The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/12/poem-speech-buddhijibi.html

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতা | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য

১৪ই  ডিসেম্বর আজকের এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী পরাজয়ের ঠিক দুইদিন পূর্বে বাঙ্গালীদের মেধাশূন্য করার জন্য বুদ্ধিজীবীদের নির্মমভাবে হত্যা করে। তাই এই দিন আমরা শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস হিসেবে পালন করি। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতার মাধ্যমে আমরা তাদের প্রতি আবেগ ও ভালোবাসা প্রদর্শন করি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের আজকের আর্টিকেলে আমরা শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এর কবিতা আপনাদের সাথে শেয়ার করব। পাশাপাশি শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য নিয়ে অনেকেই ধারণা পেতে চান তাদেরকেও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য সম্পর্কে ধারণা প্রদান করব। 

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতা
  2. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য
  3. শহীদ বুদ্ধিজীবী কারা?
  4. ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস রচনা
  5. ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের ছবি
  6. শহীদ বুদ্ধিজীবী কতজন?
  7. শহীদ বুদ্ধিজীবী তালিকা
  8. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস সম্পর্কে কিছু কথা
  9. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এর স্টাটাস
  10. লেখকের মন্তব্য

১. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতা | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য 

১ম কবিতা
তোমরা রয়েছ হৃদয়ে 
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
বাংলা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় 

ঠিক বিজয়ের দাঁড়প্রান্তে দাঁড়িয়ে 
ঐ দোয়েল পাখিটাও অপেক্ষমাণ। 
শীতের কুয়াশাকে অতিক্রম করে
একটি রাত দ্রুত পোহাতে চেয়েছিলো।
ঐ ফুটপাতের ছেলেটাও মুখিয়ে ছিলো 
একটি বিজয়ের জন্য।
নিশ্চিত পরাজয় যেনেও ঐ একদল দেশীয় ঘাতকেরা 
আমার সূর্য সন্তানদের ডেকে নিয়ে গিয়ে কাপুরুষোচিত বর্বরভাবে হত্যা করল। 
তবুও প্রতিটি বাঙালি দেখো আজকের এই দিনে
শ্রদ্ধাভরে তোমাদের স্মরণ করছে।
তোমাদের দেখানো পথে
আজ বাংলাদেশের উন্নয়ন চলছে।
এই শহরের প্রতিটি কাকও স্বাক্ষ্য দেবে
আমরা পিছিনে নেই।

২য় কবিতা
স্যার বলে ডাক!
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
বাংলা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঠক! ঠক! ঠক! 
স্যার একটু বাইরে আসেন!
অতঃপর রচিত হলো 
বাঙালির সবচেয়ে 
কলঙ্কজনক এক অধ্যায়ের।
পিছিয়ে গেল বাঙালিদের 
উন্নতির একশ বছর।

২. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতা

যে সংকটময় সময়ে আমরা স্বাধীনতার স্বাদ পেলাম,  নতুন করে বাঁচার স্বপ্নকে সার্থক করলাম, নতুনভাবে বিশ্বকে জানান দিলাম, একটা ইতিহাস রচনা করলাম ঠিক সে সময়ে ঠিক সে সময়ের এক মুহূর্ত পূর্বে ঘটে গেল জাতীর সবচেয়ে নির্মম,  জাতীর সবচেয়ে করুন একট অবিস্মরণীয় একটি অধ্যায়। যে অধ্যায়কে প্রতিটি বাঙালি অতিক্রম করবে অশ্রুধারায়। 
এই অধ্যায়ের কাছে চাইলেই আগ্রহে আসা যায় না। বুক ফেটে কান্না আসে। চাইলেও চোখের টলমলে নদীকে আটকানো যায় না। ১৪ সংখ্যাটিকে মনে করা যায় না। ওদিকে তাকালেই একদল বুনো পশুদের মুখে থুতু দিতে ইচ্ছে করে ইচ্ছে করে ওদেরকে আবার পাতালপুরিতে পাঠাই। 
১৬ পর্যন্ত যাওয়ার আগে ইচ্ছে করে ১৪ নামক সংখ্যাটিকে আর না পড়তে। এই ১৪ তে যে রক্তমাখা নামগুলি আসে তা আর পড়তে ইচ্ছে করে না। 
ভালো থাকুক জাতীর ঐ সূর্য সন্তানরা। উপরওয়ালা তাঁদের জান্নাতুন ফেরদাউস নসিব করুন।

৩. শহীদ বুদ্ধিজীবী কারা? শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ১৬ ডিসেম্বরে স্বাধীন হওয়ার পূর্বেই পরিকল্পিতভাবে পাকিস্থানী হানাদার বাহিনি ও এদেশীয় রাজাকার, আলবদর ও আল-শামস বাহিনির সহায়তায় এদেশের সূর্য সন্তান অর্থ্যাৎ শিক্ষক, গবেষক, সাংবাদিক, কবি, সাহিত্যিক, রাজনীতিবিদ ও ডাক্তারদের হত্যা করা হয়। এদেরকেই শহীদ বুদ্ধিজীবী হিসেবে গণ্য করা হয়।

৪.  ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস রচনা | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

যে সংকটময় সময়ে আমরা স্বাধীনতার স্বাদ পেলাম,  নতুন করে বাঁচার স্বপ্নকে সার্থক করলাম, নতুনভাবে বিশ্বকে জানান দিলাম, একটা ইতিহাস রচনা করলাম ঠিক সে সময়ে ঠিক সে সময়ের এক মুহূর্ত পূর্বে ঘটে গেল জাতীর সবচেয়ে নির্মম,  জাতীর সবচেয়ে করুন একট অবিস্মরণীয় একটি অধ্যায়। যে অধ্যায়কে প্রতিটি বাঙালি অতিক্রম করবে অশ্রুধারায়। 
এই অধ্যায়ের কাছে চাইলেই আগ্রহে আসা যায় না। বুক ফেটে কান্না আসে। চাইলেও চোখের টলমলে নদীকে আটকানো যায় না। ১৪ সংখ্যাটিকে মনে করা যায় না। ওদিকে তাকালেই একদল বুনো পশুদের মুখে থুতু দিতে ইচ্ছে করে ইচ্ছে করে ওদেরকে আবার পাতালপুরিতে পাঠাই। 
১৬ পর্যন্ত যাওয়ার আগে ইচ্ছে করে ১৪ নামক সংখ্যাটিকে আর না পড়তে। এই ১৪ তে যে রক্তমাখা নামগুলি আসে তা আর পড়তে ইচ্ছে করে না। 
ভালো থাকুক জাতীর ঐ সূর্য সন্তানরা। 

৫. ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের ছবি | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

এখানে কিছু শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের ছবি তুলে ধরা হলো;

৬. শহীদ বুদ্ধিজীবী কতজন? শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে অনেক আলোচনা বা সমালোচনা থাকলেও এদের প্রকৃত সংখ্যা সঠিক ভাবে নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। তবে সর্বজন স্বীকৃত শহীদ বুদ্ধিজীবীদের যে তালিকা পাওয়া যায় সেটা অনুযায়ী;
শিক্ষাবিদ  : ৯৯১ জন
সাংবাদিক : ১৩ জন
চিকিৎসক : ৪৯ জন
আইনজীবী: ৪২ জন
অন্যান্য     : ১৬ জন
সর্বমোট    : ১১১১ জন 

৭. শহীদ বুদ্ধিজীবী তালিকা | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

বুদ্ধিজীবীদের যে তালিকা পাওয়া যায় সেটা অনুযায়ী;
শিক্ষাবিদ  : ৯৯১ জন
সাংবাদিক : ১৩ জন
চিকিৎসক : ৪৯ জন
আইনজীবী: ৪২ জন
অন্যান্য     : ১৬ জন
সর্বমোট    : ১১১১ জন 

৮. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস সম্পর্কে কিছু কথা | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

যে সংকটময় সময়ে আমরা স্বাধীনতার স্বাদ পেলাম, নতুন করে বাঁচার স্বপ্নকে সার্থক করলাম, নতুনভাবে বিশ্বকে জানান দিলাম, একটা ইতিহাস রচনা করলাম ঠিক সে সময়ে ঠিক সে সময়ের এক মুহূর্ত পূর্বে ঘটে গেল জাতীর সবচেয়ে নির্মম, জাতীর সবচেয়ে করুন একট অবিস্মরণীয় একটি অধ্যায়। যে অধ্যায়কে প্রতিটি বাঙালি অতিক্রম করবে অশ্রুধারায়। 
এই অধ্যায়ের কাছে চাইলেই আগ্রহে আসা যায় না। বুক ফেটে কান্না আসে। চাইলেও চোখের টলমলে নদীকে আটকানো যায় না। ১৪ সংখ্যাটিকে মনে করা যায় না। ওদিকে তাকালেই একদল বুনো পশুদের মুখে থুতু দিতে ইচ্ছে করে ইচ্ছে করে ওদেরকে আবার পাতালপুরিতে পাঠাই। 
১৬ পর্যন্ত যাওয়ার আগে ইচ্ছে করে ১৪ নামক সংখ্যাটিকে আর না পড়তে। এই ১৪ তে যে রক্তমাখা নামগুলি আসে তা আর পড়তে ইচ্ছে করে না। 
ভালো থাকুক জাতীর ঐ সূর্য সন্তানরা। 

৯. শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এর স্ট্যাটাস| শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

স্ট্যাটাস ১: 
ঠিক বিজয়ের দাঁড়প্রান্তে দাঁড়িয়ে 
ঐ দোয়েল পাখিটাও অপেক্ষমাণ। 
শীতের কুয়াশাকে অতিক্রম করে
একটি রাত দ্রুত পোহাতে চেয়েছিলো।
ঐ ফুটপাতের ছেলেটাও মুখিয়ে ছিলো 
একটি বিজয়ের জন্য।
নিশ্চিত পরাজয় যেনেও ঐ একদল দেশীয় ঘাতকেরা 
আমার সূর্য সন্তানদের ডেকে নিয়ে গিয়ে কাপুরুষোচিত বর্বরভাবে হত্যা করল। 

স্ট্যাটাস ২: 
ঠক! ঠক! ঠক! 
স্যার একটু বাইরে আসেন!
অতঃপর রচিত হলো 
বাঙালির সবচেয়ে 
কলঙ্কজনক এক অধ্যায়ের।
পিছিয়ে গেল বাঙালিদের 
উন্নতির একশ বছর।

স্ট্যাটাস ৩:
এই অধ্যায়ের কাছে চাইলেই আগ্রহে আসা যায় না। বুক ফেটে কান্না আসে। চাইলেও চোখের টলমলে নদীকে আটকানো যায় না। ১৪ সংখ্যাটিকে মনে করা যায় না। ওদিকে তাকালেই একদল বুনো পশুদের মুখে থুতু দিতে ইচ্ছে করে

১০. লেখকের মন্তব্য | শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য ও কবিতা

আজকের আর্টিকেলটি সাজিয়েছি শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতা ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য নিয়ে। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কবিতা ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বক্তব্য নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়তো আপনারা পছন্দ করবেন। যে কোন তথ্য জানার জন্য নিচের কমেন্ট সেকশনে কমেন্ট করবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন আপনাদের মন্তব্যকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করবে।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও লেখক
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?