The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/12/japan-work-visa.html

জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন।


এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ জাপান যেখানে মোটামুটি সব ধরনের ভিসারই ব্যাপক চাহিদাই রয়েছে।তবে এর মধ্যে বিশেষকরে করোনার পরবর্তী সময়ে  কাজের ভিসার চাহিদা তুলনামূলক বৃদ্ধি পেয়েছে।সুতরাং আমরা অনেকেই জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ সম্পর্কে জানতে আগ্রহী।বর্তমান প্রযুক্তির যুগে ঘরে বসেই জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ এ সম্পর্কে সকল তথ্য জানা সম্ভব। ঢাকা বিশববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ সম্পর্কে । তাই জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের আর্টিকেলটি স্কিপ না করে সম্পূর্ণ পড়ুন।



আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. জাপান কাজের ভিসা
  2. জাপানে কাজের ভিসার মেয়াদ
  3. জাপানে কাজের বেতন
  4. জাপানে কাজের ভিসার আবেদন প্রক্রিয়া
  5. জাপানী ভাষা শিক্ষা কেন্দ্র
  6. জাপানে কোন কাজের চাহিদা বেশি
  7. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর
  8. লেখকের মন্তব্য

১.জাপান কাজের ভিসা|জাপান কাজের ভিসা ২০২৩

জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ এসে এর চাহিদা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে । সরকারিভাবে কাজের ভিসাতে জাপান যেতে আপনার কোনো খরচ লাগবে না । সম্পূর্ণ খরচ বহন করবে নিয়োগকারী ।তবে এক্ষেত্রে আপনাকে তাদের নির্ধারিত বিষয়ে নির্বাচিত হতে হবে। যারা নির্বাচিত হবে তাদের কে পুরো চার মাস ব্যাপী জাপানী ভাষা ও সংস্কৃতি সম্পর্কে ট্রেনিং দিয়ে থাকবে।জাপান সরকার তাদের অভিবাসন নীতি অনুযায়ী একজন কর্মীকে তারা উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করে থাকবে।

জাপানে কাজের ভিসা তে যেতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই তাদের নীতি অনুযায়ী ৪ মাস ব্যাপী ট্রেনিং কোর্স সম্পূর্ণ করতে হবে। এবং কর্মীর শারীরিক গঠন ও যোগ্যতা উভয় ঠিক থাকা লাগবে। ট্রেনিং কোর্সের সকল উত্তর  ঠিকঠাক মত দিতে হবে তাহলেই আপনি ভিসার জন্য নির্বাচিত বা গণ্য হবেন।তবে আপনাকে অবশ্যই নূন্যতম এইচএসসি বা সমমান পাশ থাকতে হবে। তাহলে আপনি সরকারি ভাবে জাপানে কাজের ভিসা পাবেন।

২. জাপানে কাজের ভিসার মেয়াদ|জাপান কাজের ভিসা ২০২৩

জাপানে বিভিন্ন ধরনের ভিসা রয়েছে যার মেয়াদ ও ভিন্ন ভিন্ন।অনেকেই জাপানে কাজের ভিসার মেয়াদ কেমন এবিষয়ে জানতে চায়। এই অংশে আলোচনা করবো জাপানের কাজের ভিসার মেয়াদ নিয়ে।

জাপান প্রথমত পাঁচ বছর মেয়াদী ওয়ার্ক ভিসা প্রদান করে থাকে।পরবর্তীতে আপনাকে কোম্পানির মাধ্যমে নিজের যোগ্যতায় সে ভিসা রিনিউ কে নিতে হবে। তবে আরেকটি বিষয় বলে রাখি যারা সাধারণত কাজের ভিসায় জাপান যায় তারা পরবর্তীতে জাপানে পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি কিংবা সিটিজেনশীপ এর জন্য আবেদন করতে পারবে না ।

৩. জাপানে কাজের বেতন|জাপান কাজের ভিসা ২০২৩

জাপানে তাদের নিজস্ব  শ্রম আইন অনুযায়ী দেখা যায় একজন শ্রমিকের বেতন ন্যূনতম ঘণ্টায় বাংলাদেশি টাকায় ৭০০ টাকা। এছাড়া শ্রমিকরা দিনে প্রায় ৮ ঘণ্টা পরিমাণ কাজ করতে পারবে। সুতরাং সে হিসাব অনুযায়ী মাসে প্রায় ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা করে পাবে একজন শ্রমিক । তবে দেখা যায় কিছু কিছু ক্ষেত্রে সপ্তাহে প্রায় ৪৪ ঘণ্টার মতো কাজ করার সীমাবদ্ধতা রয়েছে।

৪. জাপানে কাজের ভিসার আবেদন প্রক্রিয়া|জাপান কাজের ভিসা ২০২৩

জাপান কাজের ভিসার জন্য যা যা প্রয়োজন:
  • প্রার্থীকে অবশ্যই নূন্যতম এসএসসি বা সমমান পাশ করতে হবে।
  • বয়স হতে হবে কমপক্ষে ১৮-৩০ মধ্যে।
  • জাপানী ভাষা দক্ষতা N4 লেভেল কমপ্লিট করতে হবে। যেসব প্রার্থীরা ওয়ার্কার ভিসার মাধ্যমে জাপান যেতে চান অবশ্যই N4 লেভেল ল্যাংগুয়েজ সম্পন্ন করতে হবে তাদের কে।এরপর আপনি কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।
  • জাপান তাদের চৌদ্দটা সেক্টরে কাজের ভিসার জন্য তারা লোক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর এই জন্য আবেদনকারীদের ল্যাঙ্গুয়েজ ভালো করে জানা অনেক জরুরী।
  • কাজের ভিসায় মূলত নিম্ন মানের কাজ দিয়ে থাকে তাই সবাইকে সবধরনের কাজ করার মানসিকতা থাকতে হবে। 
  • এছাড়াও এখানে প্রাইভেট ভাবে যাওয়ার কোনোরূপ সুযোগ নাই। তাই বাংলাদেশ সরকারের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।
  • যেই কাজের জন্য আবেদন করবে তার ওপর বিশেষ ট্রেনিং থাকতে হবে।
  • এছড়াও নির্বাচিতদের কে ৪মাস ব্যাপী জাপানী ভাষা শিক্ষা ও সংস্কৃতি নিয়ে ট্রেনিং কোর্স করানো হবে।সুতরাং সেটি সফল ভাবে সম্পূর্ণ করতে হবে।

৫. জাপানী ভাষা শিক্ষা কেন্দ্র|জাপান কাজের ভিসা ২০২৩

যেকোনো কেউই  জাপান যেতে চাইলে কিংবা বিভিন্ন কাজে জাপানি ভাষা শিক্ষার প্রয়োজন হয়। আর এসব প্রয়োজনের কারনেই জাপানী ভাষা শিক্ষা টা খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়ে। আমরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কিংবা কোচিং সেন্টার বা অনলাইনে জাপানী ভাষা শিখতে পারি। নিচে কিছু প্রয়োজনীয় উপায় আলোচনা করা হলো -
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট: এখন থেকে জাপানি ভাষা শিক্ষার কোর্স করা যায়। তুলনামূলক আই এম এল এর এই কোর্সের মাধ্যমে খুব সহজভাবে জাপানি ভাষা শিক্ষা দিয়ে থাকে। এখানে মূলত চারটি কোর্স ভাষা শিখানো হয়ে থাকে।জুনিয়র কোর্স ,সিনিয়র কোর্স ,ডিপ্লোমা কোর্স এবং উচ্চতর ডিপ্লোমা কোর্স।আর এসব কোর্সগুলোর মেয়াদ আনুমানিক এক বছর করে (১২০ ঘন্টা) নিয়ে থাকে।
  • বাংলাদেশ জাপান ট্রেনিং ইনস্টিটিউট ( বিজেটিআই): জাপানি ভাষা শিখার জন্য অন্যতম আরেকটি নির্ভরযোগ্য স্থান হলো বিজেটিআই। এই প্রতিষ্ঠানটি অবস্থিত আছে বাংলাদেশের সোনারগাও রোডের ইস্টার্ন প্লাজায়। অভিজ্ঞ শিক্ষকদের খুব যত্ন সহকারে শিক্ষার্থীদের মাঝে জাপানি ভাষা শিখার উপায় বেক্ত করে থাকে।

৬. জাপানে কোন কাজের চাহিদা বেশি|জাপান কাজের ভিসা ২০২৩

এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ জাপান এমন একটি দেশ যেখানে বলা যায় সব ধরনের কাজেরই কমবেশ চাহিদা রয়েছে । তবে এদের মধ্যে যেসব কাজের চাহিদা বর্তমানে দিন দিন বাড়ছে সেগুলো নিচে আলোচনা করা হলো -
  • ক্লিনিং পদে- জাপানে বর্তমান তাদের কাজের ওয়েবসাইট গুলোতে ক্লিনিং পদে চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এরমধ্যে বর্তমানে হোটেল রেস্টুরেন্ট ক্লিনিং পদে কাজের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর জন্য আপনাকে কাজের অভিজ্ঞতা ও আপনার সিভি জমা দিতে হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে কাজ পেয়ে যাবেন ।
  • মেকানিক্যাল ও ড্রাইভিং - ক্লিনিং এসব কাজ ছাড়াও বর্তমানে মেকানিক্যাল ও ড্রাইভিং কাজের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে জাপানে। জাপানে প্রতিনিয়ত এসব কাজের গুরুত্ব বাড়ছে। এসব কাজের বেতন ও তুলনামূলক বেশি। 

৭. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর 

প্রশ্ন ১: জাপান কাজের ভিসার জন্য কি IELTS লাগে?

উত্তর: না।

প্রশ্ন ২: জাপানে কোন ধরনের কাজের চাহিদা বেশি ?

উত্তর: জাপানে শপিং মল,হোটেল বা  রেস্টুরেন্ট ক্লিনিং,ড্রাইভিং , মেকানিক্যাল এসব কাজের চাহিদা বেশি।

প্রশ্ন ৩: জাপান যেতে বয়স কত লাগে ?

উত্তর: সর্বনিম্ন ১৮ থেকে সর্বোচ্চ ৩০ বছর।

প্রশ্ন ৪: জাপানে জীবনযাত্রার ব্যয় কেমন?

উত্তর: তুলনামূলক একটু বেশি ।

৮. লেখকের মন্তব্য

প্রিয় পাঠক, আজকে আমরা আপনাদের সাথে জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।জাপান কাজের ভিসা ২০২৩ এ সম্পর্কে বা যেকোনো বিষয়ে আপনাদের কোনো অভিযোগ বা মতামত নিচের কমেন্ট বক্সে লিখে জানাবেন। ঢাকা বিশববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন The DU Speech এর সাথেই থাকবেন।জাপান কাজের ভিসা ২০২৩  এ সম্পর্কে হোক বা যেকোনো বিষয়ে আমরা আপনাদের মতামতকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করবো।


লেখক: খাদিজা খা
পড়াশোনা করছেন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় 
জেলা: শরিয়তপুর



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?