The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/11/america-student-visa-interview%20.html

আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ | আবেদন সম্পর্কে বিস্তারিত

আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে অনেকেই জানতে আগ্রহী। প্রযুক্তির ছোঁয়ায় এখন ঘরে বসেই আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে সহজেই ধারণা লাভ করা সম্ভব। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করব আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে। আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

আর্টিকেল সূচিপত্র (যে অংশ পড়তে চান তার ওপর ক্লিক করুন)

  1. আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা
  2. ভিসার ধরন
  3. প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস
  4. ভিসা পাওয়ার উপায়
  5. ভিসা পাওয়ার যোগ্যতা
  6. ভিসা আবেদন ও খরচ
  7. ভিসা ইন্টারভিউ
  8. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর
  9. লেখকের মন্তব্য

১.আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

পৃথিবীর সবথেকে শক্তিশালী দেশের মধ্যে আমেরিকা অন্যতম। পৃথিবীর সকল অর্থনৈতিক ও শাসন ক্ষমতার মূলে রয়েছে আমেরিকা। আমরা বিভিন্ন কারণে আমেরিকা ভ্রমণ করে থাকি। এছাড়াও পৃথিবীর সব থেকে বিখ্যাত অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় আমেরিকায় অবস্থিত। 

তাই আমাদের দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর স্বপ্ন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা করার। কিন্তু অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার আগে আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে জানতে হবে। আমেরিকান স্টুডেন্ট ভিসার মাধ্যমে আপনি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার সুযোগ পাবেন। আজকে আমরা,আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ,আমেরিকা ভিসা প্রসেসিং ও আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা সম্পর্কে জানবো। 

২.ভিসার ধরন | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

বর্তমানে তিন ধরনের স্টুডেন্ট ভিসা হয় আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে আমেরিকায় পড়তে যাওয়ার জন্য। দেখে নেওয়া যাক সেগুলো। 

  • প্রথমেই বলা যাক এফ১ স্টুডেন্ট ভিসার কথা। এফ১ স্টুডেন্ট ভিসা আপনার তখনই লাগবে যখন আপনার এক সপ্তাহে ১৮ ঘণ্টার বেশি সময় পড়তে হবে। এর মধ্যে গ্রাজুয়েট, আন্ডারগ্রাজুয়েট সমস্ত ধরনের কোর্স থাকে। যেমন, এমএস, এমবিএ, ইত্যাদি। যিনি এফ১ ভিসার জন্য আবেদন করলেন তাঁর স্বামী বা স্ত্রী অথবা সন্তান তাঁর সঙ্গে যেতে পারেন এফ২ ভিসার সাহায্যে। কিন্তু এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে স্বামী/স্ত্রী যিনি যাচ্ছেন তিনি আমেরিকায় গিয়ে কোনও কাজ করতে পারবেন না। তাঁদের আলাদা করে আবেদন করতে হবে নিজের ভিসার জন্য। 
  • এরপর বলা যাক জে১ এক্সচেঞ্জ ভিজিটর ভিসার কথা। যাঁরা কোনও এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে যোগদান করতে যাচ্ছেন তাঁদের এই ভিসা লাগবে। ফুলব্রাইট স্কলার, কিংবা অন্যান্য ছাত্র ছাত্রীরা অল্প দিনের কোনও কোর্স করতে বিদেশে গেলে তাঁরা এই ভিসার আবেদন করবেন। এছাড়াও কেউ যদি কোনও এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে গিয়ে স্থির করেন ভোকেশনাল ট্রেনিং নিতে চান পাশাপাশি তাহলেও সেক্ষেত্রে জে১ ভিসা অবশ্যই।
  • তৃতীয় এবং শেষ ধরনের ভিসা হচ্ছে এম১। এটি হচ্ছে ভোকেশনাল অথবা নন অ্যাকাডেমিক ভিসা। এই ভিসাটি কেবলমাত্র তাঁদের জন্যই সংরক্ষিত যাঁরা ভোকেশনাল কিংবা টেকনিক্যাল স্কুলে পড়ার জন্য আমেরিকা যেতে চান। তবে এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে এই ভিসায় টাইম বেঁধে দেওয়া থাকে। তার বেশি কোনও ছাত্র সেখানে থাকতে পারবেন না। 

৩.প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

আমেরিকার স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ এর জন্য যে সকল প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দরকার হবে সেগুলো নিয়ে আলোচনা করা হলো।
  • ডিজিটাল পাসপোর্ট
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • নাগরিকত্ব সনদ
  • কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন এর কাগজ
  • অফার লেটার
  • স্কুল এবং কলেজের সার্টিফিকেট ও মার্কশিট
  • IELTS স্কোর এর সার্টিফিকেট
  • বিশ্ববিদ্যালয়ের এপ্লিকেশন ফর্ম
  • ব্যাংক সলভেন্সি এর কাগজ
  • স্টুডেন্ট ভিসার এপ্লিকেশন 

৪.ভিসা পাওয়ার উপায় | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

আমেরিকা যাওয়ার জন্য আপনাকে প্রথমে ভিসা রেডি করতে হবে। ভিসা ছাড়া কোন ব্যক্তি আমেরিকা যেতে পারবে না। আপনাকে সরকারিভাবে আমেরিকার জন্য ভিসা করতে হবে। আপনি যখন অবৈধভাবে আমেরিকা যাবেন, তখন আপনার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। এজন্য আপনি কখনো অবৈধভাবে আমেরিকা যাবেন না। 

সরকারিভাবে আমেরিকা যাওয়ার জন্য আপনাকে কিছু বিধিনিষেধ মানতে হবে। কারণ আমেরিকা যাওয়ার জন্য বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিসা রয়েছে। আপনি যদি পড়াশোনার জন্য আমেরিকা যান, তাহলে আপনাকে আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে যেতে হবে। আমার আপনি যদি আমেরিকা ভ্রমণ করার অনেক ইচ্ছা থাকে। তাহলে আমেরিকা টুরিস্ট ভিসা নিতে হবে। 
আবার আমাদের দেশ থেকে অনেক শ্রমিক আমেরিকা কাজ করার জন্য যায়। যারা আমেরিকা কাজ করার জন্য যাবেন, তাদের জন্য ওয়ার্কার ভিসা রয়েছে। আমেরিকার ভিসার ক্যাটাগরি সম্পর্কে আপনি ইতিমধ্যে ধারণা পেয়েছেন। এখন আপনাকে আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ ও আমেরিকা ভিসা খরচ কত এটা জানতে হবে। 

৫.ভিসা পাওয়ার যোগ্যতা | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

যেসকল স্টুডেন্ট আমেরিকা গিয়ে পড়াশোনা করতে চান। তাদের জন্য আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসার ব্যবস্থা রয়েছে। আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আপনার কিছু যোগ্যতা থাকা লাগবে এবং আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে জানতে হবে। যে সকল শিক্ষার্থীর মেধা অনেক ভালো ও IELTS স্কোর অনেক বেশি। তারাই আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে।

আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার জন্য আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ১৪ থেকে ৭৯ বছরের মধ্যে। এর উপরে বা নিচে হলে সেটাকে স্পেশাল কেস হিসেবে বিবেচনা করা হবে। যাঁরা কোনও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অ্যাকসেপ্টেড হবেন তাঁরাই এফ১ ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। যদি আপনার শেষ এবং আগামী ডিগ্রির মধ্যে অনেকটা ফারাক তাহলে তাহলে কিন্তু আপনাকে প্রশ্নের মুখে পড়তে হতে পারে।

৬.ভিসা আবেদন ও খরচ | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

বাংলাদেশ থেকে যারা আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা  ইন্টারভিউ এর জন্য আবেদন করতে চান তারা অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। তারা এই ওয়েবসাইটটিতে https://bd.usembassy.gov খুব সহজেই ১৪০০০ টাকা ফি দেয়ার মাধ্যমে আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

ইউএসএ আন্ডারস্টাডি ভিসার খরচ কিছুটা নির্ভর করে অনুদানের ধরন এবং ফাউন্ডেশনের উপর। তবুও, আমরা ইউএস আন্ডারস্টাডি ভিসার খরচ কেমন হতে পারে সে সম্পর্কে একটি সামগ্রিক চিন্তা করার চেষ্টা করব।

কলেজের আবেদন: সাধারণত ইউনিভার্সিটি অ্যাপ্লিকেশনটি বর্তমানে সম্পূর্ণ অনলাইন ভিত্তিক, উদাহরণস্বরূপ আপনি আপনার প্রয়োজনে বাড়িতে বিনামূল্যে আবেদন করতে পারেন। যাইহোক, আপনি একটি কলেজের জন্য নির্বাচিত হওয়ার সুযোগে, তারা সাধারণত 28 দিনের ব্যবধানে নিশ্চিতকরণ চিঠি পাঠাবে এবং এতে আপনার খরচ হবে $400 থেকে $500।

  • $250 একটি সাহায্য চার্জ নিশ্চিতকরণ চিঠির অবিরাম সরবরাহ হবে।
  • সরকারী অফিস খরচ $180.
অর্থাৎ ভিসা এবং আবেদন সহ আপনার সম্পূর্ণ খরচ হবে $880 থেকে $900 যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় 80 হাজার।

৭.ভিসা ইন্টারভিউ | আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ 

আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ আর্টিকেলের এই অংশে আমরা আলোচনা করব ইন্টারভিউ এবং আবেদন নিয়ে।

ধাপ১

ননইমিগ্রেন্ট ভিসা ইলেক্ট্রনিক আবেদনপত্র (DS-160) ফর্মটি পূর্ণ করুন(https://www.ustraveldocs.com/bd_eu/bd-niv-ds160info.asp)

ধাপ ২

ভিসা আবেদনপত্র প্রক্রিয়ার ফি প্রদান করুন।

ধাপ ৩

এই ওয়েবপেজে https://cgifederal.secure.force.com/?language=Bangla&country=Bangladesh আপনার সাক্ষাৎকারের দিনটি নির্ধারিত করুন। আপনার সাক্ষাৎকারের দিনটি নির্ধারিত করতে আপনার নিম্নলিখিত তথ্যগুলি প্রয়োজন হবে
  • আপনার পাসপোর্ট নম্বর
  • আপনার ভিসা ফি’র রশিদ থেকে প্রাপ্ত নম্বর (যদি এই নম্বরটিকে সনাক্ত করতে আপনার সাহায্য প্রয়োজন হয় তাহলে এখানে ক্লিক করুন)
  • DS-160 কনফারমেশান পেজে উল্লেখিত দশ(১০) সংখ্যার বারকোড নম্বর

ধাপ ৪

আপনার ভিসা সাক্ষাৎকারের তারিখ ও সময়ে ইউ.এস দূতাবাসে (https://www.ustraveldocs.com/bd_eu/bd-loc-post.asp)  দেখা করুন । আপনাকে অবশ্যই আপনার সাক্ষাৎকারের চিঠির একটি প্রিন্ট করা কপি, আপনার DS-160-এর কনফারমেশান পেজ, গত ছয় মাসের মধ্যে তোলা একটি ছবি এবং বর্তমান এবং সমস্ত পুরানো পাসপোর্ট সাথে আনতে হবে । এই সমস্ত সামগ্রী ছাড়া আবেদন গৃহীত হবে না।

৮. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন-উত্তর 

আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ  নিয়ে আপনাদের অনেকের অনেক রকম প্রশ্ন থাকে এই অংশে কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।
প্রশ্ন ১: আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার জন্য আবেদনকারীর বয়স কত হতে হবে ?
উত্তর:আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার জন্য আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ১৪ থেকে ৭৯ বছরের মধ্যে।
প্রশ্ন ২:ভিসা এবং আবেদন সহ সম্পূর্ণ খরচ কত হবে ?
উত্তর:ভিসা এবং আবেদন সহ আপনার সম্পূর্ণ খরচ হবে $880 থেকে $900 
প্রশ্ন ৩: কত দিনের ব্যবধানে নিশ্চিতকরণ চিঠি পাঠাবে?
উত্তর:28 দিনের ব্যবধানে নিশ্চিতকরণ চিঠি পাঠাবে।
 

৯. লেখকের মন্তব্য

প্রিয় পাঠক, আজকে আমরা আপনাদের সাথে আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে অথবা যে কোন বিষয়ে আপনাদের কোন অভিযোগ বা মতামত নিচের কমেন্ট বক্সে লিখে জানাবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল সংগঠন The DU Speech এর পাশেই থাকবেন।আমেরিকা স্টুডেন্ট ভিসা ইন্টারভিউ সম্পর্কে হোক বা যেকোন বিষয়ে আমরা আপনার মতামতকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করব।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?