The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/12/way-of-fast-digestion.html

দ্রুত খাবার হজমের উপায় | পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায়

আমাদের মধ্যে অনেকেরই একটি সাধারণ সমস্যা থাকে আর তা হলো যা খাই তা হজম হয় না। বদহজমের সমস্যা এখন পুরো বিশ্বব্যাপী। অথচ একটু নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে জীবন-যাপন করলেই মিলবে বদহজম সমস্যা থেকে মুক্তি। বদহজম থেকে মুক্তির মুখ্য বিষয় হচ্ছে দ্রুত খাবার হজম করা। দ্রুত খাবার হজমের উপায় সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানতে আগ্রহী। তাছাড়া অনেকেরই জিজ্ঞাসা থাকে পেটের হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায়। তাই পাঠক, আপনিও যদি আগ্রহী হন দ্রুত খাবার হজমের উপায় এবং পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় সম্পর্কে তাহলে এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন। কারণ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্টিকেল রাইটিং সোসাইটির পক্ষ থেকে আজকের আর্টিকেলের বিষয় দ্রুত খাবার হজমের উপায় এবং পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত। 

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. হজম প্রক্রিয়া কী?
  2. হজম প্রক্রিয়ার ধাপসমূহ
  3. খাবার ঠিকমতো হজম না হওয়ার কারণ 
  4. দ্রুত খাবার হজমের উপায় 
  5. পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায়
  6. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর
  7. লেখকের মন্তব্য

1. হজম প্রক্রিয়া কী?  | দ্রুত খাবার হজমের উপায় 

হজম প্রক্রিয়া হচ্ছে একটি জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া। যে প্রক্রিয়ায় জটিল খাদ্যবস্তু ভেঙে এনজাইমের সহয়তায় জীবদেহের বিপাকক্রিয়ায় ব্যবহারযোগ্য সরল,দ্রবণীয় ও শোষণযোগ্য অবস্থায় রূপান্তরিত হয় তাকে হজম প্রক্রিয়া বলে। সাধারণত হজম প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খাদ্য বস্তু ভেঙে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র খাদ্য বস্তুতে পরিণত হয় এবং রক্ত ও প্লাজমার মধ্যে শোষিত হয়।

2. হজম প্রক্রিয়ার ধাপসমূহ | দ্রুত খাবার হজমের উপায় 

পুষ্টিবিদরা মনে করেন,হজম শক্তি ব্যাক্তিভেদে ভিন্ন হয়। হজম ক্রিয়ার ওপর একজন ব্যাক্তির স্বাস্থ্য অনেকখানি নির্ভর করে। শুধু খাবার হজম হলেই হয় না,সেটার পূর্ণাঙ্গ শোষণও গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষজ্ঞের মতে,হজম প্রক্রিয়ার ধাপ মূলত তিনটি। এগুলো হলো- 
  • খাবারের ধরণ
  • গৃহীত খাবার পূর্ণাঙ্গরূপে হজম 
  • শোষণ

3. খাবার ঠিকমতো হজম না হওয়ার কারণ | দ্রুত খাবার হজমের উপায় 

দ্রুত খাবার হজমের উপায় জানার পূর্বে আমাদের এটা জানা জরুরি, কোন কোন কারণে খাবার ঠিকমতো হজম হয় না। খাবার হজম না হওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন। মানে,জীবনে কোনো নিয়মানুবর্তিতা না থাকা। আরো যেসব কারণ রয়েছে সেগুলো নিম্নরূপঃ
  • পর্যাপ্ত পুষ্টির অভাব। কোনো কোনো ভিটামিনের অভাবে ঠিকমতো হজমক্রিয়া সংঘটিত হতে পারে না
  • সঠিকভাবে খাদ্য গ্রহণ না করা
  • পর্যাপ্ত পানি পান না করা
  • অধিক রাত পর্যন্ত জেগে থাকা
  • মানসিক চাপ,অবসাদ,বিষন্নতা
  • ধুমপান করা ইত্যাদি।
হজম করতে না পারলে নানাবিধ সমস্যা দেখা দেয়। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া হিসেবে হয়তো আমরা গ্যাসের সমস্যা, কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়রিয়া,পেটে ব্যাথা অনুভব করি। কিন্তু দিনের পর দিন খাবার হজম করতে না পারলে এর দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব রয়েছে। যেমন- স্থূলতা,রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া, লিপিড প্রোফাইল বৃদ্ধি পাওয়া,ইউরিক এসিড বেড়ে যাওয়া প্রভৃতি। দ্রুত খাবার হজমের উপায় জানার পূর্বে আমাদের অবশ্যই খাবার ঠিকমতো হজম না হওয়ার কারণ সম্পর্কে সচেতন হতে হবে এবং সেসব পরিহার করে চলতে হবে।

4. দ্রুত খাবার হজমের উপায় | দ্রুত খাবার হজমের উপায় 

দ্রুত খাবার হজমের উপায় একটি নয়,একাধিক। খাবার দ্রুত হজম করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে জীবন-যাপনের ধরনে পরিবর্তন আনতে হবে। এটা জাদুকরী কোনো মন্ত্র নয় যে একদিনে হয়ে যাবে। দ্রুত খাবার হজম করতে চাইলে আপনাকে বেশ কয়েকটি বিষয়ের ওপর নজর দিতে হবে। যেমন খাবারদাবার,ব্যায়াম,ঘুম,শ্বাস-প্রশ্বাস ইত্যাদি। 

১) খাবারঃ  

আপনি যদি অধিকতর ভালো হজমক্রিয়া চান, তবে অবশ্যই আপনি কী ধরনের খাবার গ্রহণ করছেন, সেটা সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। দ্রুত খাবার হজমের জন্য খাবার-দাবারের ক্ষেত্রে আপনাকে বেশ কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমন-
  • খাদ্যতালিকায় শাক থাকলে সেটা অবশ্যই তেল দিয়ে রান্না করতে হবে
  • মাংস জাতীয় খাবার খেলে সাথে লেবু রাখতে ভুলবেন না যেন
  • প্রতিবার খাবার শেষে স্বল্প পরিমাণে গ্রহণ করতে পারেন লেবু পানি
  • খাবার খাওয়া শুরু করার পূর্বে জিহ্বাতে সামান্য পরিমাণ লবণ স্পর্শ করালে সুবিধাজনক হবে আপনার হজম প্রক্রিয়া 
  • আমাদের অন্ত্রে নানা ধরনের ব্যাকটেরিয়া বিদ্যমান। এর কোনো কোনোটি হজম প্রক্রিয়াকে দ্রুততর করে। সেসব ব্যাকটেরিয়া খেলে দ্রুততর হবে আপনার হজম প্রক্রিয়া। ভাবছেন,ব্যাকটেরিয়া পাবেন কোথায়? চিন্তার কিছু নেই। অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার একটি ভালো উৎস হচ্ছে দই। প্রতিদিন খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন ১৫০-২০০ মিলিলিটার দই।
  • মনোযোগ হজমে সহয়তা করে। তাই পরের বার থেকে খাবার খাওয়ার সময় টেলিভিশন নয়,স্মার্টফোন নয়,নয় অধিক গল্পগুজব। যা খাচ্ছেন তা লক্ষ্য করুন,মনোযোগ সহকারে খান।
  • অনেকেই খাবার ভালোভাবে না চিবিয়ে দ্রুত গিলে ফেলেন। খাবার দ্রুত হজম করতে চাইলে এ অভ্যাস ত্যাগ করুন আজই। ভালোভাবে খাবার চিবিয়ে খান।প্রয়োজনে সময় নিন। 
  • খাবার খাওয়ার মাঝে বেশি বিরতি দিবেন না। যা খাচ্ছেন তা সমগতিতে শেষ করুন।পরিহার করুন দীর্ঘসময় পেট খালি রাখার অভ্যাসও।
  • খাবার দ্রুত হজম করতে চাইলে নির্দিষ্ট সময়ে খাবার গ্রহণের অভ্যাস করুন।
  • রাতের খাবার সাড়ে সাতটা থেকে আটটার মধ্যে খেয়ে ফেলার অভ্যাস ত্বরান্বিত করবে হজমক্রিয়া।
  • পর্যাপ্ত পানি পান করুন। তবে অতিরিক্ত নয়। অতিরিক্ত পানি পান হবে আপনার বদহজমের কারণ। একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যাক্তির দিনে ১০-১২ গ্লাস পানি পান করাই যথেষ্ট। 

২)ঘুমঃ 

বর্তমান যুগে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ব্যাপকভাবে রাত জাগার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। কারণ যেটাই হোক- সোশাল মিডিয়া স্ক্রলিং কিংবা পড়াশোনা - রাত জাগা হজমক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে। কীভাবে?  প্রিয় পাঠক,বিশেষজ্ঞরা দিয়েছেন এর উত্তরও। রাতে বাতাসে অক্সিজেনের পরিমাণ কম থাকে৷ অক্সিজেন হজমে সহয়তা করে থাকে৷ রাতে অক্সিজেনের পরিমাণ কম থাকায় ফুসফুসের বেশিরভাগ অংশই অব্যবহৃত থাকে। যার কারণে পুরোপুরি শ্বাস নেয়া সম্ভবপর হয়ে ওঠে না। জেগে থাকলে শরীরের সমস্ত ইন্দ্রিয় সজাগ থাকার কারণে শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দেয়,হজম প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হয়। তাই রাতের ঘুম আবশ্যক। 

৩)ব্যায়ামঃ

ব্যায়াম শরীরের জন্য নিঃসন্দেহে উপকারী। তবে প্রিয় পাঠক, আপনার যদি লক্ষ্য হয়,হজমের উন্নতিসাধন, তাহলে সব ব্যায়াম প্রযোজ্য হবে না। শুধুমাত্র হজমে সংশ্লিষ্ট অঙ্গ - কোমরের দিকটায় বা ডায়াফ্রামের ওপর থেকে শুরু করে নিচ পর্যন্ত থাকে বিধায়  যেসব ব্যায়ামের কারণে শরীরের মাঝের কর্মকাণ্ড যত ভালো হবে, সেটা তত বেশি হজম প্রক্রিয়ার জন্য সহায়ক হবে। ব্যায়ামের ক্ষেত্রে বেশ কিছু বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে। যেমন-
  • চেয়ারে বসার ক্ষেত্রে রিভলভিং চেয়ার ব্যবহার। এতে করে শরীরের নাড়াচাড়া সহজতর হয়। বসার ক্ষেত্রে টুইস্টিং পদ্ধতি অনুসরণ। অর্থাৎ, শরীরের উপরের অংশ একদিকে, নিচের অংশ অন্যদিকে। এ পদ্ধতিটি হজমক্রিয়ার জন্য ভালো।
  • শুয়ে ৯০ ডিগ্রি কোণে দুই পা উঁচু করে রাখা এবং পা দুটি বাম থেকে ডান এবং ডান থেকে বাম - চক্রাকারে ঘোরানো।
  • একই জায়গায় দাঁড়িয়ে জগিং করা কিংবা হালকা লাফানো।

৪)শ্বাস-প্রশ্বাসঃ 

শারীরিক ক্রিয়ার দক্ষতা অনেকাংশে নির্ভর করে শরীরে বিদ্যমান অক্সিজেনের পরিমাণের ওপর। অক্সিজেন প্রয়োজন হয় হজম ও শোষণ ক্রিয়ার জন্যও। নাক দ্বারা লম্বা করে শ্বাস নিয়ে মুখ দিয়ে লম্বা করে শ্বাস ছাড়লে দেহে অক্সিজেনের পরিমাণ বাড়ে। ফলে হজম সহজতর হয় 

5. পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় | পেটে হজমশক্তি বৃদ্ধির উপায়

প্রিয় পাঠক, এতক্ষণ ধরে আমরা আলোচনা করছিলাম দ্রুত খাবার হজমের উপায়। এখন আমরা জেনে নেবো, পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় সম্পর্কে। সুপ্রিয় পাঠক, পূর্বেই উল্লেখ করেছি,হজম শক্তির উন্নতি একদিন বা একরাতের ব্যাপার নয়। পেটে হজমশক্তি বৃদ্ধি করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে নিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন করতে হবে এবং কিছু টিপস নিয়মিত অনুসরণ করতে হবে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেয়া যাক,পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায়। 
একটা মজার তথ্য কী জানেন? সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি বিক্রিত ওষুধের মধ্যে এক নম্বরে আছে গ্যাসের ওষুধ। আপনিও হয়তো পেটের সমস্যায় অর্থ ব্যায় করেছেন গ্যাসের ওষুধ কিনতে। আর যদি গ্যাসের সমস্যায় ওষুধ কিনতে না চান, তাহলে অনুসরণ করুন নিম্নোক্ত টিপসঃ
  • আপেল সেদ্ধ করে সেই রস খেলে হজম ক্ষমতা বাড়ে। খালি পেটে নিয়মিত খেলে বদহজম দূরীভূত হয়।
  • কাঁচা হলুদ হজম সমস্যা দূর করতে দারুণ কার্যকরী।
  • জিরার গুঁড়ো পানিতে মিশিয়ে গরম করে খেলে পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধি পাবে।
  • এলাচে ঝাঁজ থাকলে চিবিয়ে খেতে পারেন
  • নিয়মিত পেঁপে পাতা সিদ্ধ করে সেটার পানি পান করাও দারুণ কার্যকরী। 
  • খাদ্যতালিকায় রাখুন আঁশযুক্ত খাবার,রাখুন শাকসবজি, ফলমূল।
  • দিনে দুইবার গ্রিন টি বা পুদিনা পাতার চা খাওয়াও উপকারী। 
  • দারুচিনি গ্যাসের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। তার জন্য এক কাপ পানিতে আধা চা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে কয়েক মিনিট সেদ্ধ করুন। এটি গ্রহণ করুন দিনে দুই থেকে তিন বার।

6. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর | দ্রুত খাবার হজমের উপায় | পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায়

প্রশ্ন ১: হজম প্রক্রিয়া কী?

উত্তর:যে প্রক্রিয়ায় জটিল খাদ্যবস্তু ভেঙে এনজাইমের সহয়তায় জীবদেহের বিপাকক্রিয়ায় ব্যবহারযোগ্য সরল,দ্রবণীয় ও শোষণযোগ্য অবস্থায় রূপান্তরিত হয় তাকে হজম প্রক্রিয়া বলে।

প্রশ্ন ২: দুধ হজম করতে কোন এনজাইম সহয়তা করে?

উত্তর: ল্যাকটেজ।

প্রশ্ন ৩: হজম শক্তি বৃদ্ধির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক কোনটি?

উত্তর: নিয়মতান্ত্রিক জীবন-যাপন।

প্রশ্ন ৪: শারীরিক ক্রিয়া ভালোভাবে পরিচালনার জন্য কোনটি গুরুত্বপূর্ণ?

উত্তর: পর্যাপ্ত অক্সিজেন। 

প্রশ্ন ৫: হজম প্রক্রিয়ার ধাপ কয়টি?

উত্তর: তিনটি।

প্রশ্ন ৬: হজম প্রক্রিয়ার ধাপগুলো কী কী?

উত্তর: খাবারের ধরণ, পরিপূর্ণভাবে খাবার হজম এবং খাবার শোষণ। 

প্রশ্ন ৭: সারা বিশ্বে সর্বাধিক বিক্রিত ওষুধ কোনটি?

উত্তর: গ্যাসের ওষুধ। 

প্রশ্ন ৮: কোন ধরনের খাবার হজমে সহায়ক?

উত্তর: আঁশযুক্ত খাবার।

প্রশ্ন ৯: একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যাক্তির প্রতিদিন কী পরিমাণ পানি পান করা উচিত?

উত্তর: ১০-১২ গ্লাস।

প্রশ্ন ১০: প্রতিদিন কী পরিমাণ দই হজমে সহায়ক? 

উত্তর: ১৫০-২০০ মিলিলিটার। 


7.লেখকের মন্তব্য | দ্রুত খাবার হজমের উপায় | পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় 

প্রিয় পাঠক, দ্রুত খাবার হজমের উপায় এবং পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় সম্পর্কিত আর্টিকেলটি এখানেই শেষ। খাবার খাওয়ার পর সেটা যথাযথভাবে হজম হওয়াটা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। কোনো ব্যাক্তি যদি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে চায়,তবে অবশ্যই তার খাবার ঠিকমতো হজম হওয়াটা জরুরি। আশা করি,আপনারা সকলেই বুঝতে পেরেছেন,দ্রুত খাবার হজমের উপায় এবং পেটে হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায় সম্পর্কে। লিখে ফেলুন,আর্টিকেল সম্পর্কিত আপনার প্রতিক্রিয়া। কোনো জিজ্ঞাসা থাকলেও জানাতে পারেন নির্দ্বিধায়। আজকের মতো এখানেই শেষ। সকলের জন্য শুভকামনা।  


লেখক: সিরাজাম মনিরা
পড়াশোনা করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে। তিনি পড়াশোনার পাশাপাশি লেখালেখি করতে পছন্দ করেন।
জেলা: গাইবান্ধা



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা
মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন
পড়াশোনা করছেন:  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে।
জেলা: নাটোর

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?