The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/12/saudi-arab-to-america-visa.html

সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় ২০২৩ সম্পর্কে বিস্তারিত

সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় সম্পর্কে অনেকেই আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন। সেজন্য আজ আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করবো সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় নিয়ে। সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় সম্পর্কিত সকল তথ্য জানতে আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন। আজকের আর্টিকেলে এই সম্পর্কিত সকল তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হবে।

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. আমেরিকা ভিসা
  2. সৌদি আরব থেকে আমেরিকা ভিসা
  3. ভিসা ক্যাটাগরি
  4. আমেরিকা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা
  5. প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
  6. সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার আবেদন
  7. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর
  8. লেখকের মন্তব্য

১.আমেরিকা ভিসা | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

দেশ হিসেবে আমেরিকা অনেক ইতিহাস এবং ঐতিহ্য সমৃদ্ধ একটি দেশ।শুধুই কি তারা ইতিহাস এবং ঐতিহ্য সমৃদ্ধ?অর্থনীতিতেও তারা নিজেদেরকে করে তুলেছে অনন্য। অনেকগুলো যুদ্ধের মধ্য দিয়েই  সমৃদ্ধি অর্জন করেছে।কৃষি, শিল্প,প্রযুক্তি,অর্থনীতি সব দিকেই আমেরিকা উন্নত। আমেরিকার মানুষের জীবন-যাপন ও আয়-রোজগার খুবই উন্নত।এই জন্য অনেকেই আমেরিকা  পাড়ি জমানোর স্বপ্ন দেখে।

অন্যান্য দেশের মতো সৌদি আরব থেকেও মানুষ আধুনিক ও উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে আমেরিকা যাচ্ছে।অনেক সময় মানুষ সঠিক উপায় না বুঝেই এই স্বপ্ন পূরণ করতে বেরিয়ে পরেন।কেউ কেউ সফল হলেও আবার অনেকেই হচ্ছেন প্রতারিত।সঠিক এবং বৈধ উপায় অবলম্বন করলে সৌদি আরব থেকেও আমেরিকা যাওয়া সম্ভব।

২.সৌদি আরব থেকে আমেরিকা ভিসা | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যেতে হলে আপনি ‘ইমপ্লয়মেন্ট-বেজড’ (ইবি) সিরিজ এর সাহায্য নিতে পারেন । যারা আমেরিকায় স্থায়ীভাবে চাকরির ভিসা পেতে আগ্রহী তারা ইবি সিরিজের ১ থেকে ৫ পর্যন্ত ক্যাটাগরিগুলোতে আবেদন করতে পারবেন।

ইবি-১

এর মধ্যে কয়েকটি বিষয়কে প্রাধান্য দেয়া হয়। যেমন, কোনো বিষয়ে অসাধারণ দক্ষতা ও বিশেষ কোনো ক্ষেত্রে দক্ষতা। এছাড়াও গবেষণাক্ষেত্রে ভালো দক্ষতা থাকলে গবেষণা প্রতিষ্ঠানের চাকরির জন্য ভিসা পাওয়া যায়। তবে এসব ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট প্রমাণপত্র প্রয়োজন হয়।

ইবি-২

কোনো ব্যক্তির যদি কোনো ব্যতিক্রমী দক্ষতা বা উচ্চতর শিক্ষা থাকে তাহলে তিনি স্থায়ী চাকরির জন্য আবেদন করতে পারেন। এক্ষেত্রে আমেরিকার কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে দক্ষতার ভিত্তিতে আপনার কাছে চাকরির অফার লেটার থাকতে হবে।

ইবি-৩

এই ক্যাটাগরিতে দক্ষ কর্মী বা দক্ষ প্রফেশনাল ব্যক্তিরা ভিসা পেতে পারেন। তবে দক্ষতার বিষয়ে আমেরিকার কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরির অফার লেটার থাকতে হবে। কিন্তু এই বিষয়ে আমেরিকায় কর্মী পাওয়া সহজ কিনা বিষয়টি যাচাই করে নেবেন। কারণ এ বিষয়ে সেখানে দক্ষ জনবল থাকলে আপনি ভিসা পাবেন না।

ইবি-৪

বিশেষ অভিবাসীদের ভিসা দেয় আমেরিকা। দেশটির ‘ইমিগ্রেশন অ্যান্ড ন্যাশনালিটি অ্যাক্ট (আইএনএ) উল্লেখিত বিষয়গুলোতেই অভিবাসীরা স্থায়ীভাবে চাকরির ভিসা পেয়ে থাকে। এরমধ্যে রয়েছে- ন্যাটোর সাবেক কর্মী বা ন্যাটোর সাবেক কর্মীর স্পাউস, চিকিৎসক, স্বশস্ত্র বাহিনীর সদস্য, ইরাক ও আফগানিস্তানের ভাষা জানেন এবং ইংরেজি অনুবাদ করতে পারেন এমন ব্যক্তি, ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব বা কর্মী অন্যতম। আবার এর জন্য কোনো চাকরির অফার লেটার দরকার হয় না।

ইবি-৫

আপনার যদি আমেরিকা গিয়ে উদ্যোক্তা হবার মতো অর্থ থাকে তাহলে ভিসা পেতে পারেন। তবে এই ক্যাটাগরিতে আপনাকে ভিসা পেতে হলে সেখানে গিয়ে ব্যবসা শুরু করতে হবে এবং কমপক্ষে ১০ জন আমেরিকানকে চাকরি দেয়ার সামর্থ্য থাকতে হবে। এমনকি কমপক্ষে ৫ লাখ ডলার বা বাংলাদেশি টাকায় ৪ কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগ করতে হবে।

৩.ভিসা ক্যাটাগরি | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

উপরের ৫টি ক্যাটাগরিতে আপনার ভিসা পাওয়ার সুযোগ না থাকলেও আরো কয়েকটি সুযোগ আপনার জন্য রয়েছে। সেগুলো হলো-

কর্মসংস্থানভিত্তিক কাজের প্রস্তাব

আমেরিকার কোনো প্রতিষ্ঠান আপনাকে সেখানে কাজের সুযোগ দিয়ে যদি অফার লেটার পাঠান তাহলে আপনি ভিসা পেতে পারেন। এক্ষেত্রে ওই প্রতিষ্ঠানকে আগে দেশটির ‘ডিপার্টমেন্ট অব লেবার’ (ডিওএল) থেকে সার্টিফিকেট নিতে হবে এবং অভিবাসী শ্রমিক নিয়োগের অনুমতি চেয়ে আবেদন করতে হবে। এই ক্যাটাগরিতে আমেরিকা প্রতি বছর ১ লাখ ৪০ হাজার ভিসা দিয়ে থাকে।

পরিবার বা স্পাউস

আমেরিকায় যদি আপনার পরিবার বা আইনগতভাবে বৈধ সঙ্গীর নাগরিকত্ব থাকে তাহলে আপনি সহজেই ভিসা পেতে পারেন। আমেরিকার যেকোনো নাগরিক তার সঙ্গী বা পরিবারের সদস্যকে সেখানে নেয়ার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করতে পারেন।

আমেরিকান কোনো নাগরিকের সঙ্গে আপনার বাগদান হলেও আপনি সেখানে যাওয়ার অনুমতি পেতে পারেন। তবে বাগদান বৈধভাবে হতে হবে এবং বাগদানের পর অন্তত দুই বছর পার হতে হবে। এরপর আপনার যার সঙ্গে বাগদান হয়েছে তিনি আপনাকে আমেরিকা নেয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রথমবার আপনি কমপক্ষে ৯০ দিনের ভিসা পাবেন।

পড়াশোনা

পড়াশোনার জন্য আপনি আমেরিকার ভিসা পেতে পারেন। তবে এই প্রক্রিয়ায় আপনি সেখানে থাকার স্থায়ী অনুমতি পাবেন না। তবে পড়াশোনার সময়ে আপনি আপনার সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো প্রতিষ্ঠানের চাকরির প্রস্তাব পেলে ফিরে এসে আবার যেতে পারেন।

৪.আমেরিকা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

আমেরিকায় গিয়ে যারা শ্রমিক হিসেবে কাজ করবে তাদের ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিতে হবে। আমাদের দেশ থেকে অসংখ্য মানুষ আমেরিকা কাজ করার জন্য যায়। আপনিও যদি আমেরিকা কাজ করার জন্য যান তাহলে আমেরিকা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা করতে হবে। 

বর্তমান সময়ে আমেরিকা কাজের ভিসা  চালু করা হয়েছে। কিন্তু আমেরিকা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে আমাদের দেশে অনেক দালাল সংস্থা চটকদার বিজ্ঞাপন দিচ্ছে। আপনাকে এরকম চটকদার বিজ্ঞাপন থেকে বিরত থাকতে হবে। আমেরিকা যাওয়ার জন্য আপনাকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। 

আমেরিকা যাওয়ার জন্য আপনার প্রথম করণীয় হল ইংরেজি ভাষায় দক্ষ হওয়া। আপনি যদি ইংরেজি ভাষায় ভালো কথা বলতে পারেন। আপনার যদি ইংরেজি ভাষায় কোয়ালিফিকেশন অনেক ভালো থাকে। তাহলে খুব অল্প দিনে আপনি আমেরিকান ভিসা পেয়ে যাবেন। 

৫.প্রয়োজনীয় কাগজপত্র | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

সৌদি আরব থেকে আমেরিকার ভিসা পেতে হলে আপনাকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র সংগ্রহ করতে হবে। কাগজপত্র গুলো  নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো।
  • লিগেল ডিজিটাল পাসপোর্ট।
  • পাসপোর্ট সাইজ এর সদ্য তোলা রঙিন ছবি।
  • দেশী নাগরিকত্ব সনদপত্র।
  • কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন এর ডোসের ফর্ম।
  • যে স্পনসর করছে তার আকামার কপি।
  • জন্ম নিবন্ধন পত্র।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  • মেডিকেল ফিটনেস এর ত্যায়িত কাগজ পত্র। 
  • লিগেল আইডেন্টিটি ডকুমেন্টস। 
  • ব্যাংক এর পেপার সমুহ


৬. সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার আবেদন | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

এবার আসা যাক সৌদি আরব থেকে আমেরিকা কিভাবে যাবেন। সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ এর অনেক এজেন্সি রয়েছে। সেগুলোর মাধ্যমে আপনারা যেতে পারবেন। অথবা ইন্ডিয়ান অনেক কোম্পানি রয়েছে। পাশাপাশি শ্রীলংকা এবং মালদ্বীপের অনেক কোম্পানি রয়েছে‌ যেগুলোর মাধ্যমে আপনারা সৌদি আরব থেকে আমেরিকা বিভিন্ন কোম্পানিতে যেতে পারবেন ।অথবা সৌদি আরবের দূতাবাস থেকেও আপনারা আমেরিকা ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে অবশ্যই এই সমস্ত জায়গায় আবেদন করতে হলে উপরের দেওয়া রিকোয়ারমেন্ট গুলো আপনার অবশ্যই থাকতে হবে।

৭. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

প্রশ্ন ১: সৌদি আরব থেকে কি আমেরিকা যাওয়া যাচ্ছে?

উত্তর:সৌদি আরব থেকেও মানুষ আধুনিক ও উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে আমেরিকা যাচ্ছে।

প্রশ্ন ২:পড়াশোনার জন্য কি আমেরিকার ভিসা  পাওয়া যাবে?

উত্তর:পড়াশোনার জন্য আপনি আমেরিকার ভিসা পেতে পারেন।

৮. লেখকের মন্তব্য | সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়

সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় নিয়ে আজ আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করলাম। আশা করছি সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় সম্পর্কে সকল কিছু বুঝতে পেরেছেন এবং ভালো একটি ধারণা লাভ করেছেন। সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায় নিয়ে আপনাদের যদি কোন প্রশ্ন থাকে সেটি আমাদেরকে অবশ্যই জানাবেন। তাছাড়াও এই সম্পর্কে আপনার কি মতামত সেটি আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। যে কোন বিষয়ে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন।THE DU SPEECH এর পাশে থাকবেন।
আর্টিকেলটি লিখেছেন: নুসরাত জাহান হিভা 
পড়াশোনা করছেন: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় 
লেখকের জেলার নাম: কুমিল্লা



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?