The DU Speech https://www.duspeech.com/p/training-class.html

ট্রেইনিং ক্লাস

ট্রেইনিং ক্লাসগুলো ৮ টি ক্লাসে বিন্যাস করা হয়েছে। প্রথম ৪ টি ক্লাসে আর্টিকেল লেখার বিভিন্ন নিয়ম শেখানো হবে এবং পরবর্তী ৪ টি ক্লাসে আমরা সফলভাবে ৪ টি আর্টিকেল লিখে কোর্স সম্পূর্ণ করব। প্রতিটি ক্লাসের ভিডিওগুলো না টেনে দেখবেন। প্রথম ০৪ টি ক্লাস সফলভাবে শেষ করলে সকল নিয়ম মেনে ৪ টি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার পর কোর্সের জামানত ফি ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে।

আর্টিকেল লেখা শেষ হলে আর্টিকেল পাবলিশ না করে এডমিনকে মেসেজ করবেন। আমরা কনফার্ম করার পরই পাবলিশ করতে পারবেন। নিচের ট্রেইনিং ক্লাসের ভিডিওগুলো মনোযোগ দিয়ে দেখুন।


সূচীপত্র 

  1. প্রথম ট্রেনিং ক্লাস 
  2. দ্বিতীয় ট্রেনিং ক্লাস 
  3. তৃতীয় ট্রেনিং ক্লাস 
  4. ৪র্থ ট্রেনিং ক্লাস 
  5. গুরুত্বপূর্ণ কিছু নিয়ম
  6. নতুন নিয়ম
  7. ৫ম-৮ম ট্রেনিং ক্লাস 
  8. আর্টিকেল সাবমিট করার নিয়ম
  9. নীতিমালা 
  10. কিছু গুরুত্বপূর্ণ কোড 
  11. কয়েকটি আদর্শ আর্টিকেল 

১.প্রথম ট্রেইনিং ক্লাস

(হলের পাশে রাস্তা থাকায় বাইরের একটু নয়েজ রয়েছে ভিডিওতে)

ইনভাইটেশন একবার একসেপ্ট করার পর দ্বিতীয়  বার একসেপ্ট করা সম্ভব না,  ইনভ্যালিড দেখাবে তাই ভিডিও দেখার পর ইনভাইটেশন একসেপ্ট করবেন। এটা খুবই সতর্কতার  সাথে সমাপ্ত করবেন।

(কোড লাগবে না,  নিজের সম্পূর্ণ নাম ব্যবহার করুন)

  1. ইনভাইটেশন একসেপ্ট করে আমাদের ওয়েবসাইটে এসে লিখবেন যেভাবে (ভিডিও: ১১মিনিট ১৪ সেকেন্ড)
  2. আপনার প্রোফাইল সেট-আপ করবেন যেভাবে (৩মিনিট ৫১ সেকেন্ড)
  3. আর্টিকেলের টাইটেল বা শিরোনাম কীভাবে লিখবেন? (৫:৫৮)
  4. পারমালিংক ও লেবেল এড করার নিয়ম(৪:৫৫)
  5. ভূমিকা লেখার নিয়ম (৫:৫০)
  6. এলাইনমেন্ট লেখার নিয়ম (৩:৩৩)
  7. নতুন ট্যাব ব্যবহারের নিয়ম(৩:৩২)
  8. আর্টিকেল লেখার সেকশনে যাওয়ার উপায় | ইনভাইটেশন ইনভ্যালিড কেন দেখায়?(৩:৪৯)

২.দ্বিতীয় ট্রেইনিং ক্লাস

(দ্বিতীয় ট্রেইনিং ক্লাস শুরু করার আগে আপনাকে Pixellab এপস্ ও  কালপুরুষ ফন্ট ডাউনলোড (বাংলা লেখকদের জন্য) করবেন। কালপুরুষ ফন্ট Extract করার চেষ্টা করুন। Extract না হলেও সমস্যা হবে না।) 
  1. আর্টিকেলের সূচীপত্র এড করার নিয়ম (২২:১৯)
  2. আরও পড়ুন সেকশন এড করার নিয়ম (১২:০১)
  3. দ্রুততম সময়ে আর্টিকেল লেখার কার্যকরী টিপস্(6:52) 

৫.কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম

আর্টিকেল লেখা শুরুর আগে এবং সাবমিট করার পূর্বে এই ভিডিওটি দেখুন

৭. পঞ্চম থেকে অষ্টম ট্রেইনিং ক্লাস

(সফলভাবে ৪টি আর্টিকেল লিখে জমা দেওয়ার প্র‍্যাকটিস)
আর্টিকেল লেখার টপিক আপনি নিজেই সিলেক্ট করে লিখবেন। কীভাবে টপিক সিলেক্ট করবেন তা জানতে নিচের  লিংকের ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন।

৮. আর্টিকেল সাবমিট করার নিয়ম

নিচের লিংকে গিয়ে আপনাকে টপিক নিতে হবে। এখানে প্রথম লিংকটি হলো ট্রেইনিং টপিক এর লিংক এবং দ্বিতীয়টি জব টপিক এর লিংক।  এই বিষয়ে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন

প্রদত্ত টপিকে আর্টিকেল ওয়েবসাইটে গিয়ে লিখে সেভ করে আমাদের জানাবেন। কখনই পাবলিশড করা যাবে না। আমরাই পাবলিশ করবো।

ট্রেনিংয়ের ৪টি আর্টিকেল লেখা সম্পূর্ণ হলে নিচের নিয়মে হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ করবেন।

''4 articles are submitted for review"
"আর্টিকেল এর টাইটেল"
ওয়েব সাইটে প্রদত্ত "আপনার নাম"

জবের ক্ষেত্রে ৬০ / ৩০/ ১৫ টি আর্টিকেল লেখা সম্পূর্ণ হলে নিম্নোক্ত নিয়মে মেসেজ করবেন-
''60/30/15  articles are submitted for review'
"আর্টিকেল এর টাইটেল"
ওয়েব সাইটে প্রদত্ত "আপনার নাম"
"বিকাশ|নগদ নম্বর"

৯. নীতিমালা জেনে নিন

  • কোন ভুল তথ্য দিয়ে পাঠককে বিভ্রান্ত করা যাবে না। যে মাধ্যম থেকে আপনি তথ্য সংগ্রহ করেছেন প্রয়োজনে তার সূত্র উল্লেখ করুন।
  • বিশ্বস্ত ইউটিউব চ্যানেল বা ওয়েবসাইট থেকে তথ্য সংগ্রহ করবেন। মনে রাখবেন আপনার লেখার সাথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম জড়িত। তাই বানানের ব্যাপারেও সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। আর্টিকেল লেখা শেষ হলে রিভাইজ করে দেখুন কোন বানান ভুল আছে কিনা?
  • একটি বাক্যও কপি করা যাবে না। তবে আইডিয়া কপি করা যাবে। মনে করুন কয়েকজন একটি সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর গাইড থেকে পড়েছেন শুধু ধারনা নেওয়ার জন্য। এখন পরীক্ষার খাতায় সবার উত্তর কিন্তু এক হলেও ভাষা সবারই আলাদা আলাদা হবে। বিষয়টি ঠিক এমনই। 
  • এমনভাবে আর্টিকেল লিখুন যেন তা পাঠকের মনোযোগ ধরে রাখতে সক্ষম হয়। পাঠক যেন শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আর্টিকেলটি পড়ে।
  •  আর্টিকেলের তথ্য গুগল এবং ইউটিউব থেকে সংগ্রহ করতে হবে। উক্ত বিষয়ে যদি নিজের অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে নিজের মতো করেও লেখা যাবে।
  • ইউটিউব থেকে আপনি খুব সহজেই তথ্য পেয়ে যাবেন।
  • আর্টিকেল লেখার সময় বেশি বেশি লিস্ট ট্যাগ ব্যবহার করুন। এতে পাঠকের মনোযোগ ধরে রাখা যায়।
  • ছোট ছোট প্যারা ব্যবহার করে লিখবেন। বড় প্যারায় লেখা নিষিদ্ধ এতে পাঠক বিরক্ত হয়। 
  • আপনার লেখার মধ্যে ছোট ছোট শিরোনাম ব্যবহার করে লিখুন।
  • লেখায় অযথা কঠিন  ভাষা ব্যবহার করবেন না।
  • এমনভাবে লিখবেন যেন পাঠক মনে করে আপনি তার সাথে গল্প করছেন। বুঝেছেন, তো?
  • একটি আর্টিকেলের প্রধান বিষয় হলো কি-ওয়ার্ড সেট-আপ। যত বেশি বার পারেন প্রাসঙ্গিকভাবে কি-ওয়ার্ড সেট-আপ করুন। কি-ওয়ার্ড সেট-আপ এর উপর আর্টিকেলের র‍্যাংকিং নির্ভর করে। এই ভেতরের গাঠনিক বিষয়ে একজন সাধারণ পাঠক অজ্ঞ। কিন্তু এই বিষয় আপনাকে মনে রেখে আর্টিকেল লিখতে হবে। আবার খুব বেশি কি-ওয়ার্ড সেট-আপ করবেন না, যা দেখে একজন পাঠক বিরক্ত হবে। 
  • এক মাসে ৬০টি আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে।   
  • অসুস্থ্যতা/পরীক্ষা/অনান্য সমস্যায় পড়লে বাড়তি ১০ দিন সময় দেওয়া হবে অর্থাৎ, ৩০+১০=৪০ দিনের মধ্যে আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে। 
  • আমরা সময়ের ক্ষেত্রে খুবই সচেতন। আপনি দেরি করে জমা দিলে বা কোন অজুহাত দেখালে কোন কাজ হবে না। আপনাকে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই আর্টিকেল লিখে জমা দিতে হবে নতুবা  The DU Speech এর সিদ্ধান্ত আপনাকে মেনে নিতে হবে। 
  • কোন লেখা কপি পেলে এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আর্টিকেল জমা দিতে ব্যর্থ হলে সাথে সাথে আপনার জামানত ফি  এবং লেখক হওয়ার এক্সেস বাতিল হয়ে যাবে এবং আপনার বিরুদ্ধে আইনানুগ  ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  
  • প্রতিটি আর্টিকেল ন্যূনতম ১ হাজার শব্দের হতে হবে। তবে ট্রেনিং টাস্কের ৪ টি আর্টিকেল ৩ হাজার শব্দের লিখতে হবে।
  • ইমেজ ওয়েবসাইটে আপলোড করার পূর্বে ইমেজের সাইজ কমিয়ে ২০kb এর মধ্যেই করতে হবে। এই ওয়েবসাইট থেকে ইমেজের সাইজ কমিয়ে নিতে পারবেন।
  • আপনার লেখা প্রতিটি আর্টিকেল ফেসবুকসহ সকল সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে হবে। আপনার আর্টিকেল যেন অন্যরা পড়তে পারে।
  • আপনি যদি ঠিক মতো ইমেজ এডিট করতে ব্যর্থ হন তাহলে প্রতিটি আর্টিকেলে ১৬ টাকা করে কেটে নেওয়া হবে।
  •  আমাদের নীতিমালা পরিবর্তনশীল। তাই লেখকদের নিয়মিত নীতিমালা চেক করতে হবে ।

১০. কিছু গুরুত্বপূর্ণ কোড 


১১. কয়েকটি আদর্শ আর্টিকেলের লিংক

নিচে কয়েকটি আদর্শ দেওয়া হল। যে আর্টিকেলগুলো পড়লে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনাকে ঠিক কেমন আর্টিকেল লিখতে হবে। তাই নিচের কয়েকটি আর্টিকেল মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?