The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/12/saudi-arab-to-portugal.html

সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত

আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় নিয়ে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের আজকের আর্টিকেল আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করব সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে। সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে সকল কিছু জানতে এবং এই সম্পর্কে একটি ভালো ধারণা নিতে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ুন।

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার বৈধ উপায়
  2. পর্তুগাল কাজের ভিসা
  3. প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
  4. কাজের জন্য কি কি দক্ষতা লাগবে
  5. কাজের নিয়োগ
  6. চাহিদা সম্পন্ন কাজ
  7. সৌদি আরব থেকে পর্তুগালের ভিসা পাওয়ার উপায়
  8. লেখকের মন্তব্য

১.সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার বৈধ উপায় | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল মূলত তিনটি বৈধ উপায়ে যাওয়া যায়।নিচে উপায় গুলো নিয়ে আলোচনা করা হলো।

টুরিস্ট ভিসা

টুরিস্ট ভিসায় সৌদি আরব হতে পর্তুগাল যাওয়া যায়।সাধারনত নব্বই দিন বা তিন মাস মেয়াদে কোন দেশে ঘুরতে যাওয়ার জন্য যে ভিসা ইস্যু করা হয় তাকেই টুরিস্ট ভিসা বলে।এ ক্ষেত্রে আপনি যদি সৌদি আরব হতে পর্তুগাল টুরিস্ট ভিসায় যেতে সক্ষম হন তবে আপনার প্রথম কাজ হবে সুবিধাজনক দেশে গিয়ে নব্বই দিনের ভিতর ই কোন কাজ জোগাড় করে নেয়া।

ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যেতে হলে প্রথমেই পর্তুগাল এর বিভিন্ন জব পোর্টালগুলো থেকে পছন্দ মতো চাকরির জন্য আবেদন করতে হবে। কোন দেশে চাকরির জন্য যে ভিসা দেওয়া হয় তাই হলো ওয়ার্ক পারমিট ভিসা। এই ভিসায় খুব সহজেই পর্তুগাল এর স্থায়ী বাসিন্দা হওয়া যায়।ইউরোপ এর দেশগুলোতে প্রায় সব সময় ই শ্রমিক এর শুন্যতা থাকে।আমরা নিজেরা চেস্টা না করে দালাল এর কাছে যাই বলেই পদ্ধতিটি আমাদের কাছে কঠিন মনে হয়।এক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যাক্তিরা অগ্রাধিকার পায়।

স্টুডেন্ট ভিসা

স্টুডেন্ট ভিসায় সৌদি আরব হতে পর্তুগাল যাওয়ার একটি বৈধ মাধ্যম হলেও এটি খুবি কম কার্যকর একটি উপায়। অন্য দেশে পড়ালেখা করতে যাওয়ার জন্য যে ভিসা ইস্যু করা হয় সে ভিসাকেই স্টুডেন্ট ভিসা বলা হয়।আপনার যদি স্নাতক করা থাকে তবে আপনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রির জন্য এই ভিসায় এপ্লাই করতে পারেন।

আমরা সব সময়ই চেস্টা করবো উপরের আলোচিত তিনটি উপায় ছাড়া অন্য কোন উপায় এ পর্তুগাল যাওয়ার চেস্টা না করতে।কারন অনেকেই না জেনে না বুঝে অন্ধভাবে অন্য কাউকে টাকা দিয়ে দেয় স্বপনের পর্তুগাল ভিসার জন্য।


২. পর্তুগাল কাজের ভিসা | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

কাজের জন্য মানুষ পর্তুগাল কাজের ভিসা নিয়ে থাকেন ।অন্যান্য দেশের তুলনায় এখানে কাজের চাহিদা বেশি এবং শ্রমিকদের গুরুত্ব বেশি দেওয়া হয়। তাছাড়া আপনি পর্তুগালের ভিজিট ভিসার মাধ্যমেও সেখানে গিয়ে কাজ করতে পারবেন। তাই আজকে আমরা জানিয়ে দিব পর্তুগাল কাজের ভিসা কিভাবে পাবেন এবং পর্তুগাল কাজের ভিসা পাবার জন্য কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন এবং কিভাবে কোথায় আবেদন করবেন এই নিয়ে আজকের বিস্তারিত আলোচনা।

৩. প্রয়োজনীয় কাগজপত্র | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

  • 6 মাস মেয়াদি পাসপোর্ট
  • এনআইডি কার্ডের ফটোকপি
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট এর ফটোকপি
  • কাজের দক্ষতার একটি সার্টিফিকেট
  • পূর্বে কাজ করার কোনো অভিজ্ঞতা
  • অফার লেটার
  • সিভি
  • বাংলাদেশের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স
  • সৌদি আরবের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স

৪. কাজের জন্য কি কি দক্ষতা লাগবে | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

অবশ্যই পর্তুগালে কাজ করার জন্য আপনার দক্ষতা প্রয়োজন।আপনাকে সাবলীলভাবে ইংরেজি ভাষা জানতে হবে এবং পর্তুগিজ ভাষা সম্পর্কে আপনাকে জেনে নিতে হবে। সেখানে আপনি রেস্টুরেন্ট এবং কম্পিউটার অপারেটর এবং ড্রাইভিং পদের জন্য যদি নিয়োগ হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনাকে দক্ষতা অবশ্যই থাকা লাগবে।

আপনি অন্যান্য জায়গায় যে কাজগুলো করেছেন সেখান থেকে একটি প্রমাণ স্বরূপ রশিদ বা সার্টিফিকেট নিয়ে রাখবেন তাহলে আপনার দক্ষতা তারা যাচাই করতে পারবে। আর যদি আপনি পাইপ ফিটিং বা ক্লিনার পদের জন্য নিয়োগ পেয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে সৌদি আরব থেকেই আপনাকে এই ধারণা গুলো নিয়ে যাওয়া লাগবে। তা না হলে আপনাকে কাজের অভিজ্ঞতার জন্য আবার সৌদি আরব ফেরত আসা লাগতে পারে। তাই অবশ্যই এ সমস্ত অভিজ্ঞতা নিয়েই আপনি সেখানে পাড়ি জমাবেন। 

বিভিন্ন ট্রেইনিং সেন্টার রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনারা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে স্কিলড হতে পারবেন।যেমন ডাইভিং, হোটেল বয়, শেফ, পাইপ ফিটিং এ সমস্ত কাজের উপর আপনি দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন। সেখানে সামান্য কিছু পরিমাণ টাকা নিয়ে আপনাদেরকে দক্ষ করে তৈরি করে দিবে এবং সার্টিফিকেট সহ।

পর্তুগালে ওয়েটারের কাজ করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ভালোমতো ইংরেজি না হলে পর্তুগিজ জানতে হবে। তাহলে আপনি ওয়েটার হিসেবে কাজ করতে পারবেন।এছাড়াও অনেক ধরনের ফ্যাক্টরি রয়েছে যেমন ফুট প্যাকেজিং ফ্যাক্টরি, মাংস প্যাকেজ করার জন্য বিভিন্ন রকম ফ্যাক্টরি। সুপার সব, মাল্টি সব ক্লিনিং সব এই ধরনের বিভিন্ন সব রয়েছে যেগুলোতে কাদের চাহিদা রয়েছে প্রচুর পরিমাণে।যাদের ভালো এডুকেশন কোয়ালিফিকেশন আছে। অর্থাৎ যারা কম্পিউটার সফটওয়্যার গ্রাফিক্স ডিজাইন এ ধরনের কাজ গুলো জানেন তারা চাইলে এই কাজগুলো এখানে পড়তে পারেন। যেটা অন্যান্য কাজ গুলো থেকে আরামদায়ক এবং বেশি ডিমান্ডিং।

৫. কাজের নিয়োগ | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

বিদেশে যাওয়ার পরে সবথেকে কঠিন বিষয় হয়ে দাঁড়ায় কিভাবে কাজ পাওয়া যাবে। কারণ অনেক সময় মানুষ কাজের জন্য হতাশ হয়ে যায় ।এক্ষেত্রে আপনাকে হতাশ না হয়ে কাজ খুজতে হবে। কাজ খোঁজার জন্য আপনাকে যেগুলো করা লাগবে তা হল যে সমস্ত কোম্পানির ওয়েবসাইট আছে সেই সমস্ত কোম্পানির ওয়েবসাইটগুলোতে ভিজিট করে তাদের নতুন বিজ্ঞপ্তি গুলো দেখতে হবে এবং তাদের রিকোয়ারমেন্ট অনুযায়ী আপনাকে সিভি তৈরি করে সেখানে সাবমিট করতে হবে। তারা আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী মেইলের মাধ্যমে এবং ফোন করে ডেকে নেবে। এভাবে আপনি পর্তুগালে কাজের অফার পেয়ে যাবেন।

৬. চাহিদা সম্পন্ন কাজ | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

অন্যান্য দেশের তুলনায় পর্তুগালে  কাজের চাহিদা বেশি রয়েছ। বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া সহ বিভিন্ন দেশের মানুষ পর্তুগালে কাজের জন্য পাড়ি জমায়। বর্তমান সময়ে আগের তুলনায় পর্তুগালে এখন ব্যাপকভাবে শ্রমিক নিয়োগ দিচ্ছে পর্তুগাল সরকার। তারা বিভিন্ন ক্যাটাগরির উপরে শ্রমিক নিয়োগ দিচ্ছে।হোটেল বয়,কেয়ারিং ম্যান ,ক্লিনার ম্যান এবং কৃষি ভিসা সহ কম্পিউটার অপারেটর এবং ড্রাইভিং এ ব্যাপক ভাবে লোক নিয়োগ দিচ্ছে পর্তুগাল সরকার।

ড্রাইভিং পদে এবং ক্লিনার ম্যান এই দুই পদে ব্যাপকভাবে লোক নিয়োগ দিচ্ছে। বর্তমানে অন্যান্য কাজের তুলনায় এই কাজের উপর বেশি প্রয়োজন পড়ছে সে দেশের মানুষের। তাই কেউ যদি ড্রাইভিং শিখে সেই দেশে পাড়ি জমান তাহলে খুব সহজেই আপনি চাকরি পেতে পারেন। তাছাড়াও বর্তমানের শেফ এর কাজ শিখেও সেখানে খুব সহজেই কাজ পেতে পারেন ।বর্তমানে বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে নিয়োগ দিচ্ছে। তাই উপরোক্ত বিষয়গুলোর উপর আপনি সৌদি আরব থেকে বা যেকোন জায়গা থেকে দক্ষতা অর্জন করে আপনি খুব সহজেই সেখানে গিয়ে কাজ পেতে পারেন।

৭. সৌদি আরব থেকে পর্তুগালের ভিসা পাওয়ার উপায় | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

প্রথম অবস্থায় আপনাকে আগে জানতে হবে যে আপনি সৌদি আরব থেকে কোন ভিসার মাধ্যমে যাবেন। এখান থেকে অনেক ধরনের সুযোগ আছে। যেমন সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার জন্য স্টুডেন্ট ভিসার মাধ্যমে‌ যেতে পারবেন। অথবা আপনি প্রথম অবস্থায় যদি যেতে চান কম খরচের মধ্যে যেতে চান তাহলে আপনাকে টুরিস্ট ভিসার মাধ্যমে যেতে হবে। এক্ষেত্রে খরচ অনেক কম পড়বে। সেই সাথে যদি আপনি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বা অন্যান্য ভিসা নিয়ে যেতে চান তাও যেতে পারবেন ।

তবে সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল ভিসা ব্যবস্থার মধ্যে সিজনাল ভিসা রয়েছে এবং নন সিজিনাল রয়েছে। যেকোনো একটি ভিসা তে আপনারা সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যেতে পারবেন। তবে অবশ্যই যে সমস্ত সিজনাল ভিসা তে আপনারা যদি যেতে চান তাহলে খরচ কিছুটা কম পড়বে এবং যদি আপনারা নন সিজিনাল ভিসার মাধ্যমে যেতে চান তাহলে খরচ একটু বেশি পড়বে। তবে এটা জেনে রাখবেন নন সিজিনাল ভিসার ক্ষেত্রে কিন্তু টাকা বেশি লাগবে এবং দীর্ঘদিন যাবৎ থাকতে পারবেন সেখানে। তবে সিজিনাল ভিসার ক্ষেত্রে 6 মাস থেকে 1 বছর পর্যন্ত মেয়াদ হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে খরচ কম লাগবে পরবর্তীতে আপনাকে আবার রিনিউ করতে হবে ।আবার দেশে ফেরত আসা লাগতে পারে ।এইভাবে আপনারা পর্তুগাল যেতে পারবেন।

সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার জন্য অনেক বেসরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি রয়েছে ।এসব রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে আপনারা যেতে পারবেন। তবে অবশ্যই জেনে রাখবেন যে সৌদি আরব সরকার কর্তৃক অনুমোদিত কিনা। এবং তাদের লাইসেন্স নাম্বার সহ রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এবং আনুষঙ্গিক অন্যান্য সার্টিফিকেট দেখে তারপরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে এক্ষেত্রে অনেক এজেন্সি রয়েছে যারা কাজ নিয়ে সরাসরি পর্তুগাল পাঠিয়ে থাকে।

৮. লেখকের মন্তব্য | সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায়

প্রিয় পাঠক, আজকে আমরা আলোচনা করলাম সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় নিয়ে। সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে আপনাদের যেকোনো মতামত আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।আপনাদের মতামত আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সৌদি আরব থেকে পর্তুগাল যাওয়ার উপায় সম্পর্কে যদি কোন রকম প্রশ্ন থাকে সেটিও আমাদেরকে জানাবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠন The DU Speech এর পাশেই থাকবেন। যেকোনো বিষয়ে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।
আর্টিকেলটি লিখেছেন: নুসরাত জাহান হিভা 
পড়াশোনা করছেন: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় 
লেখকের জেলার নাম: কুমিল্লা



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?