The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/04/part-time-job.html

পার্ট টাইম জব ! পার্ট টাইম জব করুন The DU Speech -এ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিচালিত আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন The DU Speech এর  পক্ষ থেকে পার্ট টাইম জব অফার করা হচ্ছে। পার্ট টাইম জব এর জন্য বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান এই ঢাকা  বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিচালিত আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন। আমাদের সংগঠনে আমরা মূলত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আর্টিকেল লেখা শেখাই এবং পার্ট টাইম জবের ব্যবস্থা করে থাকি। পাশাপাশি অনান্য সাধারণের জন্যও পার্ট টাইম জবের ব্যবস্থা করে থাকি। পার্ট টাইম জব প্রদানের পূর্বে আমরা আগ্রহীদের ট্রেইনিং প্রদান করে থাকি। The DU Speech এর পার্ট টাইম জব সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে সম্পুর্ণ লেখাটি পড়ুন। 


এই আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জব শুধু মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের জন্য। তবে চাইলে ল্যাপটপ বা কপিউটারেও সম্ভব তবে থাম্বনেইল পিকচার এডিটে একটু সমস্যায় পড়তে পারেন।  আর্টিকেল লেখার জন্য আপনার মোবাইল ফোনের র‍্যাম ও রোম সর্বনিম্ন ৩জিবি ও ৬৪জিবি হতে হবে। এর কম হলে বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে পারেন যেমন- লেখার সময় ফোন স্লো হয়ে যেতে পারে।

অনুচ্ছেদ সূচী (যে অংশ পড়তে চান তার উপর ক্লিক করুন)

  1. The DU Speech কী ? 
  2. পার্ট টাইম জব মূলত কী? কেমন? 
  3. পার্ট টাইম জবের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আবেদন করবে কীভাবে?
  4. পার্ট টাইম জবের জন্য সাধারণ মানুষ আবেদন করবে কীভাবে?
  5. কোন বিষয়ে লিখবেন?
  6. আবেদনের পর ট্রেইনিং করবেন কীভাবে?
  7. ট্রেইনিং এ কী কী শেখানো হবে?
  8. ট্রেইনিং এর টাস্ক জমা দিবেন কীভাবে?
  9. বেতন কত এবং কতটি আর্টিকেল লিখতে হবে?
  10. প্রেমেন্ট পাওয়ার উপায়
  11. কেমন সময় দিতে হবে?
  12. নীতিমালা কী কী?
  13. আমাদের উদ্দেশ্য

১. The DU Speech কী ? পার্ট টাইম জব 

মনে করুন আপনি জানেন , অনলাইনে কীভাবে আয় করা যায় এখন আপনি যদি উক্ত বিষয়ে লেখালেখি করে আয় করতে পারেন আপনার কেমন লাগবে? অবশ্যই ভালো লাগবে তাই না? ঢাকা   বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন The DU Speech যা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আর্টিকেল লেখা শেখায় এবং পার্ট টাইম জব  প্রদান করে থাকে। পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের শিক্ষার্থীদের আর্টিকেল লেখা শেখানো এবং পার্ট টাইম জব প্রদান করে থাকে.।
 এই সংগঠন সাধারণ শিক্ষার্থীদের SEO ভিত্তিক আর্টিকেল রাইটিং শেখানোর মাধ্যমে স্কিল ডেভোলপমেন্ট এবং পড়াশোনার পাশাপাশি আর্টিকেল লিখে পার্ট টাইম জব করে পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করতে সক্ষম হবে।
এই সংগঠনের সদস্যদের আর্টিকেল রাইটিং এবং পার্ট টাইম জব প্রদান করার পাশাপাশি যে কোন সমস্যায় সাহায্য প্রদান করে থাকে ।  অনেকে আছে যারা তাদের পড়াশোনার পাশাপাশি আর্টিকেল লেখায় দক্ষ্য বা আগ্রহী আমরা তাদের আর্টিকেল লেখা শেখাই। সর্বোপরি আমরা একটি পরিবারের মতো। পার্ট টাইম জব বা আর্টিকেল লেখা শিখতে আপনার আগ্রহ আমরা বিবেচনা করব। 

২. পার্ট টাইম জব মূলত কী ? কেমন? পার্ট টাইম জব

আমরা অনেক সময় বিভিন্ন বিষয়ে জানার জন্য গুগলে সার্চ করি উক্ত বিষয় লিখে । ধরুন আপনি বিদেশ যেতে চান কিন্তু বিদেশ যাওয়ার বিভিন্ন প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানেন না তখন আপনি হয়তো গুগলে এসে সার্চ করবেন "বিদেশ যাওয়ার উপায়" বা "বিদেশ যাওয়ার প্রক্রিয়া লিখে" এবং গুগলে যে তথ্য সমূহ পেয়ে থাকেন তা গুগলের নিজের নয় , উক্ত তথ্য  কাউকে না কাউকে ওয়েবসাইটে  লিখতে হয়। এবং এই লেখাটা এলোমেলো বা ইচ্ছেমতো লিখলে গুগলে সার্চ দেওয়ার পর গুগলে খুজে পাবেন না মানে সোজা কথায় কিছু নীতিমালা আছে যা না মেনে ইচ্ছেমতো লিখলে আপনার লেখা গুগলে র‍্যাংক করবে না। 
গুগলে র‍্যাংক না করলে উক্ত বিষয়ে কেউ সার্চ করলেও আপনার লেখা আর্টিকেল কেউ খুঁজে পাবে না অর্থাৎ,  পড়তেও পারবে না । তাই সহজ কথায় আপনাকে SEO শিখতে হবে। এবং আর্টিকেল লেখার সময় বা আর্টিকেল লেখার পার্ট টাইম জবের সময় SEO শেখাটা আবশ্যিক। আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের ক্ষেত্রে আপনি যতো ভালো মানের SEO শিখবেন পার্ট টাইম জবের ক্ষেত্রে আপনার চাহিদা ততই বেড়ে যাবে। 
তাই আমরা আগ্রহীদের শেখাই কীভাবে একটি আর্টিকেল গুগলে র‍্যাংক করে? কীভাবে লেখায় SEO করতে হয়?   কীভাবে একটি লেখা গুগলে সার্চ রেজাল্টে সামনে এগিয়ে থাকবে?  যারা পার্ট জব করতে আগ্রহী তাদের আমরা SEO এবং আর্টিকেল লেখার কিছু নিয়ম শেখাবো সেগুলো আয়ত্ত করতে পারলে তাকে আমরা নির্দিষ্ট টপিকে লিখতে দেব। 


৩. পার্ট টাইম জবের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আবেদন করবে কীভাবে? পার্ট টাইম জব 

আমাদের সংগঠন মূলত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন। আমাদের এই আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন এ যোগ দিতে চাইলে বা সদস্য হয়ে কাজ করতে চাইলে কিছু ধাপ আপনাকে অনুসরণ করতে হবে। 
  • রেজিস্ট্রেশন
  • কোর্স জামানত ফি
  • ট্রেনিং গ্রহণ
  • চারটি আর্টিকেল জমা দেওয়া
  • সার্টিফিকেট
  • জামানত ফি ব্যাক
  • পেইড রাইটার হিসেবে নিয়োগ

রেজিস্ট্রেশন|পার্ট টাইম জব

(অফলাইন রেজিস্ট্রেশন এখন বন্ধ)
আমাদের সংগঠনের সদস্য হতে প্রথমেই আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। আমাদের রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া অনলাইন এবং অফলাইন দুই মাধ্যমেই সম্পাদন করতে পারবেন। অফলাইনে করতে চাইলে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে আপনাকে একটা ফরম পূরণ করতে হবে এবং রেজিস্ট্রেশন ফি 100 টাকা প্রদান করতে হবে। আপনি যদি অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে চান, তাহলে নিচের ফর্মে গিয়ে সঠিক তথ্য প্রদান করে বিকাশ নম্বরে(01789699509) 105 টাকা সেন্ড মানি করবেন। এভাবে আপনি আপনার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবেন। আপনার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হলে আমরাই ৭২ ঘন্টার মধ্যে আপনার সাথে যোগাযোগ করব। কোন কারণে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হলে 01789699509 নম্বরে যোগাযোগ করবেন।

কোর্স জামানত ফি! পার্ট টাইম জব

আপনার রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হলে আপনাকে 01789699509 নম্বরে কোর্স জামানত ফি হিসেবে 500 টাকা প্রদান এবং কোর্স জামানত ফি এর ফরম পূরণ করতে হবে। সফলভাবে কোর্স সম্পন্ন করতে পারলে এই টাকা আপনাকে সম্পূর্ণ ফেরত দেওয়া হবে। আমরা মূলত এই টাকাটা জামানত হিসেবে নিয়ে থাকি সফলভাবে কোর্স সম্পন্ন করার উদ্দেশ্যে। এমন অনেকেই আছেন যারা ইতিপূর্বে কিছুদিন ক্লাস করার পর বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে কোর্স সম্পন্ন করেন নি তাই আমাদের এই প্রক্রিয়াটা অনুসরণ করতে হয়। কোর্স জামানত ফি প্রদানের পর আপনাকে নিচের এই ফরম পূরণ করতে হবে। কোর্স জামানত ফি প্রদান এবং ফরম পূরণ করার পর উক্ত নম্বরে আমাদের ফোন করে জানাবেন।

ট্রেইনিং গ্রহণ| পার্ট টাইম জব

রেজিস্ট্রেশন এবং কোর্স জামানত ফি প্রদান প্রক্রিয়া সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারলে আপনাকে আর্টিকেল রাইটিং এর উপর একটি কোর্স ট্রেনিং প্রদান করব আমরা। উক্ত ট্রেইনিং এ আপনাকে SEO (এসইও) সহ আর্টিকেল লেখার বিভিন্ন নিয়ম নীতি শেখানো হবে। আর্টিকেল রাইটিং এর বাইবেল খ্যাত এই ট্রেনিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক ভাবে মনোযোগ দিয়ে ট্রেনিং কমপ্লিট করতে পারলে আপনি ভালো মানের আর্টিকেল লিখতে পারবেন।  ১৫ দিনের মধ্যেই ট্রেইনিং সম্পূর্ণ করতে হবে অনেকে ২ দিনেই সম্পূর্ণ করে ফেলে যতদ্রুত সম্ভব শেষ করবেন। জামানত ফি প্রদানের ফরম পূরণ করার পরই ট্রেইনিং ভিডিও এর লিংক দেওয়া হবে। 

চারটি আর্টিকেল জমা দেওয়া | পার্ট টাইম জব

আপনার ট্রেনিং কম্পিলিট হলে আমরা আপনাকে চারটি টাইটেল প্রদান করব।  আপনারা সঠিকভাবে সমস্ত নিয়ম মেনে চারটি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার পর আপনার ট্রেনিং সফলভাবে শেষ হয়েছে বলে আমরা বিবেচনা করবো। চাকরি আর্টিকেল সকল নিয়ম কানুন মেনে জমা দিতে ব্যর্থ হলে কোর্স জামানত ফি ফেরত পাওয়ার জন্য আপনি অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। 

সার্টিফিকেট| পার্ট টাইম জব

আপনি সফলভাবে সকল নিয়ম কানুন মেনে চারটি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার পর আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করব। রেজিস্ট্রেশন,  কোর্স ফি, চারটি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়া এই প্রক্রিয়াগুলো সফলভাবে সম্পন্ন করার পর আপনাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন 'The DU Speech' থেকে সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। যা আপনার পরবর্তী কর্মক্ষেত্রে অভিজ্ঞতার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।




জামানত ফি ফেরত| পার্ট টাইম জব

সফলভাবে 4 টি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার পর আপনার ট্রেনিং সম্পন্ন হবে। ট্রেনিং সম্পূর্ণ হওয়ার পর আমাদের সংগঠন থেকে আপনাকে একটি সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। এরপূর্বে জমা দেওয়া কোর্স জামানত ফি 500 টাকা আপনাকে সার্টিফিকেট এর সাথে ফেরত দেওয়া হবে। 

পেইড রাইটার হিসেবে নিয়োগ| পার্ট টাইম জব

আপনি সফলভাবে কোর্স সম্পূর্ণ করতে পারলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন 'The DU Speech'  এর পক্ষ থেকে আপনাকে পেইড রাইটার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হবে। আমরা আপনাকে নির্দিষ্ট টপিক বা টাইটেল সিলেক্ট করে দেব এবং আপনি উক্ত টাইটেলে আর্টিকেল লেখার সমস্ত নিয়ম কানুন মেনে আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন।



৪. পার্ট টাইম জবের জন্য সাধারণ মানুষ আবেদন করবে কীভাবে? পার্ট টাইম জব

 যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নন কিন্তু আর্টিকেল লিখতে আগ্রহী তাদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই তাদের জন্যও লেখালেখি করে পার্ট টাইম জবের ব্যবস্থা রয়েছে। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মতো সমান সুযোগ-সুবিধা আপনারা পাবেন না। আর্টিকেল রাইটিং কোর্স ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রী হলেও সাধারণ শিক্ষার্থী বা সাধারণ জনগণের জন্য আর্টিকেল রাইটিং কোর্স ফ্রী নয়। পার্ট টাইম জবের জন্য আপনাকে বেশ কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে।
  • রেজিস্ট্রেশন
  • কোর্স  ফি
  • ট্রেনিং গ্রহণ
  • চারটি আর্টিকেল জমা দেওয়া
  • সার্টিফিকেট।।
  • পেইড রাইটার হিসেবে নিয়োগ

রেজিস্ট্রেশন

পার্ট টাইম আর্টিকেল রাইটিং জবের জন্য আপনাকে প্রথমেই রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। আজকের রাইটিং পার্ট টাইম জবের  রেজিস্ট্রেশন করার জন্য নিচে প্রদত্ত গুগোল ফর্মে নির্ধারিত তথ্য দিয়ে পূরণ করুন। গুগোল ফরম পূরণ করার পূর্বে (01789699509 - Baksh or Nagad) নম্বরে 102 টাকা সেন্ড মানি করবেন। এটা আমাদের রেজিস্ট্রেশন ফি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মতোই পার্ট টাইম জবের জন্য আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

কোর্স ফি 

আপনার রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হয়ে গেলে আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য আপনাকে 01789699509 (Bkash or Nagad) নম্বরে কোর্স ফি প্রদান করতে হবে ১০০০ টাকা। এটা আমাদের আর্টিকেল রাইটিং কোর্স ফি। কোর্স ফি পরিশোধ করার পর নিচের কোর্স ফি প্রদানের লিংকে গিয়ে সঠিক তথ্য দিয়ে গুগোল ফরমটি পূরণ করুন। কোর্স ফি পরিশোধ এবং সঠিকভাবে গুগোল ফর্ম পূরণ শেষে আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য আমরা আপনাদের সাথে যোগাযোগ করবো। এবং আমরা আপনাদেরকে ট্রেনিং ভিডিও এর লিঙ্ক পাঠাবো। 

ট্রেনিং গ্রহণ

আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য আমরা আপনাদেরকে একটি ট্রেইনিং প্রদান করব। উক্ত ট্রেনিং এ কিভাবে আর্টিকেল লিখতে হয় কিভাবে এসইও(SEO) শিখতে হয়? এবং এসইও (SEO) সেট আপ করতে হয়? অর্থাৎ আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য প্রয়োজনীয় সকল নিয়ম কানুন এই জন্যই ভিডিওতে আপনাদের শেখানো হবে। সঠিকভাবে রেজিস্ট্রেশন এবং কোর্স ফী জমা দেওয়ার কার্যক্রম শেষ করলে আমরাই আপনাদের সাথে যোগাযোগ করবো। এবং আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের ট্রেইনিং ভিডিও এর লিংক আপনাদের প্রদান করব।

4 টি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়া

ট্রেইনিং ভিডিও দেখা কমপ্লিট হয়ে গেলে আমরা আপনাদেরকে চারটি আর্টিকেল এর টাইটেল সিলেক্ট করে দেবো। উক্ত ৪টি আর্টিকেল ট্রেনিং ভিডিওতে দেখানো নিয়ম অনুযায়ী লিখে জমা দিতে হবে। এই চারটি আর্টিকেল আপনি যদি সঠিকভাবে জমা দেন তাহলে আমরা আপনাদেরকে পেইড রাইটার হিসেবে আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জব এ নিয়োগ প্রদান করব।

সার্টিফিকেট

সঠিকভাবে কোর্স কমপ্লিট করতে পারলে অর্থাৎ 4 টি আর্টিকেল লিখে জমা দিতে পারলে আমরা আপনাদেরকে আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জব এ নিয়োগ প্রদান করব। আপনি সফলভাবে এক মাস আমাদের সাথে কাজ করতে সক্ষম হলে আপনাকে অভিজ্ঞতার সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। 

পেইড রাইটার হিসেবে নিয়োগ

আজকের রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য আপনাকে মনোনীত করার পর আপনাকে দেই কিনা এটা হিসেবে আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়োগ দেওয়া হবে। প্রতিটি আর্টিকেল লেখার জন্য আপনি 50 টাকা থেকে শুরু করে 100 টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জব এর একটি আর্টিকেল লেখার  কত টাকা পাচ্ছেন তা নির্ভর করবে আপনার দক্ষতার উপর।


৫. কোন বিষয়ে লিখবেন? পার্ট টাইম জব

আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জব এ আপনাদের মূলত SEO ভিত্তিক আর্টিকেল লিখতে হয়। অর্থাৎ সাধারণ মানুষ যে সকল বিষয় লিখে গুগলে সার্চ করে আমাদের উক্ত টপিকে লিখতে হয়। আপনি কোন বিষয়ে লিখবেন তা আমরা নির্ধারণ করে দেবো। মনে করুন আপনি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে চান আপনি গুগলে লিখলেন 'ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার তথ্য' তাহলে আমরা এই টপিকে আর্টিকেল লিখব। অর্থাৎ সাধারণ মানুষ গুগলে যে সকল বিষয় লিখে সার্চ করে আমরা সেই সকল বিষয়ে আর্টিকেল লিখব।

৬. আবেদনের পর ট্রেইনিং করবেন কীভাবে? পার্ট টাইম জব

ট্রেইনিং কার্যক্রম আমরা অনলাইনে পরিচালনা করে থাকি। আপনি রেজিস্ট্রেশন এবং কোর্স ফি প্রদানের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করলে আমরা আপনাদের সাথে যোগাযোগ করে ট্রেনিং ভিডিও এর লিংক আপনাকে প্রদান করব। ১ মাসের মধ্যে ট্রেইনিং সম্পূর্ণ করতে হবে।  উক্ত ট্রেনিং ভিডিও এর লিঙ্ক এ প্রয়োজনীয় নিয়মকানুন শেখানোর বেশ কয়েকটি ভিডিও পাবেন আপনি উত্তর ভিডিও দেখে আর্টিকেল লেখা শিখবেন। আমরা আপনাকে ট্রেনিং ভিডিওর লিংক এবং চারটি আর্টিকেল এর টাইটেল প্রদান করব আপনাকে এক মাসের মধ্যে ট্রেনিং ভিডিও দেখে নিয়ম অনুযায়ী চারটি আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে।

সদস্য আহ্বান কত তারিখ পর্যন্ত চলবে? 

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ পর্যন্ত

কবে থেকে ট্রেনিং শুরু হবে?

 আমাদের সংগঠনের  অফিসিয়াল ট্রেনিং ২০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে।
এছাড়াও সারা বছর ব্যাপী আমাদের কার্যক্রম চলে।

অনলাইন নাকি অফলাইন?

অনলাইনে ট্রেনিং হবে। অনলাইনে প্রি-রেকর্ডেড ভিডিও এর মাধ্যমে ট্রেনিং চলবে। পাশাপাশি লাইভ জুম ক্লাসের মাধ্যমে যাচাই করা হবে কতটুকু কাজ শিখলেন? 
তবে চাইলে সপ্তাহে ১ দিন অফলাইন ক্লাস নেওয়া যাবে। আগ্রহের ভিত্তিতে।

 নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার পর আমরা আপনার আর্টিকেল রিভিউ করে দেখব আপনি নিয়ম অনুযায়ী আর্টিকেল লিখেছেন কিনা। আপনি নিয়ম অনুযায়ী আর্টিকেল না লিখলে আপনাকে আরো একদিন সময় দেওয়া হবে ভুলগুলো ঠিক করার জন্য। উক্ত সময়ের মধ্যে ভুল ঠিক না করলে আমাদের পক্ষ থেকে আর কিছু করার থাকবে না আপনি আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। এবং সঠিকভাবে চারটি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার পর আমরা আপনাকে আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য মনোনীত করব।

৭. ট্রেইনিং এ  কী কী শেখানো হবে? পার্ট টাইম জব

ট্রেইনিং এ মূলত SEO এবং আর্টিকেল লেখার বিভিন্ন নিয়ম কানুন শেখানো হয়ে থাকে;
  • SEO 
  • কি-ওয়ার্ড সেটআপ করার নিয়ম
  • টাইটেল লেখার নিয়ম
  • কাস্টম পার্মালিংক সেটআপ
  • লেবেল সেটআপ
  • ভূমিকা বাটন
  • ভূমিকা লেখার নিয়ম
  • এলাইনমেন্ট লেখার নিয়ম
  • থাম্বনেইল পিকচার এডিট ও এড করার নিয়ম
  • সূচিপত্র লেখার নিয়ম
  • শিরোনাম লেখার নিয়ম
  • আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন উত্তর লেখার নিয়ম
  • লেখক এর মন্তব্য লেখার নিয়ম

উপরের ছবিতে দেখতে পাচ্ছেন এমন ছোট ছোট ভিডিও এর মাধ্যমে ট্রেনিং প্রদান করা হবে। সর্বমোট প্রায় তিন ঘন্টার মত ট্রেনিং ভিডিও দেখতে হবে। 15 দিনের মধ্যে ট্রেনিং সম্পন্ন করার কথা থাকলেও  অনেকে দুই দিনের মধ্যেই ট্রেনিং সম্পূর্ণ করে থাকে । 

৮. ট্রেইনিং এর টাস্ক জমা দিবেন কীভাবে? পার্ট টাইম জব

আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য আপনাকে আমাদের ওয়েবসাইটে লেখক হিসেবে অ্যাড করার পার আপনি আমাদের ওয়েবসাইটে লেখালেখি করার এক্স এক্সসেস পেয়ে যাবেন। আপনি সকল নীতিমালা মেনে চারটি আর্টিকেল লেখার পর আমাদের 017896995090 নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করবেন নিম্নোক্ত পদ্ধতিতে।
'article submitted for review
আর্টিকেল এর টাইটেল
ওয়েব সাইটে প্রদত্ত  আপনার নাম'
উক্ত নিয়ম অনুযায়ী আমাদেরকে হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ করলে আমরা আপনার আর্টিকেল রিভিউ করে দেখব যে আপনি সফল নীতিমালা মেনে আর্টিকেল লিখেছেন কিনা! যদি আপনি নীতিমালা মেনে আর্টিকেল লিখেন তাহলে আপনাকে আমাদের ওয়েবসাইটে আর্টিকেল রাইটিং পার্ট টাইম জবের জন্য মনোনীত করা হবে।

৯. বেতন কত এবং কতটি আর্টিকেল লিখতে হবে? পার্ট টাইম জব

আপনার অভিজ্ঞতার ওপর বেতন নির্ভর করবে সাধারণত ৬৬.৬৬ টাকা থেকে শুরু হবে। অর্থাৎ প্রতিটি আর্টিকেল লেখার বিনিময় ৬৬.৬৬ টাকা পাবেন। সাধারণত এক মাসে আপনাকে ৬০ টি আর্টিকেল লিখে সাবমিট করতে হবে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে।  ৬০টি আর্টিকেল লেখা কমপ্লিট হলে 017896999509 নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করবেন নিম্নোক্ত পদ্ধতি অনুসরণ করে;

''60  article submitted for review'
আর্টিকেল এর টাইটেল
ওয়েব সাইটে প্রদত্ত আপনার নাম
বিকাশ|নগদ নম্বর'

উপরিউক্ত নিয়ম অনুযায়ী আমাদেরকে মেসেজ করা হলেই আমরা রিভিউ করে আপনার বিকাশ নাম্বারে 4,000 টাকা পাঠিয়ে দেবো।
পেমেন্ট দিতে দেরি হলে উক্ত নম্বরে কল করবেন।
অনেকে আছেন যারা ডিপার্টমেন্টের পড়াশোনা বা বিভিন্ন কাজে খুব বেশি ব্যস্ত থাকে তাদের জন্য- 
  • ৬০ টি আর্টিকেল - ৪,০০০ টাকা-এক মাসের মধ্যে
  • ৩০ টি আর্টিকেল- ২,০০০ টাকা-এক মাসের মধ্যে
  • ১৫ টি আর্টিকেল- ১,০০০ টাকা-এক মাসের মধ্যে


১০. প্রেমেন্ট পাওয়ার উপায়| পার্ট টাইম জব

আমরা মূলত আপনাকে বিকাশে অথবা নগদে প্রেমেন্ট করব।দশটি আর্টিকেল লেখা কমপ্লিট হলে 017896999509 নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করবেন নিম্নোক্ত পদ্ধতি অনুসরণ করে;

'60 article submitted for review'
আর্টিকেল এর টাইটেল
ওয়েব সাইটে প্রদত্ত আপনার নাম
বিকাশ|নগদ নম্বর'

উপরিউক্ত নিয়ম অনুযায়ী আমাদেরকে মেসেজ করা হলেই আমরা রিভিউ করে আপনার বিকাশ নাম্বারে 4000 টাকা পাঠিয়ে দেবো।

১১. কেমন সময় দিতে হবে?

একেকজনের ক্ষেত্রে একেক রকম সময় প্রয়োজন হয়। দ্রুত নিয়ম-কানুন রপ্ত করতে পারলে খুব দ্রুত লিখতে পারবেন। তবে প্রথম দিকে সময় একটু বেশি লাগবে। দক্ষতা অর্জন করলে খুব দ্রুত লেখা যায়। তবে গড়ে তিন থেকে চার ঘণ্টা সময় প্রয়োজন হবে।

১২. নীতিমালা কী কী?

  • একটি বাক্যও কপি করা যাবে না। তবে আইডিয়া কপি করা যাবে। মনে করুন কয়েকজন একটি সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর গাইড থেকে পড়েছেন শুধু ধারনা নেওয়ার জন্য। এখন পরীক্ষার খাতায় সবার উত্তর কিন্তু এক হলেও ভাষা সবারই আলাদা আলাদা হবে। বিষয়টি ঠিক এমনই। 
  •  আর্টিকেলের তথ্য গুগল এবং ইউটিউব থেকে সংগ্রহ করতে হবে। উক্ত বিষয়ে যদি নিজের অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে নিজের মতো করেও লেখা যাবে।
  • এক মাসে ৬০টি আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে।   
  • অসুস্থ্যতা/পরীক্ষা/অনান্য সমস্যায় পড়লে বাড়তি ১০ দিন সময় দেওয়া হবে অর্থাৎ, ৩০+১০=৪০ দিনের মধ্যে আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে। 
  • আমরা সময়ের ক্ষেত্রে খুবই সচেতন। আপনি দেরি করে জমা দিলে বা কোন অজুহাত দেখালে কোন কাজ হবে না। আপনাকে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে নতুবা  The DU Speech এর সিদ্ধান্ত আপনাকে মেনে নিতে হবে। 
  • কোন লেখা কপি পেলে এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আর্টিকেল জমা দিতে ব্যর্থ হলে সাথে সাথে আপনার জামানত ফি  এবং লেখক হওয়ার এক্সেস বাতিল হয়ে যাবে এবং আপনার বিরুদ্ধে আইনানুগ  ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  
  • প্রতিটি আর্টিকেল ন্যূনতম ১ হাজার শব্দের হতে হবে। তবে ট্রেনিং টাস্কের ৪ টি আর্টিকেল ৩ হাজার শব্দের লিখতে হবে।
  • আপনার লেখা প্রতিটি আর্টিকেল ফেসবুকসহ সকল সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে হবে। আপনার আর্টিকেল যেন অন্যরা পড়তে পারে।
  •  আমাদের নীতিমালা পরিবর্তনশীল। তাই লেখকদের নিয়মিত নীতিমালা চেক করতে হবে ।

১৩. আমাদের উদ্দেশ্য

আমরা চাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গুগলে অবদান রাখুক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে প্রতিটি পর্যায়ে বিশেষ অবদান রাখলেও গুগল এ তেমন উল্লেখযোগ্য কোনো অবদান রাখতে সক্ষম হয়নি। পাশা[আশি এই বড় একটি মেধাবী শ্রেণি টিউশন অনুসন্ধান করে টিউশন পায় না । আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য টিউশনের বিকল্প কর্মসংস্থান তৈরির প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। 
আমরা যখন আমাদের প্রয়োজন এর জন্য গুগলে বিভিন্ন বিষয় লিখে সার্চ করি, তখন অনেক সময় দেখা যায় আমরা সঠিক তথ্য না পেয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ঘোরাঘুরি করি। এতে গুগল ব্যবহারকারীরা অনেক বিড়ম্বনায় পড়েন। শিরোনাম থাকে একরকম কিন্তু ভেতরে তথ্য থাকে অন্যরকম। ঠিক এই বিড়ম্বনায় পড়েননি এমন কোনো মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাদের উদ্দেশ্য সঠিক তথ্য প্রদান করে আমরা গুগলকে সমৃদ্ধ করব।
 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের বিভিন্ন সেক্টরে যেমন গর্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে তেমনি গুগলে অবদান রাখবে।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

1 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

  1. আর্টিকেল লিখে আয় করার সুযোগ দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

    ReplyDelete

অর্ডিনারি আইটি কী?