রিয়া, আবেদনের শেষ তারিখ ইত্যাদি সম্পর্কে আলোচনা করব।

 

1.1 এসএসসি ফলাফল ভিত্তিক ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

এসএসসি ফলাফলের উপর ভিত্তি করে ডাচ বাংলা শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ প্রতিবছরের মতো চালু হয়েছে। 
আবেদনের যোগ্যতা

বৃত্তির পরিমাণ ও সময়কাল

শিক্ষাবৃত্তির নীতিমালা

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ

 1.2 HSC ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ-বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

বোর্ড স্কলারশিপ এর পরই আমদের দেশে সর্বোচ্চ সংখ্যক মেধাবী ও অস্বচ্ছল পরিবারের শিক্ষার্থীদের স্কলারশপ প্রদান করে ডাচ বাংলা ব্যাংক । প্রতিবছর প্রায় 3 হাজার শিক্ষার্থীকে এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে কিছু অর্থনৈতিক বিষয় বিবেচনার মাধ্যমে অনার্স কালীন স্কলারশিপ প্রদান করা ডাচ বাংলা ব্যাংক।

এখন পর্যন্ত ডাচবাংলা শিক্ষাবৃত্তির আওতায় এসেছে প্রায় 60 হাজার বাংলাদেশি দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী এবং বর্তমানে ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি কর্মসূচির আওতাভুক্ত রয়েছে দেশের প্রায় 15 হাজার শিক্ষার্থী। এই বৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে প্রতি বছর প্রায় 102 কোটি টাকা শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রদান করা ডাচ বাংলা ব্যাংক।

ডাচ বাংলা ব্যাংক যে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে  90% গ্রামীণ বা অনগ্রসর এলাকায় অবস্থিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের জন্য এবং এই শিক্ষাবৃত্তির 50% মেয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য বরাদ্দ থাকে।

এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ-বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ-বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ গ্রহণের শর্তাবলী

এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুসারে অনার্স কালীন সময়ের জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আবেদন করতে হলে শিক্ষার্থীকে -

  • দরিদ্র বা অস্বচ্ছল পরিবারের হতে হবে।
  • অভিভাবকের মাসিক আয় শর্তসাপেক্ষে টাকা বা এর কম হতে হবে।
  • সরকারি বৃত্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাংক বা প্রতিষ্ঠান শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত থাকলে আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  গ্রহণের জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই বর্তমানে কোনো সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজে ভর্তি থাকতে হবে।

HSC ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদনের সময়সীমা

এইচএসসি রেজাল্টের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য ডাচ-বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আবেদনের সময়সীমা - নির্ধারিত নয়।

ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের সম্ভাব্য তারিখ - নির্ধারিত নয়।

HSC ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ-বাংলা শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদন করার জন্য যোগ্যতা!

  • সিটি কর্পোরেশন এলাকার অন্তর্গত কলেজ ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের জন্য চতুর্থ বিষয় ব্যতীত ন্যূনতম জিপিএ 4.8 থাকতে হবে।
  • সিটি কর্পোরেশন এলাকার বাইরে কলেজ বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ডাচ বাংলা শিক্ষা বৃত্তির জন্য আবেদন করার জন্য চতুর্থ বিষয় ব্যতীত ন্যূনতম জিপিএ 4.5 হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর পরিমাণ ও সময়কাল

   শিক্ষার স্তর                     বৃত্তির মেয়াদকাল 

1.স্নাতক (পাস)                        3 বছর

2.স্নাতক (সম্মান)                     4 বছর

3.এমবিবিএস বিডিএস

   ডিগ্রী                                     5 বছর


ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাসিক বৃত্তি হিসেবে প্রতি মাসে তিন হাজার টাকা এবং প্রতি বছর পাঠ্য উপকরণ কেনার জন্য 6000 টাকা প্রদান করা হয়।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদনের নিয়ম

অনার্স পর্যায়ে  ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রথমে অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন!

অনার্স পর্যায়ে ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  আবেদন করার জন্য উপরে উল্লেখিত সাইটে প্রবেশ করে স্কলার্শিপ সেকশনে গেলে ডাচ বাংলা ব্যাংক  এইচএসসি ভিত্তিক শিক্ষাবৃত্তি প্রাথমিক আবেদন ফর্ম পাওয়া যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইনে ফরমটি পূরণ করে জমা দিলে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন হবে।

অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করার কিছুদিন পর প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে। সে অনুসারে প্রাথমিক সিলেকশনে আপনি সিলেক্টেড হলে আপনাকে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য সকল কাগজপত্র জমা দিতে হবে। তাহলে অনার্স পর্যায়ের জন্য এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আপনার চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ-বাংলা শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  • আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি স্ক্যান কপি ।
  • আবেদনকারীর পিতা ও মাতার পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি স্ক্যান কপি ।
  • এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর স্ক্যান কপি ।
  • এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর স্ক্যান কপি।
  • আবেদনকারী কোটার অন্তর্ভুক্ত হলে আবেদনের সময় তা উল্লেখ করা এবং উপযুক্ত প্রমাণ দেওয়া।

প্রাথমিক সিলেকশনের পরে চূড়ান্ত আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  • আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের  সত্যায়িত রঙ্গিন ছবি
  • এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর সত্যায়িত কপি 
  • বর্তমানে যে বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের অধ্যায়নরত আছে ,সে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রত্যয়ন পত্র
  • ইউপি /চেয়ারম্যান /পৌরসভা /ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক অভিভাবকের পেশা উল্লেখপূর্বক মাসিক আয়ের সনদপত্র ।অভিভাবক চাকুরীজীবি হলে চাকুরীদাতা কর্তৃক পেশাপূর্বক মাসিক বেতনের সনদপত্র
  • আবেদনকারী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হলে মুক্তিযোদ্ধা সনদের সত্যায়িত কপি
  • আবেদনকারী প্রতিবন্ধী হলে প্রতিবন্ধী সনদের সত্যায়িত কপি
  • আবেদনকারী কোন কোঠা যুক্ত হলে সে কোঠার সনদপত্র প্রদান করতে হবে।
  • আবেদনকারীর বর্তমানে অধ্যায়নরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত আইডি কার্ডের সত্যায়িত কপি।
HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন  ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর ফলাফল পাওয়ার উপায়!

অনার্স কালীন ডাচ বাংলা ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি জন্য আবেদন করা হলে চূড়ান্ত সিলেকশনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফলাফল দেখতে পারবেন । অথবা আবেদন করার সময় প্রদানকৃত মোবাইল নাম্বারে সিলেক্টেড হলে কনফার্ম মেসেজ আসবে এবং ফলাফল দেখা যাবে। এছাড়াও সিলেকশনের ফলাফল বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয় সেখান থেকেও আপনি চাইলে দেখে নিতে পারেন।

2. ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে অনার্স বা স্নাতক প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের সরকারি বা বোর্ড বৃত্তি ছাড়াও অনেক ধরনের বৃত্তির সুযোগ আছে। তারমধ্যে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি একটি।

বোর্ড বৃত্তি সাধারণত এইচএসসি তে প্রাপ্ত ফলাফলের মেধা তালিকার ভিত্তিতে প্রদান করা হয়। কিন্তু ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি তে শিক্ষার্থীদের এইচএসসি এর প্রাপ্ত ফলাফলের পাশাপাশি মেধাবী ও আর্থিক অস্বচ্ছলতার বিষয়গুলো বিবেচনা করে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি কর্তৃপক্ষ। প্রতিবছর অসংখ্য শিক্ষার্থী ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত হয়। কোনো শিক্ষার্থী পারিবারিক অর্থনৈতিক অসচ্ছলতার কারণে পড়াশোনা করতে না পারলেও সমস্যা হলে নিজের যোগ্যতার ভিত্তিতে ইসলামী ব্যাংক বৃত্তি গ্রহণ করে নিজের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারবে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর মাধ্যমে। ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি একটি শিক্ষার্থী বান্ধব শিক্ষাবৃত্তি। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের তাদের লক্ষ্যে পৌঁছানো একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়তে অনেক সহায়তা করে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি।

আপনি যদি এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আগ্রহী হন তাহলে আপনার ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদনের করতে প্রয়োজনীয় যোগ্যতা ও শর্তাবলি আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানতে পারবেন।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ গ্রহণের শর্তাবলী

এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুসারে অনার্স কালীন  ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদন করতে হলে শিক্ষার্থীকে -

  • দরিদ্র বা অস্বচ্ছল পরিবারের হতে হবে।
  • অভিভাবকের মাসিক আয় শর্তসাপেক্ষে সীমিত হতে হবে।
  • সরকারি বৃত্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাংক বা প্রতিষ্ঠান শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত থাকলে আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।
  • ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  গ্রহণের জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই বর্তমানে কোনো সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজে ভর্তি থাকতে হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন সলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদনের সময়সীমা

এইচএসসি রেজাল্টের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদনের সময়সীমা - নির্ধারিত নয়।

ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের সম্ভাব্য তারিখ - নির্ধারিত নয়।

HSC রেজাল্ট ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদনের যোগ্যতা

অনার্স পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদন করার জন্য সাধারণ শিক্ষার্থীদের এইচএসসিতে প্রাপ্ত ফলাফলের জিপিএ- 5.00 থাকতে হবে এবং প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে জিপিএ-4.50 থাকতে হবে। তাহলে তারা ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য প্রাথমিকভাবে আবেদন করতে পারবে।

সিলেকশন এর ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা বা অন্য কোন কোটা যুক্ত শিক্ষার্থীরা অগ্রাধিকার পাবে।

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স কালীন ডাচ-বাংলা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর পরিমাণ ও মেয়াদকাল 


  শিক্ষার স্তর                       বৃত্তির মেয়াদকাল

1.স্নাতক (পাস)                           3 বছর

2.স্নাতক (সম্মান)                        4 বছর

3.এমবিবিএস বিডিএস

    বা ডিভিএম ডিগ্রী                    5 বছর


ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাসিক বৃত্তি হিসেবে প্রতি মাসে তিন হাজার টাকা এবং প্রতি বছর পাঠ্য উপকরণ কেনার জন্য 5000 টাকা প্রদান করা হয়।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদনের নিয়ম

অনার্স কালীন ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রথমে অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রাথমিক আবেদনের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অনার্স পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 2023 আবেদন করার জন্য উপরে উল্লেখিত সাইটে প্রবেশ করে স্কলার্শিপ সেকশনে গেলে ইসলামী ব্যাংক  এইচএসসি ভিত্তিক শিক্ষাবৃত্তি প্রাথমিক আবেদন ফর্ম পাওয়া যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইনে ফরমটি পূরণ করে জমা দিলে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন হবে।

অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করার কিছুদিন পর প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে। সে অনুসারে প্রাথমিক সিলেকশনে আপনি সিলেক্টেড হলে আপনাকে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য সকল কাগজপত্র জমা দিতে হবে। তাহলে অনার্স পর্যায়ের জন্য এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আপনার চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 2033 এর জন্য আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

অনার্স পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য অনলাইনে প্রাথমিক আবেদনের পরে প্রাইমারি সিলেকশন আপনি সিলেক্টেড হলে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য আপনার যেসব কাগজপত্র প্রয়োজন তা নিম্নরূপ

  • আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি
  • এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর সত্যায়িত কপি 
  • বর্তমানে যে বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের অধ্যায়নরত আছে ,সে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রত্যয়ন পত্র
  • ইউপি /চেয়ারম্যান /পৌরসভা /ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক অভিভাবকের পেশা উল্লেখপূর্বক মাসিক আয়ের সনদপত্র ।অভিভাবক চাকুরীজীবি হলে চাকুরীদাতা কর্তৃক পেশাপূর্বক মাসিক বেতনের সনদপত্র
  • আবেদনকারী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হলে মুক্তিযোদ্ধা সনদের সত্যায়িত কপি
  • আবেদনকারী প্রতিবন্ধী হলে প্রতিবন্ধী সনদের সত্যায়িত কপি
  • আবেদনকারী কোন কোঠা যুক্ত হলে সে কোঠার সনদপত্র প্রদান করতে হবে।
  • আবেদনকারীর বর্তমানে অধ্যায়নরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত আইডি কার্ডের সত্যায়িত কপি।


HSC রেজাল্ট ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংক স্কলারশিপ 2023 এর ফলাফল পাওয়ার উপায়!

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ের ইসলামী ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি জন্য আবেদন করা হলে চূড়ান্ত সিলেকশনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরে আপনি ইসলামী ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফলাফল দেখতে পারবেন । এছাড়াও সিলেকশনের ফলাফল বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয় সেখান থেকেও আপনি চাইলে দেখে নিতে পারেন।

3.সিজেডএম প্রদত্ত অনার্স স্কলারশিপ 2023

</আবভনভভন্ন।

মেধাবী ও সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের জন্য উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ-এর লক্ষে প্রতিবছর শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে সেন্টার ফর যাকাত ম্যানেজমেন্ট (সিজেডএম)। সিজেডএম দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা করার জন্য বৃত্তি প্রদান করে থাকে । এখন পর্যন্ত সিজেডএম করতে কর্তৃক বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় 15 হাজারের অধিক। 2019 সালেও সিজেডএম কর্তৃক বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ছিল হাজার 1875 জন।


আবেদনপত্র ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

অনলাইনে টোকেন পূরণ করতে এখানে ক্লিক করুন

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন সিজেডএম কর্তৃক শিক্ষাবৃত্তি 2023 গ্রহণের শর্তাবলী

  • দরিদ্র বা অস্বচ্ছল পরিবারের হতে হবে।
  • দেশের যে কোনো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সরকারি মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী হতে হবে।
  • সরকারি বৃত্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাংক বা প্রতিষ্ঠান শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত থাকলে আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না। অন্য কোনো ব্যাংক বা 2 প্রতিষ্ঠান থেকে বৃত্তিপ্রাপ্ত হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সিজেডএম কর্তৃক HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স শিক্ষাবৃত্তি 2023 এর জন্য আবেদনের সময়সীমা

অনার্স পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য সিজেডএম কর্তৃক প্রদত্ত শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদনের সময়সীমা - নির্ধারিত নয়।

সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি  এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের সম্ভাব্য তারিখ - নির্ধারিত নয়।

HSC ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি 2023 এর জন্য আবেদনের যোগ্যতা

সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি গ্রহণের জন্য আবেদন করতে হলে শিক্ষার্থীকে অবশ্যই দেশের যে কোনো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় বা সরকারি মেডিকেল কলেজে প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত হতে হবে।

অনার্স পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের জন্য সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি 2023 এর পরিমাণ ও সময়কাল

সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থী অনার্স লেভেলে প্রথম দুই বছর মাসিক 3000 টাকা হারে আর্থিক সহায়তা বা শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হবে।

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি 2023 আবেদনের নিয়ম

অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রথমে অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তির এর জন্য আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন!

উক্ত লিংক থেকে আবেদনপত্রের হার্ডকপি ডাউনলোড করে তা যথাবিহিত সত্য তথ্য দ্বারা পূরণ করতে হবে এবং সে অনুযায়ী অনলাইন ফরম পূরণ করে সাবমিট করতে হব। পূরণকৃত হার্ডকপি টি নিজের কাছে রেখে দিতে হবে।

অনলাইনের মাধ্যমে অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি  আবেদন করার জন্য উপরে উল্লেখিত সাইটে প্রবেশ করে স্কলার্শিপ সেকশনে গেলে অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি  এর প্রাথমিক আবেদন ফর্ম পাওয়া যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইনে ফরমটি পূরণ করে জমা দিলে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন হবে। আবেদনপত্রে প্রদানকৃত সকল তথ্য সত্য দিতে হবে।

অনলাইনে আবেদন করার পর বৃত্তির স্টুডেন্ট আইডি লগইন করতে পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে অন্য নম্বর দিয়ে পুনরায় রেজিস্ট্রেশন করতে হবে এক নাম্বার দুই বার ব্যবহার করা যাবে না।

অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করার কিছুদিন পর প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে। সে অনুসারে প্রাথমিক সিলেকশনে আপনি সিলেক্টেড হলে আপনাকে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য জেড এন কর্তৃক নির্দেশিত সকল কাগজপত্রসহ ভাইভাতে অংশগ্রহণের জন্য ডাকা হবে। ভাইভা গ্রহণের পরে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিত হবে। এভাবে চূড়ান্ত সিলেকশন এর পর আপনি অনার্স পর্যায়ে শিক্ষাবৃত্তি গ্রহণের জন্য নির্বাচিত হবেন।

অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর ফলাফল পাওয়ার উপায়!

অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি পাওয়ার জন্য প্রাথমিক আবেদন করার এক থেকে দুই মাস পরে প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হয় । প্রাইমারি সিলেকশনে সিলেক্টেড স্টুডেন্টদের মোবাইল নাম্বারে সিলেকশন এর ফলাফল সেন্ড করা হয়। প্রাইমারি সিলেকশন এর পরে ভাইভাতে সিলেক্টেড হওয়ার পর অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি গ্রহণের জন্য উপযুক্ত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশিত হয়।

অনার্স পর্যায়ে সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তি জন্য আবেদন করা হলে চূড়ান্ত সিলেকশনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরে আপনি সিজেডএম এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফলাফল দেখতে পারবেন । এছাড়াও সিলেকশনের ফলাফল বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয় সেখান থেকেও আপনি চাইলে দেখে নিতে পারেন। এগুলো ছাড়াও সিজেডএম শিক্ষাবৃত্তির জন্য চূড়ান্ত বলে নির্বাচিত হলে মোবাইল ফোনে মেসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয়।


4.HSC অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

2007 সাল থেকে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা ও উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ-এর লক্ষে প্রতিবছর শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে আসছে প্রাইম ব্যাংক ফাউন্ডেশন। তারই ধারাবাহিকতায় এ বছরও ২০২১সালে এইচএসসি তে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের অনার্স কালীন শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করবে প্রাইম ব্যাংক।

অনার্স প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য প্রতিবছর এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক অনার্স শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে প্রাইম ব্যাংক। ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক ইত্যাদির ন্যায় প্রাইম ব্যাংকও মাসিক হারে এইচএসসি  ভিত্তিক অনার্স কালীন শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে।


HSC ভিত্তিক অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ গ্রহণের শর্তাবলী

এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুসারে প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদন করতে হবে।আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের ওপর যে সকল শর্তাবলী প্রযোজ্য -

  • দরিদ্র বা অস্বচ্ছল পরিবারের হতে হবে।
  • অভিভাবকের মাসিক আয় শর্তসাপেক্ষে সীমিত হতে হবে। অর্থাৎ অভিভাবকের মাসিক আয়ের 10 হাজার টাকার নিচে হতে হবে।
  • সরকারি বৃত্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাংক বা প্রতিষ্ঠান শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত থাকলে আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।
  • প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  গ্রহণের জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই বর্তমানে কোনো সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজে ভর্তি থাকতে হবে।
  • আবেদনের ক্ষেত্রে কোনো তথ্য ভুল দেওয়া যাবে না। তাহলে আবেদন পত্র বাতিল বলে গন্য হবে।
  • বৃত্তে মনোনয়নে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদনের সময়সীমা

এইচএসসি রেজাল্টের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদনের সময়সীমা - ১৫ জুন ২০২২ 

চূড়ান্ত আবেদনের জন্য ভাইভার তারিখ - নির্ধারিত নয়।

প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের সম্ভাব্য তারিখ - নির্ধারিত নয়।

প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের চুড়ান্ত তারিখ - নির্ধারিত নয়।

HSC ভিত্তিক অনার্স পর্যায় প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদনের যোগ্যতা

HSC ভিত্তিক অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি তে আবেদনের জন্য শিক্ষার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন তা নিম্নরূপ-

  • ছাত্র দের জন্য এইচএসসি শিক্ষাবৃত্তিতে  আবেদন করার জন্য এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার প্রাপ্ত মোট ন্যূনতম GPA-9.00 থাকতে হবে।
  • ছাত্রীদের জন্য এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স কালীন  শিক্ষাবৃত্তির জন্য  আবেদন করার জন্য এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার প্রাপ্ত মোট ন্যূনতম GPA -8.8 থাকতে হবে।

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর মেয়াদকাল


  শিক্ষার স্তর                     বৃত্তির মেয়াদকাল

1.স্নাতক (পাস)                         3 বছর

2.স্নাতক (সম্মান)                      4 বছর

3.এমবিবিএস বিডিএস

    বা ডিভিএম ডিগ্রী                  5 বছর


প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাসিক বৃত্তি হিসেবে প্রতি মাসে 2,400 টাকা এবং বৃত্তির টাকা তিন মাস অন্তর 7200 টাকা হারে প্রদান করে থাকে।

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদনের নিয়ম

অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রথমে অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তির জন্য আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন! 

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর প্রাথমিক পর্যায়ে আবেদন করার জন্য উক্ত লিংকে গিয়ে প্রয়োজনীয় কাগজ যুক্ত করুন-

  • বিভাগীয় বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর প্রধান দ্বারা স্বাক্ষরিত এবং সীলমোহর যুক্ত স্নাতক পর্যায়ে ভর্তির রশিদ।
  • এসএসসি ও এইচএসসি পর্যায়ের নম্বরপত্র এর ফটোকপি এবং তা সত্যায়িত হতে হবে।
  • অভিভাবকের মাসিক আয়ের সনদপত্র। সনদপত্রে মাসিক আয়ের পরিমাণ উল্লেখ থাকতে হবে। সনদপত্র টি অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌরসভার মেয়র বা প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে।
  • সমস্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র অনলাইনে আবেদনের নির্দিষ্ট সেকশনে অ্যাড করতে হবে ফাইল আকারে।
প্রাইম ব্যাংকের প্রধান শাখা এর ঠিকানা

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা,প্রাইম ব্যাংক ফাউন্ডেশন।

বাড়ী নং-10 (দ্বিতীয় তলা),রোড  নং-19/এ,ব্লক -ই,

বনানী, ঢাকা 1213।


অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করার কিছুদিন পর প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে। সে অনুসারে প্রাথমিক সিলেকশনে আপনি সিলেক্টেড হলে আপনাকে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য প্রাইম ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী নির্দিষ্ট তারিখে ভাইভাতে উপস্থিত হতে হবে । তাহলে অনার্স পর্যায়ের জন্য এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আপনার চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হবে।

 অনার্স পর্যায়ে প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর চূড়ান্ত আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য অনলাইনে প্রাথমিক আবেদনের পরে প্রাইমারি সিলেকশন আপনি সিলেক্টেড হলে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য আপনার যেসব কাগজপত্র প্রয়োজন তা নিম্নরূপ

  • আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি
  • এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর সত্যায়িত কপি।
  • এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর সত্যায়িত কপি ।
  • এসএসসি পরীক্ষার মূল সনদের সত্যায়িত ফটোকপি
  • এইচএসসি পরীক্ষার মূল সনদের সত্যায়িত ফটোকপি
  • বর্তমানে যে বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের অধ্যায়নরত আছে ,সে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রত্যয়ন পত্র
  • ইউপি /চেয়ারম্যান /পৌরসভা /ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক অভিভাবকের পেশা উল্লেখপূর্বক মাসিক আয়ের সনদপত্র ।অভিভাবক চাকুরীজীবি হলে চাকুরীদাতা কর্তৃক পেশাপূর্বক মাসিক বেতনের সনদপত্র

অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর ফলাফল পাওয়ার উপায়!

এসএসসি ভিত্তিক অনার্স কালীন প্রাইম ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি জন্য আবেদন করা হলে চূড়ান্ত সিলেকশনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরে আপনি প্রাইম ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফলাফল দেখতে পারবেন । এছাড়াও সিলেকশনের ফলাফল বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয় সেখান থেকেও আপনি চাইলে দেখে নিতে পারেন।এছাড়াও চূড়ান্ত সিলেকশনে আপনি সিলেক্ট হলে মেসেজের মাধ্যমে প্রাইম ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তা জানিয়ে দিবে।

5.এইচএসসি ফলাফল  ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি তে শিক্ষার্থীদের এইচএসসি এর প্রাপ্ত ফলাফলের পাশাপাশি মেধাবী ও আর্থিক অস্বচ্ছলতার, প্রতিবন্ধী, অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান ইত্যাদি বিষয়গুলো বিবেচনা করে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি কর্তৃপক্ষ। প্রতিবছর অসংখ্য শিক্ষার্থী সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত হয়। কোনো শিক্ষার্থী পারিবারিক অর্থনৈতিক অসচ্ছলতার কারণে পড়াশোনা করতে না পারলেও সমস্যা হলে নিজের যোগ্যতার ভিত্তিতে ইসলামী ব্যাংক বৃত্তি গ্রহণ করতে পারে। সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি একটি শিক্ষার্থী বান্ধব শিক্ষাবৃত্তি। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের তাদের লক্ষ্যে পৌঁছানো একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়তে অনেক সহায়তা করে ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি।

আপনি যদি এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আগ্রহী হন তাহলে আপনার সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদনের করতে প্রয়োজনীয় যোগ্যতা ও শর্তাবলি আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানতে পারবেন।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ গ্রহণের শর্তাবলী

এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুসারে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আবেদন করতে হবে।

  • দরিদ্র বা অস্বচ্ছল পরিবারের হতে হবে/অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হতে হবে/প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে।
  • অভিভাবকের মাসিক আয় শর্তসাপেক্ষে সীমিত হতে হবে। অর্থাৎ অভিভাবকের মাসিক আয়ের 15 হাজার টাকার নিচে হতে হবে।
  • সরকারি বৃত্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাংক বা প্রতিষ্ঠান শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত থাকলে আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।
  • সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  গ্রহণের জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই বর্তমানে কোনো সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজে ভর্তি থাকতে হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদনের সময়সীমা

এইচএসসি রেজাল্টের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ এর জন্য আবেদনের সময়সীমা - ২৭-০২-২২ থেকে ১৩-০৩-২২ পর্যন্ত আবেদন চলবে অনলাইনে।

সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের সম্ভাব্য তারিখ - নির্ধারিত নয়।

HSC রেজাল্ট ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য?  এবং প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে জিপিএ-3.50 থাকতে হবে। তাহলে তারা সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য প্রাথমিকভাবে আবেদন করতে পারবে।

HSC রেজাল্ট ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের  জন্য সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর পরিমাণ 

সোনালী ব্যাংকে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবত্তি হিসেবে এককালীন 10 হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদনের নিয়ম

সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রথমে অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

HSC ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তির জন্য আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন!

সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  আবেদন করার জন্য উপরে উল্লেখিত সাইটে প্রবেশ করে স্কলারশিপ সেকশনে গেলে সোনালী ব্যাংক  এইচএসসি ভিত্তিক শিক্ষাবৃত্তি প্রাথমিক আবেদন ফর্ম পাওয়া যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইনে ফরমটি পূরণ করে জমা দিলে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন হবে।

অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করার কিছুদিন পর প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে। সে অনুসারে প্রাথমিক সিলেকশনে আপনি সিলেক্টেড হলে আপনাকে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য সকল কাগজপত্র জমা দিতে হবে। তাহলে অনার্স পর্যায়ের জন্য এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আপনার চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সোনালী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য অনলাইনে প্রাথমিক আবেদনের পরে প্রাইমারি সিলেকশন আপনি সিলেক্টেড হলে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য আপনার যেসব কাগজপত্র প্রয়োজন তা নিম্নরূপ

  • প্রাথমিক বাছাইয়ে মনোনীত আবেদনকারী কর্তৃক প্রিন্টকৃত অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম
  • একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট বা সনদ
  • নাগরিকত্ব সনদ
  • বর্তমানে যে বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের অধ্যায়নরত আছে ,সে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রত্যয়ন পত্র
  • ইউপি /চেয়ারম্যান /পৌরসভা /ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক অভিভাবকের পেশা উল্লেখপূর্বক মাসিক আয়ের সনদপত্র ।অভিভাবক চাকুরীজীবি হলে চাকুরীদাতা কর্তৃক পেশাপূর্বক মাসিক বেতনের সনদপত্র
  • আবেদনকারী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হলে মুক্তিযোদ্ধা সনদের সত্যায়িত কপি
  • আবেদনকারী প্রতিবন্ধী হলে প্রতিবন্ধী সনদের সত্যায়িত কপি
  • বৃত্তে মনোনয়নের ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।


HSC রেজাল্ট ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে সোনালী ব্যাংক স্কলারশিপ ২০২৩ এর ফলাফল পাওয়ার উপায়!

সোনালী ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি জন্য আবেদন করা হলে চূড়ান্ত সিলেকশনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরে আপনি সোনালী ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফলাফল দেখতে পারবেন ।

৬. শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২২ বরাবরের মতোই শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাবৃত্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

ক. শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এ যারা আবেদন করতে পারবে

  • ২০২১ সালে যারা এসএসসি পরীক্ষায় উর্ত্তিণ হয়েছে। এবং এইচএসসিতে / আমিলে / তার সমমান এ অধ্যয়নরত। 
  • ২০২১ সালে যারা এইচএসসি/ আলিম / তার সমমান পরীক্ষায় উত্তির্ন হয়ে বর্তমানে অনার্স বা তার সমমানে অধ্যয়নরত। 
  • যাদের পরিবারের বাৎসরিক আয় ১,৫০,০০০ টাকার নিচে তারা আবেদন করতে পারবে।
  • যারা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় অবস্থিত, তারা যদি বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী হয়ে থাকে তাহলে তাদের জিপিএ ৫:০০ হতে হবে। এবং তারা যদি পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদের এলাকাভুক্ত হয় তাহলে তাদের জিপিএ সর্বনিম্ন ৪:৮০ হতে হবে।
  • অন্যান্য বিভাগের ক্ষেত্রে অর্থাৎ মানবিক এবং ব্যবসায়ী বিভাগের ক্ষেত্রে তারা যদি শহর বা সিটি কর্পোরেশন এলাকাভুক্ত হয় তাদের জিপিএ সর্বনিম্ন ৪:৮০ হতে হবে। যারা পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদের এলাকা ভুক্ত তারা যদি মানবিক অথবা ব্যবসায়ী শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী হয়ে থাকে তাদের জিপিএ ৪.৫০ হতে হবে।

খ. শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর আবেদনের নিয়ম

  • উপরের লিংক থেকে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  ২০২২ এর পিডিএফ ডাউনলোড করতে হবে। নিচে দেখানো হয়েছে কোন অংশ থেকে পিডিএফ ডাউনলোড করবেন।

  • পিডিএফএ উল্লেখকৃত সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।
  • সকল তথ্য পূরণ করার পর ১৭ই আগস্ট ২০২২ তারিখের মধ্যে- 'হেড অফ ফাউন্ডেশন, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক টাওয়ার, প্লট নং: ৪, ব্লক নং: সিডাব্লিউএন(সি), গুলশান এভিনিউ,  গুলশান,  ঢাকা - ১২১২' এই ঠিকানায় আবেদন পত্র পাঠাতে হবে সশরীরে। 

৭.আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

আমদের দেশে মেধাবী ও অস্বচ্ছল পরিবারের শিক্ষার্থীদের স্কলারশপ প্রদান করে আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক।  প্রতিবছর আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে দরিদ্র শিক্ষার্থীদের কিছু অর্থনৈতিক বিষয় বিবেচনার মাধ্যমে অনার্স কালীন স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে। 

আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক যে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে  70% গ্রামীণ বা অনগ্রসর এলাকায় অবস্থিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের জন্য এবং এই শিক্ষাবৃত্তি ছেলে ও মেয়ে উভয় শিক্ষার্থীদের জন্য বরাদ্দ থাকে।

এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

এইচএসসি ভিত্তিক অনার্স কালীন আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ গ্রহণের শর্তাবলী

এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে যোগ্যতা অনুসারে অনার্স কালীন সময়ের জন্য আল আরাফা ইসলামি শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আবেদন করতে হলে শিক্ষার্থীকে -

  1. দরিদ্র বা অস্বচ্ছল পরিবারের হতে হবে।
  2. অভিভাবকের মাসিক আয় শর্তসাপেক্ষে টাকা বা এর কম হতে হবে।
  3. সরকারি বৃত্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যাংক বা প্রতিষ্ঠান শিক্ষাবৃত্তির অন্তর্ভুক্ত থাকলে আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।
  4. আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  গ্রহণের জন্য আবেদনকারীকে অবশ্যই বর্তমানে কোনো সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজে ভর্তি থাকতে হবে।


আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তির আবেদনের সময়সীমা

এইচএসসি রেজাল্টের ভিত্তিতে অনার্স পর্যায়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আবেদনের সময়সীমা - ২রা জুন পর্যন্ত।

আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর প্রাথমিক সিলেকশন এর ফলাফলের সম্ভাব্য তারিখ - নির্ধারিত নয়।

HSC ভিত্তিক অনার্স কালীন আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদন করার জন্য যোগ্যতা!

সিটি কর্পোরেশন এলাকার অন্তর্গত কলেজ ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ বিজ্ঞান বিভাগের  শিক্ষার্থীদের জন্য ন্যূনতম জিপিএ 5.00 থাকতে হবে।

সিটি কর্পোরেশন এলাকার অন্তর্গত কলেজ ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ বিজ্ঞান বিভাগের  শিক্ষার্থীদের জন্য ন্যূনতম জিপিএ 4.8 থাকতে হবে।

সিটি কর্পোরেশন এলাকার  কলেজ বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ অন্যান্য বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের আল আরাফা ব্যাংক বৃত্তির জন্য আবেদন করার জন্য ন্যূনতম জিপিএ 4.8 হতে হবে। এবং সিটি কর্পোরেশন এলাকার  বাইরের কলেজ ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ অন্যান্য বিভাগের  শিক্ষার্থীদের জন্য ন্যূনতম জিপিএ 4.5 থাকতে হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের জন্য আল আরাফা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর পরিমাণ ও সময়কাল


   শিক্ষার স্তর                     বৃত্তির মেয়াদকাল 


1.স্নাতক (পাস)                        3 বছর


2.স্নাতক (সম্মান)                     4 বছর


3.এমবিবিএস বিডিএস


   ডিগ্রী                                     5 বছর


আল আরাফা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাসিক বৃত্তি হিসেবে প্রতি মাসে তিন হাজার পাঁচ শত টাকা এবং প্রতি বছর পাঠ্য উপকরণ কেনার জন্য 8000 টাকা প্রদান করা হয়।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন  আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ আবেদনের নিয়ম

অনার্স পর্যায়ে  আল আরাফা ব্যাংক ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের প্রথমে অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে।

আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি এর জন্য আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন!

অনার্স পর্যায়ে আল আরাফা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  আবেদন করার জন্য উপরে উল্লেখিত সাইটে প্রবেশ করে স্কলার্শিপ সেকশনে গেলে আল আরাফা ব্যাংক  এইচএসসি ভিত্তিক শিক্ষাবৃত্তি প্রাথমিক আবেদন ফর্ম পাওয়া যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইনে ফরমটি পূরণ করে জমা দিলে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন হবে।

অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করার কিছুদিন পর প্রাইমারি সিলেকশন এর ফলাফল প্রকাশিত হবে। সে অনুসারে প্রাথমিক সিলেকশনে আপনি সিলেক্টেড হলে আপনাকে চূড়ান্ত আবেদনের জন্য সকল কাগজপত্র জমা দিতে হবে। তাহলে অনার্স পর্যায়ের জন্য এইচএসসি ফলাফল ভিত্তিক আল আরাফা ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি  এর জন্য আপনার চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হবে।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন আল আরাফা ইসলামি শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর জন্য আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

অনলাইনের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  1. আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি স্ক্যান কপি ।
  2. আবেদনকারীর পিতা ও মাতার পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি স্ক্যান কপি ।
  3. এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর স্ক্যান কপি ।
  4. এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর স্ক্যান কপি।
  5. আবেদনকারী কোটার অন্তর্ভুক্ত হলে আবেদনের সময় তা উল্লেখ করা এবং উপযুক্ত প্রমাণ দেওয়া।


প্রাথমিক সিলেকশনের পরে চূড়ান্ত আবেদন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  1. আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের  সত্যায়িত রঙ্গিন ছবি
  2. এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার মার্কশিট এর সত্যায়িত কপি 
  3. বর্তমানে যে বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের অধ্যায়নরত আছে ,সে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রত্যয়ন পত্র
  4. ইউপি /চেয়ারম্যান /পৌরসভা /ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক অভিভাবকের পেশা উল্লেখপূর্বক মাসিক আয়ের সনদপত্র ।অভিভাবক চাকুরীজীবি হলে চাকুরীদাতা কর্তৃক পেশাপূর্বক মাসিক বেতনের সনদপত্র
  5. আবেদনকারী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হলে মুক্তিযোদ্ধা সনদের সত্যায়িত কপি
  6. আবেদনকারী প্রতিবন্ধী হলে প্রতিবন্ধী সনদের সত্যায়িত কপি
  7. আবেদনকারী কোন কোঠা যুক্ত হলে সে কোঠার সনদপত্র প্রদান করতে হবে।
  8. আবেদনকারীর বর্তমানে অধ্যায়নরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত আইডি কার্ডের সত্যায়িত কপি।

HSC ফলাফল ভিত্তিক অনার্স কালীন  আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ এর ফলাফল পাওয়ার উপায়!

অনার্স কালীন আল আরাফা ইসলামি ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি জন্য আবেদন করা হলে চূড়ান্ত সিলেকশনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরে আপনি আল আরাফা ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফলাফল দেখতে পারবেন । অথবা আবেদন করার সময় প্রদানকৃত মোবাইল নাম্বারে সিলেক্টেড হলে কনফার্ম মেসেজ আসবে এবং ফলাফল দেখা যাবে।

9.পুসান শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ Pusan scholarship 2022

নাটোরের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংগঠন পুসান। এই সংগঠন তার সদস্যদের জন্য শিক্ষাবৃত্তির আয়োজন করেছে। শিক্ষা বৃত্তি পাবে নাটোরের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংগঠনের দরিদ্র ও অস্বচ্ছল সদস্যরা।

বৃত্তির পরিমান ও মেয়াদ

  • 1 বছর মেয়াদী- মাসিক 2 হাজার টাকা
  • পরীক্ষার ফলাফল ও আর্থিক সচ্ছলতা বিবেচনায় বৃত্তির মেয়াদকাল বাড়ানো হবে।
আবেদনকারীর যোগ্যতা
  • পুসানের এর সদস্য হতে হবে।
  • আর্থিকভাবে অসচ্ছল এবং নিজ ও অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে।
  • পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অথবা সরকারি মেডিকেল কলেজ অথবা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী। (২০১৬-১৭ হতে ২০২১-২২ সেশন পর্যন্ত) 
আবেদনের নিয়মাবলী
  • কুশান কর্তৃক প্রদানকৃত গুগোল ফরমের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।
  • আবেদনের সাথে নিজের ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্র, পৌরসভার মেয়র অথবা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কর্তৃক স্বাক্ষরিত নাগরিক সনদপত্র, স্বীয় প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড ও নিজ বিভাগের চেয়ারম্যান কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রত্যায়নপত্রের স্ক্যান কপি জমা দিতে হবে। (যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে 'পুসান শিক্ষাবৃত্তি প্রদান কমিটি' এর সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।)

10. মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি 


মাধ্যমিক: বার্ষিক পুরষ্কার (শিক্ষা সামগ্রী)
মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষা সহায়তা প্রোগ্রাম চালু করেছে। শিক্ষা সহায়তা প্রোগ্রামের 13 টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। প্রজেক্ট এর মধ্যে সর্ব প্রথমে রয়েছে শিক্ষা সামগ্রী বাবদ বার্ষিক পুরস্কার। এই প্রকল্পে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের প্রতি বছর 1 হাজার থেকে তিন হাজার টাকা প্রদান বার্ষিক পরীক্ষার শেষে।

এসএসসি ফরম ফিলাপ সহায়তা
এমন অনেক দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী আছেন যারা এসএসসি ফরম ফিলাপ করতে অক্ষম। তাদের জন্য মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ফরম ফিলাপ সহায়তা প্রদান করে থাকে। নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফরম ফিলাপ বাবদ 2000 থেকে তিন হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করে থাকে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। 

এইচএসসি ভর্তি ও শিক্ষা সামগ্রী সহায়তা
ক্রমান্বয়ে এসএসসি পরীক্ষার পর এইচএসসিতে বিভিন্ন কলেজে ভর্তি হওয়ার জন্য যে সকল মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীরা অক্ষম হন। তাদের সহায়তা প্রদান করে থাকে এই ফাউন্ডেশন। মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এই পর্যায়ে 2500 থেকে 6000 টাকা শিক্ষা সহায়তা হিসেবে প্রদান করে থাকে সাহায্যপ্রার্থী নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের। এই শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয় শুধু এইচএসসি ভর্তির জন্য তার সাথে কিছু শিক্ষা সামগ্রী প্রদান করা হয়।

মাসিক এইচএসসি বৃত্তি|মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি
এসএসসির পর যারা ভাল ফলাফল করে বিভিন্ন কলেজে এইচএসসিতে ভর্তি হয় তাদের মাসিক বৃত্তি প্রদান করে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি মাসিক হারে প্রদান করে থাকে। এইচএসসির এই মাসিক বৃত্তি 1500 থেকে 5000 টাকা প্রদান করে থাকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের। বৃত্তির জন্য আবেদন করতে হলে আপনাকে অবশ্যই দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী হতে হবে।

এইচএসসি ফরম ফিলাপ সহায়তা | মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন বৃত্তি
প্রতিটি পর্যায়ের মত এইচএসসি ফরম ফিলাপেও দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করে আসছে বা সহায়তা প্রদান করে আসছে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। এইচএসসি ফরম ফিলাপের জন্য 2500 থেকে 4000 টাকা প্রদান করে থাকে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। 

ভার্সিটি/মেডিকেল ভর্তি প্রস্তুতি সহায়তা
এই পর্যায়ে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন  ৪০০০ থেকে ৬০০০ টাকা বার্ষিক বৃত্তি প্রদান করে থাকে ভর্তি প্রস্তুতি নেওয়া শিক্ষার্থীদের।

ভার্সিটি মেডিকেল ভর্তি ফরম ক্রয় ও যাতায়াত খরচ
এই পর্যায়ে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ৬০০০ থেকে ২০,০০০ টাকা প্রদান করে থাকে শিক্ষার্থীদের ভর্তির ফরম ক্রয় এবং যাতায়াত খরচ বাবদ।

ভার্সিটি মেডিকেল ভর্তি ফি
ভার্সিটি বা মেডিকেলে ভর্তি হওয়ার জন্য মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের সহায়তা প্রদান করে থাকে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। যারা দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও সরকারি মেডিকেলে ভর্তির জন্য চান্স পাই তাদেরকে ভর্তি হওয়ার জন্য ৬,০০০ থেকে ২৫,০০০ টাকা শিক্ষা সহায়তা প্রদান করা হয়।

ভার্সিটি বা মেডিকেলে মাসিক স্নাতক বৃত্তি
বিভিন্ন সংগঠন এবং ব্যাংকের পাশাপাশি মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন স্নাতক শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে। এই পর্যায়ে তারা মাসিক 2500 টাকা প্রদান করে থাকে এবং বাৎসরিক 5000 টাকা প্রদান করে থাকে শিক্ষা সামগ্রী কেনার জন্য।
ভার্সিটি বা মেডিকেলে স্নাতকোত্তর বৃত্তি
যারা ভার্সিটি বা মেডিকেল স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পড়াশোনা করছেন তাদের জন্য এই বৃত্তির ব্যবস্থা করে থাকে মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। এই বৃদ্ধিতে শিক্ষার্থীদের প্রতি মাসে 3000 টাকা প্রদান করা হয়ে থাকে। এবং বাৎসরিক 5000 টাকা প্রদান করা হয় শিক্ষা সামগ্রী কেনার জন্য।
 
University Medical Admission Aid 2021
মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন প্রতিবারের ন্যায় এবারও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য এককালীন আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে। এমন অনেক শিক্ষার্থী রয়েছে যারা অসচ্ছলতার কারণে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল এ ভর্তির সুযোগ পেয়েও ভর্তি হতে পারে না। কেবল তাদের জন্যই মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। তাই আপনি যদি আর্থিকভাবে অসচ্ছল না হন তাহলে ইউনিভার্সিটি মেডিকেল এডমিশন এইড ২০২১ এ আবেদন করবেন না। আবারও বলছি আপনি যদি আর্থিকভাবে অসচ্ছল না হন তাহলে আবেদন করবেন না। কারণ আপনি আবেদন করলে একজন প্রকৃত অসহায় শিক্ষার্থী সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে।
ভর্তি সহায়তা আবেদনের যোগ্যতা| মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

যে কোন শিক্ষার্থী ভর্তি সহায়তা আবেদন করলে এই সুবিধা পাবেন না। বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল ভর্তি সহায়তা 2021 এ আবেদন করতে হবে আপনার কিছু যোগ্যতা থাকতে হবে। বিশেষ করে মেধাবী ও সুবিধাবঞ্চিত হতে হবে। স্পষ্টভাবে নিচে ভর্তি সহায়তা আবেদনের যোগ্যতা উল্লেখ করা হলো-
  • পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেতে হবে
  • আপনাকে অবশ্যই সুবিধাবঞ্চিত হতে হবে। কেননা আর্থিকভাবে স্বচ্ছলদের আবেদন করার কোন প্রয়োজন নেই।

আবেদন প্রক্রিয়া | মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩

এই সহায়তা পাওয়ার জন্য কয়েকটি ধাপ রয়েছে। সে ধাপগুলো সুন্দর ও সহজ করে নিচে তুলে ধরছি- 
  • প্রথমত আপনাকে একটি গুগোল ফর্ম পূরণ করতে হবে প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী দিয়ে।  
  • যারা প্রাথমিকভাবে সিলেক্টেড হবেন তাদের ভাইভা  নেওয়া হবে।
  • ভাইভা শেষে আপনাদের সম্পূর্ণ তথ্য যাচাই করে ফাইনালি সিলেক্ট করা হবে।
  • গুগোল ফর্ম এর একটি নির্দিষ্ট স্থানে, আপনি কেন এই সহায়তা নিতে চান?  অর্থাৎ শিক্ষার্থী তার জীবন সংগ্রাম, পড়াশোনা, পারিবারিক ও আর্থিক সমস্যাগুলো স্পষ্ট ভাবে তুলে ধরবে। এখানে তিন পেজের একটি কভার লেটার দেওয়ার কথা বলা হয়েছে যদিও 3 পেজের একটু বেশি হলে সমস্যা নেই ।এই পেজের লেখা মোবাইল ফোন বা কম্পিউটারের মাধ্যমে স্ক্যান করে, গুগোল ফর্ম এর নির্দিষ্ট অপশনে এটাচ করে সম্পূর্ণ গুগোল ফরমে তথ্য গুলো পূরণ করতে হবে।
  • গুগল ফর্ম পূরণের পাশাপাশি আপনি এই ফাউন্ডেশনের ফেসবুক পেজে মেসেজ দিয়ে বোঝান আপনার জন্য এই বৃত্তিটা কতটুকু প্রয়োজন। 
  • নিজ হাতে আপনার সহায়তা পাওয়ার জন্য নিজের গল্পটি লিখতে হবে খাতায়।
  • 3 পৃষ্ঠা বা তার অধিক পৃষ্ঠার আপনার জীবন গল্পটি বা কভার লেটার মোবাইল ফোনে বা কম্পিউটারে স্ক্যান করতে হবে(মোবাইলে ক্যামস্ক্যানার দিয়ে সুন্দর স্ক্যান করতে পারবেন)।
  • স্ক্যান করা শেষে উক্ত ফাইলটি গুগোল ফরমে এটাচ করতে হবে।


মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ নিয়ে কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

১. ইউনিভার্সিটি মেডিকেল এডমিশন এইড এর লাস্ট ডেট কবে?
- বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল ভিত্তিক ভর্তি একেক বিশ্ববিদ্যালয় একেক দিন হওয়ায় এটার নির্দিষ্ট কোন লাস্ট ডেট নেই।
২. যারা নার্সিং করে তারা কি আবেদন করতে পারবে?
- না 
৩. ঢাকার সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা কি আবেদন করতে পারবে?
- না 
বৃত্তি সম্পর্কিত আপনার যেকোন ধরনের প্রশ্ন করতে পারেন আমাদের কমেন্ট বক্সে।

11. ওয়ান ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩ | One Bank Scholarship 2022

বেশকিছু ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে তার মধ্যে ওয়ান ব্যাংক অন্যতম। এই অংশে ওয়ান ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। এসএসসি এইচএসসি ও অনার্স পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের জন্য ওয়ান ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে। 

12. ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি ২০২৩

১. ইমদাদ সিতারা খান ফাউন্ডেশন কী?
ইমদাদ সিতারা খান ফাউন্ডেশন প্রবাসী বাংলাদেশীদের অর্থায়নে পরিচালিত সেবামূলক একটি ফাউন্ডেশন। ইমদাদ সিতারা খান  ফাউন্ডেশন বিভিন্ন সেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। শিক্ষাবৃত্তি তাদের কার্যক্রমের অন্যতম একটি শাখা। প্রায় প্রতিবছরই তারা শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে আসছে।


২. কোন পর্যায়ের শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবেন| ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি ২০২৩
যে সকল শিক্ষার্থীরা ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি ২০২৩  এ আবেদন করতে পারবেন-
  • যারা ২০২১ সালে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন এবং বর্তমানে অর্থাৎ ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষ এইচএসসিতে অধ্যায়নরত তারা আবেদন করতে পারবেন। 
  • মানবিক, বিজ্ঞান ও ব্যবসায় বিভাগের সকল শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।
  • যারা ২০২০ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ২০২০-২১ সেশনে অনার্সে অধ্যায়নরত তারা আবেদন করতে পারবেন।
  • ডিগ্রি বা অনার্স পর্যায়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। বিএ অনার্স, বিএসসি, কৃষি অনুষদের সকল বিভাগ, বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং টেক্সটাইল, বিডিএস, এমবিবিএস, বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং পর্যায়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের নিকট হতে শিক্ষা বৃত্তির আবেদন আহ্বান করা হয়েছে।


৩. আবেদন করবেন কীভাবে| ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি ২০২৩
ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি এর জন্য  www.spaandanb.org ওয়েবসাইট থেকে নির্দিষ্ট আবেদন ফরম ডাউনলোড করতে হবে। আবেদন ফরম এর নির্দিষ্ট স্থানে সঠিক তথ্য প্রদান করে আবেদন ফরম পাঠাতে হবে নিজের ঠিকানায়-
  • চেয়ারম্যান, ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি নির্বাচন কমিটি।
  • বাসা #০৭/২,  শ্যামলছায়া #১, ফ্ল্যাট #বি/২, গার্ডেন স্ট্রিট, রিং রোড, শ্যামলী, মোহাম্মদপুর, ঢাকা ১২০৭
  • উক্ত ঠিকানায় ডাক/কুরিয়ার/সরাসরি অফিসে গিয়ে প্রদান করতে পারবেন।

৪.আবেদনের লাস্ট ডেট কবে? 
আবেদন পাঠানোর লাস্ট ডেট হলো ১৭ এপ্রিল ২০২২(২০২৩ এর বিজ্ঞপ্তি দেয় নি)


৫. আবেদনের যোগ্যতা | ইমদাদ খান সিতারা বৃত্তি ২০২৩
এইচএসসি শিক্ষার্থীদের আবেদনের যোগ্যতা
  • যারা বর্তমানে এইচএসসি পর্যায়ের শিক্ষার্থী এবং এসএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগে চতুর্থ বিষয় ছাড়া জিপিএ 5 পেয়েছে তারা আবেদন করতে পারবে।
  • এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের যারা মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে পড়ছে তাদের এসএসসিতে চতুর্থ বিষয় ছাড় জিপিএ 4.50 থাকলে আবেদন করতে পারবে।
  • দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এবং যারা স্বাভাবিক জীবন-যাপনে অক্ষম তাদের জন্য জিপিএ 4.00 থাকতে হবে।
অনার্স ও ডিগ্রী শিক্ষার্থীদের আবেদনের যোগ্যতা
  • বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য এসএসসি সমমান এবং এইচএসসি ও সমমান উভয় পরীক্ষায় সর্বমোট জিপিএ 9.50 থাকতে হবে।
  • অন্যান্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য উভয় পরীক্ষায় জিপিএ 9.20 থাকতে হবে।
  • দৃষ্টি প্রতিবন্ধী অথবা যারা স্বাভাবিক জীবন-যাপনে অক্ষম তাদের জিপিএ থাকতে হবে 8.00

৬. ইমদাদ সিতারা খান বৃত্তি ২০২৩ এর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

যে সকল কাগজপত্র প্রয়োজন অর্থাৎ যে সকল কাগজপত্র বৃত্তির আবেদন এর সাথে প্রদান করতে হবে তা হল 
  • বর্তমানে যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত সে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান অথবা বিভাগীয় প্রধান অথবা প্রভোস্ট অথবা হল সুপার কর্তৃক সত্যায়িত প্রত্যায়ন পত্রের ফটোকপি
  • সকল পরীক্ষার পাশের সনদপত্র ট্রান্সক্রিপ্ট এর ফটোকপি। বর্তমান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে।
  • সাম্প্রতিক তোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি যা বিভাগের বা বর্তমান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে।
  • আবেদনকারী কেন নিজেকে এই বৃদ্ধির জন্য যোগ্য বলে মনে করছেন তার জন্য 300 থেকে 400 শব্দের বর্ণনা যুক্ত করতে হবে যা তার নিজ হাতে লিখতে হবে।
  • পাঠ্যক্রম বহির্ভূত বিভিন্ন কাজের বা সংগঠনের সাথে যুক্ত থাকলে তার সনদপত্র যুক্ত করতে হবে।
  • শুধুমাত্র এমবিবিএস ও বিডিএস শিক্ষার্থীরা যারা 2019 সলে পাশ করেছেন তারাও আবেদন করতে পারবেন।
  • দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের শারীরিকভাবে অক্ষম হলে সমাজসেবা অধিদপ্তর বা প্রতিষ্ঠান হতে পরিচয় পত্র এর ফটোকপি প্রদান করতে হবে।
  • উক্ত তথ্যগুলো মিথ্যা প্রমাণিত হলে আবেদনপত্র বাতিল বলে গণ্য করা হবে।
৭. কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা
শিক্ষাবৃত্তি যাদের প্রয়োজন কেবল তারাই আবেদন করবেন। কোম্পানিকে রয়েছে যাদের শিক্ষাবৃত্তির প্রয়োজন নেই তারপরেও তারা আবেদন করেন।

১৩. ব্র‍্যাক ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি ২০২৩
আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল পরিবারের শিক্ষার্থীদের শিক্ষার পথ সুগম করতে ও একটি সুন্দর ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে 2010 সাল থেকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করে আসছে ব্রাক ব্যাংক। ব্র্যাক ব্যাংক আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের বই কেনা, ভর্তি ও টিউশন ফি'র জন্য শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে।
বিশেষ দ্রষ্টব্য : ব্র্যাক ব্যাংক এসএসসি ফলাফল ভিত্তিক এইচএসসি পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে।
এসএসসি ভালো ফলাফলের ভিত্তিতে ব্র্যাক ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তির নির্দেশনা অনুযায়ী ছবিতে পাওয়ার জন্য আবেদন করতে হয়। 2019 সালে এসএসসি পাস কৃত শিক্ষার্থীদের মধ্যে 50 জন শিক্ষার্থীকে এইচএসসি পর্যায়ে ছবিতে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করছে ব্র্যাক ব্যাংক।
বিস্তারিত জানতে ব্র্যাক ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

১৪. গ্রামীণ ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি 
জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকে গ্রামীণ ব্যাংক। তবে গ্রামীণ ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয় শুধুমাত্র গ্রামীণ ব্যাংকের দরিদ্র সদস্যদের মেধাবী সন্তানদের। ভালো ফলাফলের ভিত্তিতে বাছাই করে গ্রামীণ ব্যাংকের সদস্যদের সন্তানদের বৃত্তি দেওয়া হয়ে থাকে। 
গ্রামীণ ব্যাংক শিক্ষাবৃত্তি পাওয়ার জন্য গ্রামীণ ব্যাংকের কোনো হোল্ডার বা কর্মীর সাথে যোগাযোগ করুন।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

27 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

  1. আমার একটি শিক্ষাবৃত্তির খুব প্রয়োজন। এখন পর্যন্ত আমার পড়াশোনার খরচ বিভিন্নভাবে যোগাড় হয়েছে। কিন্তু ঢাবিতে চান্স পাওয়ার পর থেকে আমার ভর্তি খরচ ও অন্যান্য খরচ যোগাড় প্রায় অসম্ভব হয়ে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় যেকোনো ধরনের মেধাবৃত্তি অথবা লোন পেলে উপকৃত হতাম।
    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ

    ReplyDelete
  2. আমি তোমার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমিডিয়েট সিনিয়র আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারো, 01789699509

    ReplyDelete
  3. আমার শিক্ষাবৃত্তির প্রয়োজন। কিন্তু পাইনি কখনও। অনেক কষ্ট করে ঢাবিতে চান্স পেয়েছি, আর সেই কষ্ট আরো বেড়ে গেছে এখন।

    ReplyDelete
    Replies
    1. আমি তোমার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমিডিয়ট সিনিয়র আমার সাথে যোগাযোগ করতে পার

      Delete
  4. I need badly a tuition or a monthly scholarship to survive and complete my graduation. I'm a student of Dhaka University 20-21 session.

    ReplyDelete
  5. আসসালামুয়ালাইকুম, ভাই। আমি ঢাবির ১ম বর্ষে পড়াশোনা করছি। আপনার সঙ্গে দেখা করতে চাচ্ছি।

    ReplyDelete
  6. 01789699509 ফোন দিও, শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল, রুম নম্বর ৪০০৯, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

    ReplyDelete
  7. রুম:৪০০৯, শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ০১৭৮৯৬৯৯৫০৯ ফোন দিও

    ReplyDelete
  8. Mehedi Hasan 01628716941.Law Department, Ru.I come from middle class family. So,i need a scholarship. Please help me.

    ReplyDelete
    Replies
    1. আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

      Delete
  9. একটা শিক্ষাবৃত্তি অনেক প্রয়োজন।
    তাহলে পড়াশোনায় মনোযোগী হতে পারতাম।

    ReplyDelete
    Replies
    1. আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন

      Delete
  10. আমি মোঃ হাসানুর রহমান। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। আমার ক্লাস অনলাইনে চলছে। আমার বাসা দিনাজপুরে। বাসা থেকে অনলাইনে ক্লাস করতেছি। আমি কিভাবে সুপারিশ পত্র আনবো? বুঝতে পারছিনা। আমার একটি বৃত্তির খুবই প্রয়োজন। কারোন আমার পরিবারের বর্তমান আয়ে সংসারই ঠিকভাবে চলেনাো

    ReplyDelete
  11. আমি মোঃ হাসানুর রহমান। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। আমার ক্লাস অনলাইনে চলছে। আমার বাসা দিনাজপুরে। বাসা থেকে অনলাইনে ক্লাস করতেছি। আমি কিভাবে সুপারিশ পত্র আনবো? বুঝতে পারছিনা। আমার একটি বৃত্তির খুবই প্রয়োজন। কারোন আমার পরিবারের বর্তমান আয়ে সংসারই ঠিকভাবে চলে না।

    ReplyDelete
    Replies
    1. আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন

      Delete
  12. আমার এসএসসি রেজাল্ট ৪.৮৩(বিজ্ঞান)
    এবং এইচএসসি রেজাল্ট ৪.৯২ (বিজ্ঞান)

    আমি এখন এডমিশন ক্যানডিডেট,,,আমি কি এটার জন্য আবেদন করতে পারব ভাইয়া???

    ReplyDelete
    Replies
    1. কোন শিক্ষাবৃত্তির কথা বলছেন?


      Delete
  13. আমি দুর্লভ চন্দ্র বর্মন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র । আমার বাড়ি বাংলাদেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে। আমার বাবা একজন সামান্য দিনমজুর। আমি বহু কষ্টে এই পর্যন্ত আসতে পেরেছি, কিন্তু বর্তমানে আমার বাবার পক্ষে আমার পড়ালেখার খরচ বহন করা সম্ভব হচ্ছে নাহ, তাই আমার একটা বৃত্তির ব্যবস্থা করে দিলে সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকব।

    ReplyDelete
    Replies
    1. আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন

      Delete
  14. আমার একটি শিক্ষাবৃত্তির খুব প্রয়োজন।ঢাবিতে ভর্তির খরচ পরিবার বহন করতে পারলেও মাসিক খরচ বহন করা প্রায় অসম্ভব। আমি ২০-২১ সেশনে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগে অধ্যয়নরত।

    ReplyDelete
    Replies
    1. ছোটভাই, তুমি আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারো।

      Delete
  15. আমি আরিফ হোসাইন।বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে ১ম বর্ষে অধ্যয়নরত।পারিবারিক অস্বচ্ছলতার জন্য একটি শিক্ষাবৃত্তি খুবই প্রয়োজন।

    ReplyDelete
    Replies
    1. You can contact with us by WhatsApp and E-mail

      Delete
  16. আমি রবীন্দ্র রায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়,রংপুর রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের ১ম বষের ছাত্র।।আমার আথিক অবস্থা খারাপ থাকায় আমার পড়ালেখা বন্ধের উপক্রমে বতমানে। এমতাবস্থায় আমার একটা বৃত্তির প্রয়োজন।

    ReplyDelete
    Replies
    1. আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পার।

      Delete
  17. আমি বর্তমানে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয়ে অধ্যয়নরত আছি। আমরা চার ভাইবোনের মধ্যে দুই বোন বড় আর আমরা দুইভাই ছোট ভাইদের মধ্যে আমি বড় ছোট ভাই ক্লাস নাইনে পড়ে।বাবা মারা যায় আমি একদম ছোট থাকতে (২০০৭সালে) সেই থেকে মা আমাদের অনেক কষ্টে লালন পালন করেছেন। আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো মতে ভর্তি হয়েছি কিন্তু এখানে আমার পক্ষে এখানকার খরচ বহন করা একেবারেই অসম্ভব হয়ে পড়েছে, আমার এরকম একটা বৃত্তি খুবি প্রয়োজন।

    ReplyDelete

অর্ডিনারি আইটি কী?