The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/04/book-ticket-from-hanif-paribahan.html

হানিফ পরিবহন | অনলাইন টিকিট কাটার নিয়ম ২০২২ | হানিফ পরিবহন ভাড়া তালিকা

 হানিফ পরিবহন বাংলাদেশের জনপ্রিয় একটি বাস পরিবহন কোম্পানি । বাংলাদেশের এমন কোন জায়গা নেই যে জায়গা থেকে হানিফ পরিবহনের বাস চলাচল করে না । অনেকেই হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকিট কাটার নিয়ম হানিফ পরিবহন ভাড়া তালিকা সন্ধান করেন। পরিবহন মূলত দূরপাল্লার বাস পরিবহন করে থাকে । হানিফ পরিবহনের এসি, নন এসি, হিনো চেয়ার কোচ, এছাড়াও হানিফ স্ক্যানিয়া ফুল এসি বাস সার্ভিস আছে । তাই আজ আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম এবং ভাড়া তালিকা সম্পর্কে আপনাদের জানাবো। পাশাপাশি  আপনাদের জানাবো হানিফ পরিবহন এর সকল ভাড়া এর তালিকা। হানিফ পরিবহন এর ভাড়া তালিকা ও অনলাইন টিকিট কাটার নিয়ম নিয়ে সাজানো হয়েছে আজকের আর্টিকেল।





হানিফ পরিবহন সম্পর্কে বিস্তারিত-

বাস সম্পর্কে বলতে গেলে সবাই আগে হানিফ পরিবহন বাসে অনলাইন টিকিট সংগ্রহ করতে ইচ্ছুক এবং হানিফ বাস ভালোভাবে চেনে। হানিফ পরিবহন বাংলাদেশের যে কোন জায়গা থেকে অন্য জায়গায় পরিবহন সেবা দিয়ে আসছে। তাছাড়া  হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম অনেক সহজ।  হানিফ পরিবহন সাধারণত দূর থেকে দূরান্তের বাস সেবা দিয়ে থাকে। এবং তারা বিভিন্ন ধরনের আসন ব্যবস্থা দিয়ে থাকে যেমন ধরেন এসি, নন এসি, চেয়ার কোচ। এবং হানিফ পরিবহন  ফুল এসি বাস সার্ভিস দিয়ে থাকে।

অনুচ্ছেদ সূচী (যে অংশ পড়তে চান তার উপর ক্লিক করুন)

  1. হানিফ পরিবহনের প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা
  2. হানিফ পরিবহনের ভাড়ার তালিকা
  3. হানিফ পরিবহনের অনলাইন টিকেট বুকিং সিস্টেম
  4. ঢাকা বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  5. খুলনা বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  6. ঝিনাইদহ বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  7. যশোর বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  8. রংপুর বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  9. রাজশাহী বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  10. বরিশাল বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  11. কক্সবাজার বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  12. চট্টগ্রাম  বিভাগের কাউন্টার নাম্বার
  13. সিলেট বিভাগের কাউন্টার নাম্বার

১.হানিফ পরিবহনের প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা|হানিফ পরিবহন অনলাইন  টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা

হানিফ পরিবহন বাংলাদেশের পরিবহন সেক্টরের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ হানিফ পরিবহনের মাধ্যমে নিজ নিজ গন্তব্যে চলাচল করে। বিভিন্ন প্রয়োজনে মানুষের হানিফ পরিবহনের কাউন্টার নাম্বার প্রয়োজন পড়ে। এর জন্য প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ মানুষ নিয়মিতভাবে হানিফ পরিবহনে কন্টাক্ট নাম্বার অনলাইনে অনুসন্ধান করে থাকে।হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকিট কাটার নিয়ম খুব সহজ হওয়ায় মানুষ এটিকে প্রাধান্য দেয় বেশি। হানিফ পরিবহন এসি নন এসি এবং লাক্সারি যাত্রী সেবা দিয়ে থাকে। অর্থাৎ এদিক থেকে বলা যায় হানিফ পরিবহন প্রায় সকল শ্রেণীর যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে সব ধরনের বাস সার্ভিস চালু করেছে। আপনি যদি হানিফ পরিবহনের বিজনেস ক্লাস সুবিধা পেতে চান তাহলে সেই সুবিধা পেয়ে যাবেন। অন্যদিকে বাংলাদেশের অধিকাংশ যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে হানিফ পরিবহন ইকোনমি ক্লাস যাত্রীদের জন্য তাদের সেবা চালু রেখেছে।নিচে হানিফ পরিবহন এর প্রধান কার্যালয় ঠিকানা সংযুক্ত করলাম।


১৬৭/২২, ইনার সার্কুলার রোড, আরামবাগ, ঢাকা।

ফোন: ০১৭১৩-৪০২৬৭১, ০১৭১৩-৪০২৬৩১।

২.হানিফ পরিবহনের ভাড়ার তালিকা|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা! 

আমরা প্রত্যেকটি বিভাগীয় শহর জেলা শহরের ভাড়ার তালিকা আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি।  ভ্রমণ করার আগে  অবশ্যই সেখানে যাতায়াত খরচ এর কথা বিবেচনা করতে হবে।  হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকিট কাটার নিয়ম অনেকে সার্চ করে থাকে তাই আগে ভাড়ার তালিকাটি উল্লেখ করে নিই।


ঢাকা টু চট্টগ্রাম - নন এসি: ৪৩০টাকা

এসি: ৯০০-১১০০টাকা, নন এসি: ৭০০ টাকা 

ঢাকা টু কক্সবাজার  - ৮০০ টাকা (টেকনাফ)

এসি: ১৪০০ টাকা (অর্থনীতি)

এসি: ২০০০ টাকা (এক্সিকিউটিভ)

ঢাকা টু শাইলেট - নন এসি: ৪৫০ টাকা

ঢাকা টু রাজশাহী - নন এসি: ৬০০ টাকা

ঢাকা টু নাটোর - নন এসি: ৬০০ টাকা

ঢাকা থেকে রংপুর - নন এসি: ৫০০ টাকা

ঢাকা তো খুলনা - নন এসি: ৫০০ টাকা

৩. হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট বুকিং সিস্টেম|হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা! 

এখন খুব সহজে ঘরে বসে অনলাইন ট্রেনের/বাসের টিকিট কাটা যায়,হোক সেটা হানিফ পরিবহন বা শ্যামলী পরিবহন!হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকিট কাটার নিয়ম খুবই সহজ।

অনলাইনে বাসের টিকিট কাটার বিভিন্ন ধরনের আ্যপ্স রয়েছে। ঘরে বসে টিকেট কাটার জন্যে যেকোনো একটি আ্যপ্স স্মার্টফোনে ডাউনলোড করতে হবে।অনলাইনে বসে হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম  জানতে এপ্সটি ডাউনলোড করতে হবে সেটির নাম হলো - Sohoz - Buy Bus Ticket

প্রথমে আপনাকে Sohoz আ্যপ্স এ ঢুকতে হবে।এরপর সেখানে যে পেইজটি আসবে সেখানে আপনাকে অনলাইনে বাসের টিকিট কাটার জন্য আপনি যে ঠিকানা থেকে রওনা দিবেন সেই ঠিকানা লিখবেন "from" অপশন থেকে। এরপর যে স্থানে যাবেন সেই স্থানের নাম লিখবেন "To" এর যায়গায়।

এরপরে দিতে হবে তারিখ।সব তথ্য দেওয়ার পর আপনাকে সার্চ অপশনে ক্লিক করতে হবে। ক্লিক করার পর হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকিট অপশন আসবে। সেখান থেকে আপনার পছন্দ মতো বাসের টিকিট কেটে নিতে পারবেন।

এভাবেই সব অনলাইন বাসের টিকিট কাটতে পারবেন আপনারা। 

Bdtickets.com বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত। এটির মাধ্যমেও হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম রয়েছে। বাসের টিকিট বুকিং ছাড়াও আপনি লঞ্চের টিকিটও বুক করতে পারেন। বিভিন্ন বাস অপারেটিং সার্ভিসের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রায় সব বাস রুট Bdtickets.com দ্বারা পরিচালিত।দেশ ট্রাভেলস, ন্যাশনাল ট্রাভেলস, শ্যামলী পরিবহন, সোনারতরি পরিবহন, সেন্টমার্টিন পরিবহন, সুরোভি পরিবহন, সাকুরা পরিবহন, সৌদিয়া এয়ারকন, ইয়েলো লাইন, শাহ আলী পরিবহন, এসএম পরিবহন, হালি পরিবহন, মানিক এক্সপ্রেস, রিল্যাক্স পরিবহন, হিমাচল, এসবি সুপার ডিলাক্স, একে ট্রাভেলস, সেন্ট মার্টিন সার্ভিস, আইকন ট্রাভেলস, সরকার ট্রাভেলস, এআর ট্রাভেলস, একুশে এক্সপ্রেস ইত্যাদি বাসের টিকেট এর মাধ্যমে কাটতে পারবেন আপনারা।


অনলাইনে টিকিট বুক করার জন্য Busbd.com.bd আরেকটি জনপ্রিয় সাইট। এটিও হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম এ পড়ে। এটি বেশ দীর্ঘ সময় ধরে চালু রয়েছে এবং ফলস্বরূপ, ভ্রমণকারীদের জন্য বেছে নেওয়ার জন্য একটি বিশাল প্লাটফর্ম । সারা দেশে বাস অপারেটরগুলির বিস্তৃত পরিসর থাকার কারণে, প্রায় সব প্রয়োজনীয় এবং আমদানি রুট busbd.com.bd দ্বারা পরিচালিত।দেশ ট্রাভেলস, শ্যামলী পরিবহন, সুরভি পরিবহন, জেলাইন পরিবহন, ন্যাশনাল ট্রাভেলস, সোনারতরি পরিবহন, কুয়াকাটা এক্সপ্রেস, সাকুরা পরিবহন, ইকোনো সার্ভিস, ইয়ার 71 এক্সপ্রেস, সেন্টমার্টিন পরিবহন, সেন্টমার্টিন সার্ভিস, মানিক এক্সপ্রেস, একে ট্রাভেলস, বাগদাদ এক্সপ্রেস, আকিব এন্টারপ্রাইজ, রিল্যাক্স পরিবহন, শান্তি পরিবহন, কিংফিশার ট্রাভেলস, এস। আলম সার্ভিস, সরকার ট্রাভেলস, এআর ট্রাভেলস, শাহ আলী পরিবহন, এসএম পরিবহন, বাবলু এন্টারপ্রাইজ, এইচআর ট্রাভেলস, তুহিন পরিবহন, ফাল্গুনী মধুমতি (প্রাইভেট) লিমিটেড, গ্রিন সেন্টমার্টিন এক্সপ্রেস, Dhaka এক্সপ্রেস, সেভেন স্টার পরিবহন, এসএ ট্রাভেলস (প্রা।) লিমিটেড, বরকত ট্রাভেলস, ড্রিম লাইন স্পেশাল ইত্যাদি বাদের টিকিট এর মাধ্যমে কাটতে পারবেন। 

৪.ঢাকা বিগাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

বাংলাদেশের রাজধানীর নাম ঢাকা। প্রতিনিয়ত মানুষ ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন বিভাগ জেলা এবং উপজেলা প্রতিনিয়ত যাতায়াত করে।

বিদ্রঃ আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদের জানাচ্ছি হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম।

গাবতলী কাউন্টার  

কলাবাগান কাউন্টার    ০১৭১৩২০১৭২৭

শ্যামলী কাউন্টার      ০১৭১৩০৪৯৫৭৫

শ্যামলী রিংরোড -১ কাউন্টারস ০১৭১৩৪০২৬৩৯

শ্যামলী রিংরোড -২ কাউন্টারস ০১৭১৩০৪৯৫৩২

কল্যাণপুর -১ কাউন্টার  ০১৭১৩০৪৯৫৪০

কল্যাণপুর -২ কাউন্টার  ০১৭১৩০৪৯৫৭৩

কল্যাণপুর -৩ কাউন্টার  ০১৭১৩০৪৯৫৭৪

কল্যাণপুর -৪ কাউন্টার  ০১৭১৩০৪৯৫৬১

নবীনগর কাউন্টারস ০১৬৮১-২৯৯৯৯

সাভার কাউন্টারস   ০১৭৫৩৪৮৮৪৭৬

ফকিরাপুল কাউন্টার  ০১৭১৩২০১৭২৭

উত্তরা কাউন্টার  ০১৭১১৯২২৪২১

কাচপুর কাউন্টার কাউন্টারস ০১৬৮৭৪৮০৫৬৯

পান্থপথ কাউন্টারস  ০১৬৮৭৪৮০৫৬৯

আরামবাগ কাউন্টার   ০১৭১৩৪০২৬৬৫

সায়দাবাদ কাউন্টার   ০১৭১৩২০১৭৩২

প্রযুক্তি কাউন্টার ৯০০৮৪৭৫

৫.খুলনা বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

নতুন রাস্তা -০৪১৭৬০১৮৬

নওয়া পাড়া ০১৭৪০৫৯১৫৩৯

রয়েল চত্তর  ০১৭১৩০৪৯৫৬২

ফুলবাড়ি ০১৯১৮৬০৫১৯৬

শিরমনি ০৪১৭৮৬১১৫

বয়রা বাজার ০৪১২৮৫০৯১১

ফুলতলা ০৪১৭০১৪৩২

শিববাড়ী ০৪১৭২৩৯৯৬

সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল ০৪১১৮১০৫৪২


আপনারা পড়ছেন হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম। 

৬.ঝিনাইদহ বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

ঝিনাইদাহ ০১৭১২৯৫২৯৭৫


আজকের পোস্টটি হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম নিয়ে লিখিত।

৭.যশোর বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

যশোর ০১৭১৩০৪৯৫৬০

মণিহার  ০৪২১৭১১৭১

গাড়ীখানা ০৪২১৭১১৭২

নিউমার্কেট ০৪২১৬৭৮৩৮

বেনাপোল  ০৪২২৮৭৫৭৩৪

৮.রংপুর বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

রংপুর - ০১৭১৩৪০২৬৫০

রুহিয়া কাউন্টারস -  ০১৭১৩৭৮৪৯২৫

পঞ্চগড় কাউন্টারস -  ০১৭১৩২০১৭০৫

ভুলি কাউন্টারস- ০১৭১৩৭৪৪৪৫৪

বোদা কাউন্টারস- ০১৭১৬২৬৪৭৩৪

বীরগঞ্জ কাউন্টারস-  ০১৭১৪২২৮৯৩৯

ঠাকুরগাঁও ০১৭২২৬০১৩৬৯

বর্তমানে হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম অনেক সহজ।এই বিষয়ে আরো বিস্তারিত জানতে পোস্টটি পড়তে থাকুন।

৯.রাজশাহী বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

রাজশাহী -  ০১৭১৩২০১৭০০

নাটোর -  ০১৭১৩২০১৭০৩

চাঁপাই -০১৭১৩২০১৭০১

১০.বরিশাল বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

বরিশাল - ০১৭১৩৪৫০৭৬০

বাকেরগঞ্জ - ০১৭১৬৫০৭৭১৩

রহমতুল্লাহ, বাবুগঞ্জ - ০১৭২৫৬৫৮২৬৯

সানুহার, উজিরপুর -  ০১৭২৮৯৭২০৬৩

গৌরনদী - ০১৭২৩৯২৯১২২

ঝালকাঠি - ০১৭২৩৩৮৮৯৯৫

আমুয়া বাজার, কাঁঠালিয়া -ফোনঃ 01730-935943

স্বরূপকাঠি, পিরোজপুর - ০১৭১১৭৩০৪০৫

মঠবাড়িয়া, পিরোজপুর - ০১৭৪৮৯১২৭৫১

গুয়াচিত্রা -  ০১৭১৩৯৫৬২৮৪

ইছলদী -  ০১৭১২৩৬৭২৪৪

কলাপাড়া  ০১৭২১০৪৮৮৩৮

সুবিদখালী  ০১৭৭৮১২৩৬৩০

আমতলী, বরগুনা ০১৯১৮৮৮৭৭৬৯

ভান্ডারিয়া পিরোজপুর ০১৭১১২১৯৩৭৭

টরকী বাজার ০১৭১২১৩৫৩৯০০

বিদ্রঃ আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদের হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে বলছি।

১১.কক্সবাজার বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

কক্সবাজার,   ০১৭১৩৪০২৬৫১

হারুনুর রশিদ ০১৬৮৯৮৪০৫৩১

সুগন্ধা বিচ ০১৭১৩৪০২৬৩৫

কলাতলী,   ০১৭১৩৪০২৬৬৯

টেকনাফ,   ০১৮২৫১৫৭৩২৪

হানিফ পরিবহনে হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম অনেক সহজ তাই যাত্রীরা দূর দূরান্তে যাত্রা করার জন্য হানিফ পরিবহনকে প্রথম প্রাধান্য দিয়ে থাকেন।

১২.চট্টগ্রাম বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

রাঙ্গামাটি রিজার্ব বাজার ০১৮১১৬১৫৮০১

খাগড়াছড়ি কাউন্টারস ০১৬৫৬৯৪৬৩৯১

একে খান কাউন্টারস ০১৭১৩৪০২৬৬৫

দামপাড়া কাউন্টারস ০১৭১৩৪০২৬৬৪

নতুন মুন্সুরবাদ কাউন্টার ০১১৯১৭০৬৭২৪

সিনেমা প্যালেস কাউন্টার ০১৭১৩১০৭১৪৬

বাহদ্দারহাট কাউন্টার ০১৭১৩১০৭৪৪৭

বিআরটিসি  কাউন্টার ০১৭১১০৭১৪৩

হআনিফ পরিবহন একটি জনপ্রিয় ট্রান্সপোর্টেসন। হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম খুবই সহজ এবং ঘরে বসেই সম্ভব টিকেট কাটা।

১৩. সিলেট বিভাগের কাউন্টার নাম্বার|হানিফ পরিবহন অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও ভাড়া তালিকা!

হুমায়নরাশিদচত্তর ০১৭১১৯২২৪২০

দরগা গেইট ০১৭১১৯২২৪১৯

সোবহানী গেইট ০১৭১১৯২২৪২১

কদমতলিবাসস্ট্যান্ড ০১৭১১৯২২৪১৩


এছাড়াও"ঢাকা-জয়পুরহাট-হিলি" রুটে চলাচলরত Hino RM-2 সিরিজের বিজনেস ক্লাস এসি কোচ রয়েছে।ভাড়া নিম্নে দেওয়া হলো :

ঢাকা টু জয়পুরহাট ১১০০ টাকা

ঢাকা টু হিলি ১৩০০ টাকা

 হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম অনেক সহজ তাই যাত্রীরা দূর দূরান্তে যাত্রা করার জন্য হানিফ পরিবহনকে প্রথম প্রাধান্য দিয়ে থাকেন।

"চট্টগ্রাম বিভাগীয়" রুটে চলাচল করে Volvo B9R i-Shift সিরিজের বিজনেস ক্লাস এসি কোচ।

এই বাসগুলো ১:২ আসন বিন্যাস আকারে মোট ৩৪ টি আরামদায়ক আসন বিশিষ্ট 

ভাড়ার তালিকা নিম্নে দেয়া হলো : 

ঢাকা টু চট্টগ্রাম ১২০০ টাকা

ঢাকা টু খাগড়াছড়ি ১৪০০ টাকা

ঢাকা টু বান্দরবান ১৬০০ টাকা 

ঢাকা টু কক্সবাজার ১৮০০ টাকা 

আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদের জানাচ্ছি হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম। 

"ঢাকা-ভেড়ামারা-কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ" রুটে চলাচলরত রি-ফ্যাব্রিকেটেড ননএসি Hino AK1J কোচ 

ঢাকা মেট্রো ব ১৪-৯৭৭৯


"ঢাকা-নাটোর-রাজশাহী-চাঁপাই" রুটে যুক্ত হওয়া প্যাকেট Hino AK1J মডেলের ননএসি কোচ। 

উক্ত রুটের বর্তমান ভাড়াগুলো নিম্নে দেওয়া হলো : 

ঢাকা - নাটোর = ৫০০ টাকা মাত্র /-

ঢাকা - পুঠিয়া = ৫৫০ টাকা মাত্র /-

ঢাকা - রাজশাহী = ৫৮০ টাকা মাত্র /-

ঢাকা - চাঁপাইনবাবগঞ্জ = ৭০০ টাকা মাত্র /-


"কালীগঞ্জ-ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া-কুমারখালী-রাজবাড়ী-চট্টগ্রাম" রুটে চলমান Hino AK1J মডেলের ননএসি কোচ ।

রেজিঃ ঢাকা মেট্রো ব ১৪-৭৯৩৩

চট্টগ্রাম (লং রুট) ফোন নাম্বারসমূহ : 

দামপাড়া - ০১৭৩৮৯৯২১৫০

বিআরটিসি - ০১৭৩০৩৭৬৩৭৬

অলংকার মোড় - ০১৭৫৭১৪৪১০৯

এ.কে খান গেট - ০১৭৫৮১৭১২৬৯

হোটেল নুরজাহান - ০১৭১৩১০৭১৪০


"ঢাকা-বগুড়া-রংপুর" রুটে চলাচল করে Volvo B9R i-Shift সিরিজের বিজনেস ক্লাস এসি কোচ । 

 ভাড়া : ১৩০০ টাকা 


"ঢাকা-সিলেট/মৌলভীবাজার/সুনামগঞ্জ" রুটে চলাচলরত  HINO AK1J ননএসি কোচ রয়েছে । এই রুটে আপনারা ৩৬/৩৭/৪০ আসন বিশিষ্ট আরামদায়ক ননএসি কোচের দেখা পাবেন । 

বাসটির রেজিস্ট্রেশন নম্বর : ঢাকা মেট্রো ব : ১৫-২৯৭৫

সিলেট বিভাগের রুটগুলো ও ভাড়া :: 

ঢাকা-শ্রীমঙ্গল-মৌলভীবাজার -> ৪৭০ টাকা /- 

ঢাকা-সিলেট -> ৫৭০ টাকা /- 

ঢাকা-সুনামগঞ্জ -> ৬৫০ টাকা /- 

বিদ্রঃ আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদের জানাচ্ছি হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম।

"ঢাকা-বান্দরবান" রুটে চলাচল করে Hino AK1J ননএসি কোচ । বাসটি ৩৬ আসন বিশিষ্ট  

জন প্রতি আসন ভাড়া ৭০০ টাকা /-


ঢাকা বাস নেটওয়ার্ক স্টাডির (ডিটিসিএ’র অধীনে) একটি গবেষণা অনুযায়ী, প্রতিদিন ৩০ শতাংশ মানুষ বাসে ভ্রমণ করে, ৩৮.৩০ শতাংশ মানুষ নির্ভর করে রিক্সার ওপর, ১৯.৮০ শতাংশ মানুষ হাঁটে, ৬.৬০ শতাংশ সিএনজি ভাড়া করে, ৫.১০ শতাংশ মানুষ ব্যক্তিগত গাড়ি এবং ০.২০ শতাংশ মানুষ যাতায়াতের জন্য ট্রেন ব্যবহার করে।

বাস র‍্যাপিড ট্রানজিট সিস্টেম


এই পরিকল্পনাটি গাজীপুর এবং ঢাকা বিমানবন্দরের মধ্যকার চলাচলকে স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ করতে হাতে নেয়া হয়েছে। এটি বাস্তবায়িত হলে এই পথটুকু অতিক্রম করতে সময় লাগবে মাত্র ২০ মিনিট।

বিআরটি প্রজেক্টের অধীনে বাসগুল বিদ্যমান ছয় লেনের রাস্তায় একটি নির্দিষ্ট লেন ধরে চলবে।
বিআরটি প্রজেক্টটি দুই ভাগে বিভক্ত: একটি গাজীপুরের শিববাড়ি থেকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত। অন্যটি বিমানবন্দর থেকে কেরানীগঞ্জ পর্যন্ত।
বিআরটির প্রথম ধাপের নকশা অনুযায়ী, শিববাড়ি-বিমানবন্দরের ২০.৫ কিলোমিটার রাস্তাটিতে ২৫টি স্টপেজ, ছয়টি ফ্লাইওভার, টঙ্গীর তুরাগ নদীর ওপরে একটি আট লেনের ব্রিজ এবং টঙ্গী থেকে উত্তরাতে ৪.৫ কিলোমিটারের একটি এলিভেটেড রাস্তা থাকবে।
প্রতি ঘন্টায় ১০০টি বাসে প্রায় ২৫ হাজার মানুষ রাস্তার দুইপাশে চলাচল করতে পারবে। প্রত্যেক স্টপেজে প্রতি তিন মিনিট অন্তর বাস পাওয়া যাবে।
যাত্রীরা একটি প্রদত্ত স্মার্ট কার্ডের মাধ্যমে সেবাটি গ্রহণ করতে পারবে এবং প্রত্যেকেরই আবশ্যিকভাবে ইনস্যুরেন্স পলিসি থাকবে।

বিদ্রঃ আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদের জানাচ্ছি হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম। 

ভ্রমণকে আরও সুরক্ষিত ও নিরাপদ করতে সহজ নিয়ে এসেছে আরও উন্নত ইন্স্যুরেন্স সুবিধা। সহজ-এ বাস টিকেট কাটার সময় মাত্র ১০ টাকা অ্যাড করে পেয়ে যান ২,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত ইন্স্যুরেন্স সুবিধা। এই ইন্স্যুরেন্সের আওতায় পড়ছে জীবন বীমা, দুর্ঘটনায় আহত বীমা, ভ্রমণ পরবর্তী বীমা এবং কোভিড-১৯ বীমার সুবিধা! বাসের সবচেয়ে সাধারণ প্রকারটি হ'ল একক-ডেক রিজিড বাস। ডাবল-ডেকার এবং আর্টিকুলেটেড বাসগুলি দ্বারা বৃহত্তর লোড বহন করা হয়, এবং ছোট লোড, মধ্যবাস ও মিনিবাসগুলি দ্বারা পরিচালিত হয়। কোচ দীর্ঘ দূরত্ব পারিসেবার জন্য ব্যবহার করা হয়। অনেক ধরনের বাস হয়, যেমন নগর ট্রানজিট বাস এবং ইন্টার-সিটি কোচ, এগুলি একটি ভাড়া বহন করে। 


জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পর এবার ডিজেলচালিত বাস-মিনিবাসের ভাড়া বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।


প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, প্রতি কিলোমিটারে দূরপাল্লার বাসে ১.৪২ এর বদল নতুন ভাড়া ১.৮০ টাকা। ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীর ক্ষেত্রে ১.৭০ টাকার জায়গায় ২.১৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

সর্বনিন্ম ভাড়া বাসে ১০ টাকা এবং মিনিবাসে ৮ টাকা হবে।

দূরপাল্লার বাসের ভাড়া বাড়ল ২৭ শতাংশ, মহানগরের বাসের ভাড়া বাড়ল ২৬.৫ শতাংশ। সব মিলিয়ে গড় ভাড়া বাড়ল ২৬.৭৫ শতাংশ।

ডিজেলের দাম ভাড়ার প্রেক্ষিতে বাস ভাড়া আদায়ে অনিয়মের অভিযোগে এই নতুন ভাড়ার তালিকা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ।তবে তেলের দাম বাড়ানোর পর শুরু থেকেই পরিবহন মালিক ও সংশ্লিষ্টরা বলছিলেন, ডিজেলের দাম না কমানো হলে গণপরিবহনসহ অন্যান্য পরিবহনে ভাড়া সমন্বয় করতে হবে।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।
ভাড়া নৈরাজ্য ঠেকাতে প্রকাশিত ওই ভাড়ার তালিকায় বিআরটিএ উল্লেখ করেছে, ‘পেট্রল, অকটেন ও সিএনজি গ্যাস চালিত বাসে নতুন এই ভাড়ার তালিকা প্রযোজ্য হবে না। সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা করে এই তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে বলে এতে বলা হয়েছে।

লঞ্চের ভাড়াও কিলোমিটার প্রতি ৬০ পয়সা বাড়ানো হয়েছে। নতুন ভাড়া এখন কিলোমিটার প্রতি হয়েছে ২ টাকা ৩০ পয়সা। যেটা কিনা আগে ১ টাকা ৭০ পয়সা ছিল।

বাংলাদেশের বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় বলছে ডিজেল ও কেরোসিনের মূল্য প্রতি লিটারে ভোক্তা পর্যায়ে ৬৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০ টাকায় নির্ধারণ করা হয়েছে এবং এটি বুধবার মধ্যরাত থেকেই কার্যকর হয়েছে।সরকারের তথ্য অনুযায়ী গত পহেলা নভেম্বর ভারতে ডিজেলের বাজার মূল্য প্রতি লিটারে ১২৪ টাকা ৪১ পয়সার বিপরীতে বাংলাদেশে ডিজেলের মূল্য ৬৫ টাকা অর্থাৎ প্রায় ৫৯ টাকা কম।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।


এছাড়া বর্তমান ক্রয় মূল্য বিবেচনা করে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন ডিজেলে লিটার ১৩ দশমিক ০১ টাকা এবং ফার্নেস অয়েলে লিটার প্রতি ৬ দশমিক ২১ টাকা কমে বিক্রি করায় প্রতিদিন ২০ কোটি টাকা লোকসান দিচ্ছে।অক্টোবর মাসেই ৭২৬ টাকার কোটি লোকসান হয়েছে বলে মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে।
বাংলাদেশে সর্বশেষ ২০১৬ সালের এপ্রিলে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছিলো।

সরকার নিয়ন্ত্রিত অয়েল মার্কেটিং কোম্পানিগুলো (ওএমসি) ২০২১ সালের জুন মাসেই একটানা প্রায় বাইশ দিন ধরে রোজ পেট্রল ও ডিজেলের দাম বাড়িয়ে চলেছে।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।


যার ফলে রাজধানী দিল্লির বাসিন্দারা ইতিহাসে এই প্রথমবার প্রতি লিটার আশি রুপিরও বেশি দাম দিয়ে পেট্রল ও ডিজেল দুটোই কিনতে বাধ্য হচ্ছেন।


মুম্বাই বা ভোপালে পেট্রলের দাম প্রায় নব্বই টাকা লিটারে পৌঁছে গেছে।
লঞ্চের সর্বনিম্ন ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ টাকা।

এইদিকে গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের 'হাফ পাস' বা অর্ধেক ভাড়ার দাবির প্রেক্ষিতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বাসভবন থেকে ভিডিওবার্তার মাধ্যমে এই ঘোষণা দিয়েছেন।
সেতুমন্ত্রী বলেন, "পরিবহন ভাড়ায় ছাড়ের জন্য শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে সারা দেশে বিআরটিসি বাসে শিক্ষার্থীদের ভাড়া শতকরা ৫০ ভাগ কমানোর সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।
পহেলা ডিসেম্বর থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়
এছাড়াও ট্রাফিক জ্যামের সমস্যা একটি অন্যতম সমস্যা ঢাকা মহাসড়কে ট্রাফিক জ্যামের কারণে ঢাকা শহরে গাড়ির গতি এখন মানুষের হাঁটার গতির চেয়ে কম। তাতে সময় ও অর্থ যেমন নষ্ট হচ্ছে তেমনি শহরের বাসিন্দারা ট্রাফিক জ্যামে বসে বসে নানা স্বাস্থ্য সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন।ট্রাফিক জ্যামের কারণে ঢাকা শহরে গাড়ির গতি এখন মানুষের হাঁটার গতির চেয়ে কম। তাতে সময় ও অর্থ যেমন নষ্ট হচ্ছে তেমনি শহরের বাসিন্দারা ট্রাফিক জ্যামে বসে বসে নানা স্বাস্থ্য সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন।

ঢাকার একাধিক রুটে অসংখ্য সিটি বাস চলাচল করে। যাত্রীদের সেবার মান অনুযায়ী ঢাকায় তিন ধরনের বাস সার্ভিস রয়েছে। এগুলো হল সিটিং সার্ভিস, কাউন্টার সার্ভিস ও লোকাল বাস সার্ভিস।সিটি সার্ভিসের গাড়িগুলো সকাল ৬টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত অবিরামভাবে চলাচল করে। তবে কাউন্টার সার্ভিসের গাড়িগুলো সকাল ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলাচল করে থাকে।আজিমপুর ইডেন কলেজের সামনে থেকে কুড়িল বিশ্বরোড পর্যন্ত চলাচলকারী গাড়িগুলো হল উইনার ট্রান্সপোর্ট কোঃ লিঃ ও দ্বীপ বাংলা পরিবহন লিঃ। এগুলো কলাবাগান, কাওরান বাজার, বাড্ডা লিঙ্ক রোড হয়ে চলাচল করে।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।
দ্বীপ বাংলা পরিবহন লিঃ আজিমপুর থেকে সিটি কলেজ, কলাবাগান, পান্থপথ, কাওরান বাজার, নাবিস্কো, গুলশান লিংক রোড ও গুলশান ১ হয়ে কুড়িল বিশ্বরোড পর্যন্ত চলাচল করে। কিন্তু দ্বীপ বাংলা পরিবহন সাময়িক ভাবে বন্ধ আছে।

তবে উইনার ট্রান্সপোর্ট কোঃ লিমিটেডের গাড়িগুলো একইভাবে নাবিস্কো পর্যন্ত যাওয়ার পর মহাখালী হয়ে গুলশান ১ দিয়ে কুড়িল বিশ্বরোড পর্যন্ত চলাচল করে।আজিমপুর টু উত্তরা হাউজ বিল্ডিং/আবদুল্লাহপুর পর্যন্ত চলাচল করে সূচনা বি.আর.এফ, ফাল্গুন আর্ট ট্রান্সপোর্ট (প্রাঃ) লিঃ ও বিআরটিসি পরিবহন।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

সূচনা বি.আর.এফ আজিমপুর এতিমখানা মোড় থেকে ছেড়ে কলাবাগান, আসাদগেট, ফার্মগেট, মহাখালী, বনানী, হয়ে উত্তরা হাউজ বিল্ডিং পর্যন্ত চলাচল করে। ইহা সাময়িক ভাবে বন্ধ আছে।

ফাল্গুন আর্ট ট্রান্সপোর্ট (প্রাঃ) লিঃ আজিমপুর গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের সামনে থেকে ছেড়ে সায়েন্সল্যাব, শাহবাগ, কাকরাইল, মৌচাক, মালিবাগ, রামপুরা, বাড্ডা, কুড়িল বিশ্বরোড হয়ে উত্তরা হাউজ বিল্ডিং পর্যন্ত চলাচল করে।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

বিআরটিসি পরিবহনের গাড়িগুলো ইডেন কলেজের সামনে থেকে ছেড়ে সায়েন্সল্যাব, কলাবাগান, আসাদগেট, খামারবাড়ী, কাকলী, বনানী হয়ে আবদুল্লাহপুর পর্যন্ত চলাচল করে। ইহা সাময়িক ভাবে বন্ধ আছে।মোহাম্মদপুর থেকে মতিঝিলের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া গাড়িগুলো হল রাজা সিটি পরিবহন লিঃ, এফ টি সি এল, মৈত্রী পরিবহন লিঃ ও এটিসিএল।

রাজা সিটি পরিবহন লিঃ, এফ টি সি এল ও মৈত্রী পরিবহন লি এর গাড়িগুলো মোহাম্মদপুর থেকে ছেড়ে শংকর, স্টার কাবাব, ঝিগাতলা, সিটি কলেজ, সাইন্সল্যাব, শাহবাগ, প্রেসক্লাব, গুলিস্তান হয়ে আরামবাগ নটরডেম কলেজ পর্যন্ত চলাচল করে।টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

এটিসিএল পরিবহনের গাড়িগুলো মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে ছেড়ে আসাদগেট, শুক্রাবাদ, কলাবাগান, সিটি কলেজ, সাইন্সল্যাব, কাঁটাবন, শাহবাগ, প্রেসক্লাব, গুলিস্তান হয়ে আরামবাগ নটরডেম কলেজ পর্যন্ত চলাচল করে।

মিরপুর ১৪ থেকে খিলগাঁও তালতলা মার্কেট পর্যন্ত চলাচল করে বাহন পরিবহন লিঃ। এই পরিবহনের গাড়িই মিরপুর ১৪ থেকে ছেড়ে মিরপুর ১০, মিরপুর ১, টেকনিক্যাল, কল্যানপুর, আসাদগেট, সায়েন্সল্যাব, শাহবাগ, প্রেসক্লাব, মতিঝিল, কমলাপুর, মুগদা হয়ে খিলগাঁও পর্যন্ত চলাচল করে।

নিসর্গ পরিবহন লিঃ মিরপুর ১৪ বাসস্ট্যান্ড থেকে ছেড়ে মিরপুর ১০ কাজীপাড়া, আগারগাঁও, শ্যামলী, আসাদগেট, মোহাম্মদপুর, ধানমন্ডি ১৫, ঝিগাতলা, সায়েন্সল্যাব, ঢাকা কলেজ, নিউ মার্কেট, নীল ক্ষেত, ইডেন কলেজ হয়ে আজিমপুর পর্যন্ত চলাচল করে।
মিরপুর ১৪ বাসষ্ট্যান্ড থেকে কাকলী বনানী পর্যন্ত চলাচলকারী একমাত্র গাড়ি হল ক্যান্টনমেন্ট মিনি সার্ভিস। ক্যান্টনমেন্ট মিনি সার্ভিস মিরপুর ১৪ থেকে কচুক্ষেত, সৈনিক ক্লাব হয়ে কাকলী – বনানী পর্যন্ত চলাচল করে।
হানিফ পরিবহন একটি জনপ্রিয় ট্রান্সপোর্টেসন। হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে আজকের পোস্টটি। 

হানিফ পরিবহনের গড়ে ওঠার গল্প -


হানিফ পরিবহন বর্তমানে অন্যতম সেরা বাস সার্ভিসের মধ্যে একটি।হানিফ পরিবহনের শুরু থেকে গড়ে ওঠার গল্প হয়ত অনেক কম মানুষ ই জানেন। হানিফ পরিবহনের প্রতিষ্ঠাতা জয়নুল আবেদীনের দুই ছেলেকে সবাই চিনলেও তাকে খুব কম মানুষ ই চেনেন কারণ তিনি সবসময় গণমাধ্যম এড়িয়ে চলেন।সেবা খাতের সফল উদ্যোক্তা হানিফ পরিবহনের মালিক জয়নাল আবেদীনের উঠে আসার গল্প এক সময় মাত্র একটি ট্রাক ছিল তার। এখন তিনি একে একে ১২শ’ বাসের মালিক।তার হাত ধরেই বিকশিত হয়েছে দেশের পরিবহন খাত। গণপরিবহনে তার ভূমিকা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে সবাই। এলাকার মানুষ তাকে ডাকেন জয়না মহাজন নামে। জয়নাল আবেদীনের জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকার সাভারে। মাত্র একটি ট্রাক নিয়ে পথ চলা শুরু। পরবর্তীতে শুরু কোচ ব্যবসা। গড়ে তোলেন পরিবহন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ‌‘হানিফ এন্টারপ্রাইজ’। ছোট ছেলে হানিফের নামেই গড়ে তুলেছিলেন হানিফ এন্টারপ্রাইজ।বর্তমানে হানিফ এন্টারপ্রাইজে প্রায় ৫০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান রয়েছে।হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম ও খুব সহজ এবং ঘরে বসে সম্পন্ন করা সম্ভব।সততা, বিশ্বস্ততা আর নির্ভরতার প্রতীকে পরিণত হয়েছেন জয়নাল আবেদীন। আজ অনেকেই তার দুই ছেলেকে চেনেন। আর এখানেই তার আনন্দ।
যেকোনো জেলায় হানিফ পরিবহনের অনলাইনে টিকেট কাটার নিয়ম একই এবং খুবই সহজ। যেকোনো সময় আমরা আমাদের প্রয়োজনে শ্যামলী পরিবহনে অনলাইনে টিকেট কাটতে পারি এবং ভ্রমন করতে পারি।

হানিফ এন্টারপ্রাইজের প্রতিষ্ঠাতা জয়নাল আবেদিন মারা গেছেন। ৮৫ বছর বয়সে কোভিড আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ সেপশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১১ নভেম্বর রাত ৮ টার দিকে মৃত্যুবরণ করেন।জয়নাল আবেদীন সবার কাছে ‘ফাদার অব ট্রান্সপোর্টেশন’ হিসেবে পরিচিত। সংগ্রামী মানুষটি একটি ট্রাক থেকে এখন ১২শ’ বাসের মালিক। তিনি হানিফ এন্টারপ্রাইজের স্বপ্নদ্রষ্টা।
বিদ্রঃহানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।
 

লেখকের মন্তব্য : 

এখন যেহেতু আমাদের ঝামেলা মুক্ত, সঠিক উপায়ে আমাদের গন্তব্যের টিকিট পাওয়ার এই অসাধারণ সুযোগ রয়েছে সেহেতু এটি আমাদের জীবনকে আগের চেয়ে সহজ করে দিয়েছে। এখন আপনার টিকিট বুক করার জন্য কাউন্টারে ছুটে যাওয়ার জন্য আপনার গুরুত্বপূর্ণ মিটিং বা পারিবারিক পার্টিই।

মিস করার দরকার নেই। শুধু আপনার ফোনে তাদের এপ্স অথবা ওয়েবসাইট ব্রাউজ করুন, এবং অনলাইন বাস টিকিট বুকিং করুন আর আপনার হাতের কাছেই টিকিট পেয়ে যান সহজেই।হানিফ বাস বর্তমানে সময়ে প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে অত্যাধুনিক ডিজাইনের বাসগুলো রাস্তায় রিলিজ করছে যা দেখলে তাকিয়ে থাকতে ইচ্ছে করে এত সুন্দর।তাছাড়া হানিফ পরিবহনে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম অনেক সহজ বলে প্যাসেঞ্জার দের পছন্দের শীর্ষে বাসটি।

২০১১ সাল থেকে বাংলাদেশের রাস্তায় এই পরিবহন চলাচল শুরু করে। তাছাড়া যেকোনো জেলায় হানিফ পরিবহনে অনলাইনে টিকেট কাটার নিয়ম একই এবং খুবই সহজ। যেকোনো সময় আমরা আমাদের প্রয়োজনে শ্যামলী পরিবহনে অনলাইনে টিকেট কাটতে পারি এবং ভ্রমন করতে পারি। বর্তমানে হানিফ এন্টারপ্রাইজের মোট ১২শ বেশি বাস রয়েছে। দেশের প্রায় প্রতিটি জেলায় এই বাস যাত্রীদের সেবা দিয়ে আসছে। যেকোনো দূরপাল্লা গন্তব্যে যাওয়ার সময় সবাই আগে হানিফ পরিবহন বেছে নেন।তাই আজ হানিফ পরিবহনের সম্পর্কে লিখলাম যারা এটির বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে অবগত হতে চান হানিফ পরিবহনের বাস ভাড়ার থেকে শুরু করে কাউন্টার নাম্বার,কাউন্টারের ঠিকানা,মোবাইল নং ইত্যাদি সম্পর্কে উপরের লেখা থেকে  নিশ্চয়ই জানতে পেরেছেন। 
আরো বিভিন্ন বিষয়ে জানতে আমাদের সাথেই থাকবেন এবং আমাদের অন্যান্য পোষ্ট গুলো পড়লেও আপনাদের অনেক বিষয়ের আগ্রহ মিটবে বলে আশা করি।ধন্যবাদ এতক্ষণ ধৈর্য্য নিয়ে পড়ার জন্য।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?