The DU Speech https://www.duspeech.com/2023/01/first-and-second-world-war.html

প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে অনেকেই জানতে আগ্রহী। তাই আজকে আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করব প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ নিয়ে। প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে জানতে আজকের আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ুন। আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ার মাধ্যমে প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে ভালো একটি ধারণা লাভ করতে পারবেন।

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. প্রথম বিশ্বযুদ্ধ
  2. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ
  3. প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময়কাল
  4. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কাল
  5. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ
  6. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয় যেভাবে
  7. লেখকের মন্তব্য

১.প্রথম বিশ্বযুদ্ধ | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ বিশ্বযুদ্ধ -১, বা মহাযুুুুদ্ধ হিসাবে পরিচিত, একটি বৈশ্বিক যুদ্ধ যা ১৯১৪ সালের ২৮ জুলাই ইউরোপে শুরু হয় এবং ১১ নভেম্বর ১৯১৮ পর্যন্ত স্থায়ী ছিল। ৬ কোটি ইউরোপীয়সহ আরো ৭ কোটি সামরিক বাহিনীর সদস্য ইতিহাসের অন্যতম বৃহত্তম এই যুদ্ধে একত্রিত হয়। এটি ছিল ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ সংঘাতের একটি এবং এর ফলে পরবর্তী সময়ে এর সাথে যুক্ত দেশগুলোর রাজনীতিতে বিরাট পরিবর্তন হয়। অনেক দেশে এটি বিপ্লবেরও সূচনা করে।

১৯১৪ সালের ১৮ জুন বসনিরাজধানী সারায়েভো শহরে অস্ট্রিয়ার যুবরাজ আর্চডিউক ফ্রাঞ্জ ফার্ডিনান্ড এক সার্বের গুলিতে নিহত হন। অস্ট্রিয়া-হাঙ্গেরি এই হত্যাকাণ্ডের জন্য সার্বিয়াকে দায়ী করে এবং ওই বছরের ২৮ জুলাই সার্বিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে। এ যুদ্ধে দু'দেশের বন্ধু রাষ্ট্রগুলো ধীরে ধীরে জড়িয়ে পড়ে। এতে যোগ দিয়েছিল সে সময়ের অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী সকল দেশ। এভাবে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের (১৯১৪-১৯১৮) সূচনা হয়। তবে অস্ট্রিয়ার যুবরাজের হত্যাকাণ্ডই প্রথম বিশ্বযুদ্ধের একমাত্র কারণ ছিল না। উনিশ শতকে শিল্পে বিপ্লবের কারণে সহজে কাঁচামাল সংগ্রহ এবং তৈরি পণ্য বিক্রির জন্য উপনিবেশ স্থাপনে প্রতিযোগিতা এবং আগের দ্বন্দ্ব-সংঘাত ইত্যাদিও প্রথম বিশ্ব যুদ্ধের কারণ। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে একপক্ষে ছিল উসমানীয় সাম্রাজ্য, অস্ট্রিয়া-হাঙ্গেরি, জার্মানি ও বুলগেরিয়া। যাদের বলা হতো কেন্দ্রীয় শক্তি। আর অপরপক্ষে ছিল সার্বিয়া, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জাপান, ইতালি, রুমানিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যাদের বলা হতো মিত্রশক্তি।

২.দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ মানবসভ্যতার ইতিহাসে এ যাবৎকাল পর্যন্ত সংঘটিত সর্ববৃহৎ এবং সবচেয়ে ভয়াবহ যুদ্ধ। ১৯৩৯ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল, এই ছয় বছর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়সীমা ধরা হলেও ১৯৩৯ সালের আগে এশিয়ায় সংগঠিত কয়েকটি সংঘর্ষকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অংশ হিসেবে গণ্য করা হয়।

তৎকালীন বিশ্বে সকল পরাশক্তি এবং বেশিরভাগ রাষ্ট্রই এই যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে এবং দুইটি বিপরীত সামরিক জোটের সৃষ্টি হয়; মিত্রশক্তি আর অক্ষশক্তি। এই মহাসমরকে ইতিহাসের সবচেয়ে বিস্তৃত যুদ্ধ বলে ধরা হয়, যাতে ৩০টি দেশের সব মিলিয়ে ১০ কোটিরও বেশি সামরিক সদস্য অংশগ্রহণ করে। অংশগ্রহণকারী রাষ্ট্রসমূহ খুব দ্রুত একটি সামগ্রিক যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে এবং সামরিক ও বেসামরিক সম্পদের মধ্যে কোনরকম পার্থক্য না করে তাদের পূর্ণ অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও প্রযুক্তিগত সক্ষমতা প্রয়োগ করা শুরু করে।

এছাড়া বেসামরিক জনগণের উপর চালানো নির্বিচার গণহত্যা, হলোকস্ট (হিটলার কর্তৃক ইহুদীদের উপর চালানো গণহত্যা), পৃথিবীর ইতিহাসে একমাত্র পারমাণবিক অস্ত্রের প্রয়োগ প্রভৃতি ঘটনায় কুখ্যাত এই যুদ্ধে প্রায় ৫ কোটি থেকে সাড়ে ৮ কোটি মানুষ মৃত্যুবরণ করে। এসব পরিসংখ্যান এটাই প্রমাণ করে যে এটাই পৃথিবীর ইতিহাসে নৃশংসতম যুদ্ধ।

এই যুদ্ধে নব্য আবিষ্কৃত অনেক প্রযুক্তির ধ্বংসাত্মক প্রয়োগ লক্ষ করা যায়। এর মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ প্রয়োগ ছিল পারমাণবিক অস্ত্রের। মহাযুদ্ধের ডামাডোলের মধ্যেই এই মারণাস্ত্র উদ্ভাবিত হয় এবং এর ধ্বংসলীলার মধ্য দিয়েই যুদ্ধের পরিসমাপ্তি ঘটে। সকল পুণর্গঠন কাজ বাদ দিলে কেবল ১৯৪৫ সালেই মোট ব্যয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় ১ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই যুদ্ধের পরপরই সমগ্র ইউরোপ দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়; এক অংশ হয় পশ্চিম ইউরোপ আর অন্য অংশে অন্তর্ভুক্ত হয় সোভিয়েত রাশিয়া। পরবর্তীতে এই রুশ ইউনিয়নই ভেঙে অনেকগুলো ছোট ছোট রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছিল। পশ্চিম ইউরোপের দেশসমূহের সমন্বয়ে গঠিত হয় ন্যাটো আর সমগ্র ইউরোপের দেশসমূহের সীমান্তরেখা নির্ধারিত হতে শুরু করে। ওয়ারস প্যাক্টের মাঝে অন্তর্ভুক্ত দেশসমূহ নিয়ে দানা বেঁধে উঠে স্নায়ু যুদ্ধ। এভাবেই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ বিশ্বমঞ্চে অভিনব এক নাটকের অবতারণা করে।

৩.প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময়কাল | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ ১৯১৪ সালের ২৮ জুলাই ইউরোপে শুরু হয় এবং ১১ নভেম্বর ১৯১৮ পর্যন্ত স্থায়ী ছিল।

৪.দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কাল | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

১৯৩৯ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল, এই ছয় বছর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়সীমা ধরা হয়। ১৯৩৯ সালের আগে এশিয়ায় সংগঠিত কয়েকটি সংঘর্ষকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অংশ হিসেবে গণ্য করা হয়।

৫.দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণসমূহের মধ্যে বৃহৎ পরিসরে কারণ ছিল ১৯৩৩ সালে আডলফ হিটলার ও তার নাৎসি পার্টির জার্মানির রাজনৈতিক অধিগ্রহণ এবং এর আগ্রাসী বৈদেশিক নীতি। এবং ক্ষুদ্র পরিসরে কারণ ছিল ১৯২০-এর দশকের ইতালীয় ফ্যাসিবাদ এবং ১৯৩০-এর দশকে জাপান সাম্রাজ্যের চীন প্রজাতন্ত্রের আক্রমণ। জার্মানি ও জাপানের স্বৈরশাসকেরা এই সামরিক আগ্রাসনমূলক পদক্ষেপ নেবার পর অন্য দেশগুলি যুদ্ধ ঘোষণা করে কিংবা সামরিক প্রতিরোধ শুরু করে। ১৯৩৯ সালের ১লা সেপ্টেম্বর জার্মানি কর্তৃক পোল্যান্ড আক্রমণের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সূচনা ঘটে এবং ১৯৩৯ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর ব্রিটেন ও ফ্রান্স জার্মানির বিরুদ্ধে যুদ্ধের ঘোষণা দেয়।

ভার্সাই চুক্তির ফলে ১৯১৮ সালে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে পরাজয়ের সমাপ্তি ঘটার পর রাজনৈতিক প্রতিশোধের তীব্র রূপ দেখা দিলে ভাইমার জার্মানিতে সমস্যার সূত্রপাত হয়। চুক্তির ধারার অসন্তুষ্টির মধ্যে ছিল রাইনল্যান্ডের সামরিক ঘাঁটি উৎখাত, অস্ট্রিয়ার সাথে একত্রীকরণ বাতিল এবং কয়েকটি জার্মান ভাষী অঞ্চল, তথা ডানৎসিগ ও ইউপেন-মালমেডি হারানো, যুদ্ধ-অপরাধ অনুচ্ছেদ, এবং জার্মান কর্তৃক অত্যধিক জরিমানা প্রদান, যা মহামন্দা পরবর্তী পরিস্থিতিতে অসহনীয় হয়ে ওঠে। জার্মানির সবচেয়ে মারাত্মক আন্তঃরাষ্ট্রীয় কারণ ছিল রাজনৈতিক ব্যবস্থায় অস্থিরতা। ১. ভার্সাই সন্ধি জনিত সমস্যা ২. উগ্র জাতীয়তাবাদনীতি গ্রহণ ৩. হিটলারের অভিলাষ ৪. ফ্রান্সের সাথে জার্মানীর বিরোধ ৫. তোষণনীতি ৬. রাইন অঞ্চল দখল


৬.দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয় যেভাবে | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

নাৎসি বাহিনীর পোল্যান্ড আক্রমণের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয়। সোভিয়েত ইউনিয়নকে নিষ্ক্রিয় রাখার জন্য জার্মানি অনাক্রমণ চুক্তি করে। অন্যদিকে ব্রিটেন ও ফ্রান্স পোল্যান্ডের সাথে সহায়তা চুক্তি করে। ১৯৩৯ সালের ১ সেপ্টেম্বর পোল্যান্ড অভিযান শুরু হয়। ৩ সেপ্টেম্বর মিত্রবাহিনী জার্মানির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে এবং শুরু হয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ।

প্রথম দিনই জার্মান ঝটিকা বাহিনী পোল্যান্ডকে ছিন্ন-বিছিন্ন করে দেয়। ফরাসি ও ব্রিটিশ বাহিনী সাহায্য করারও সুযোগ পায়নি। এটি পশ্চিমের বিশ্বাসভঙ্গতা হিসেবে পরিচিত। ১৭ই সেপ্টেম্বর গোপন সমঝোতা অনুসারে সোভিয়েত বাহিনীও যুদ্ধে যোগ দেয়। পরদিনই পোলিশ কর্তাব্যক্তিরা দেশ ছাড়েন। ওয়ারস পতন হয় ২৭শে সেপ্টেম্বর। শেষ সেনাদল কক্ দুর্গে যুদ্ধ করে ৬ই অক্টোবর পর্যন্ত।


৭. লেখকের মন্তব্য | প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয় ? | দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ

প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়?দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে আজকে আমরা আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশা করছি প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে আপনারা সকল কিছু ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ কত সালে হয়? এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণ সম্পর্কে যদি আপনাদের কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকে সেটি আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ ছাড়াও যে কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট THE DU SPEECH ভিজিট করুন।
আর্টিকেলটি লিখেছেন: নুসরাত জাহান হিভা 
পড়াশোনা করছেন: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় 
লেখকের জেলার নাম: কুমিল্লা



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?