The DU Speech https://www.duspeech.com/2021/03/blog-post_8.html

জেনে নিন ব্লগ পোস্টে যেভাবে হেডিং ব্যবহার করলে সবাই আকর্ষিত হবে!

 আমরা একবিংশ শতকে দাড়িয়ে একটি ডিজিটাল প্লাটফর্ম এ বসবাস করছি।এই যুগে আমাদের সবকিছুই প্রায় ভার্চুয়াল ভিত্তিক হয়ে দাড়িয়েছে।অর্থ উপার্জন থেকে শুরু করে বিনোদন সবকিছুতেই আমরা দিন দিন ইন্টারনেটে র উপর  নির্ভর হয়ে পরেছি।আর এই ইন্টারনেটের সবচেয়ে এক্সক্লুসিভ কনন্টেট হলো ব্লগ রাইটিং ওয়েবসাইট । ব্লগিং ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আমরা আমাদের মেধা ও শ্রম কে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন কন্টেট তৈরি করে থাকি।কিন্তু শুধু কন্টেন্ট বানালেই তো আর হবে না বন্ধুরা তাই না? এর পাশাপাশি আমাদের যেটি প্রয়োজন সেটি হলো ভালো একটি প্লার্টফর্ম ব্যবহার করে সেই কন্টেন্ট গুলোকে আপলোড করা।একটা কথায় আমরা বাঙ্গালী রা অভ্যস্ত। সেটি হলো,আগে দর্শন তারপর গুনবিচারি।আমাদের ওয়েবসাইট এর জন্য প্রয়োজন ভালো একটি হেডিং বা টাইটেল ( Title) ।ভালো টাইটেল ব্যাবহার করলে আমরা ভালো একটা প্রফেশনাল এর মতো ব্লগ বানিয়ে ফেলতে পারব যেটি কিনা সবাইকে আকর্ষন করবে।

আজকের এই পোস্ট এর টাইটেল দেখেই বন্ধুরা হয়তো বুঝে গেছেন যে আজকের পোস্টটি কি নিয়ে।হ্যা! বন্ধুরা আজকে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব যে কিভাবে আমরা আমাদের ব্লগের এর জন্য একটি ভালো টাইটেল বা Heading  ব্যাবহার করতে পারি।অর্থাৎ আমাদের ব্লগিং এর জন্য মানসম্মত  একটি Heading দরকার আমরা দেখে নিব এই পোস্টে।যে Heading  গুলো সবাইকে আকর্ষন করবে।তো বন্ধুরা আর দেরি না করে আসুন শুরু করা যাক আজকের এই ব্লগিং এর হেডিং বিষয়ক এই পোস্ট টি।

কেন মানম্মত হেডিং দরকার? 

আমরা অনেকেই যারা ব্লগ লিখি তাদের মাঝে অনেক সময় দেখা যায় যে ব্লগিং এর অংশ টুকু খুব ভালোভাবে লিখলেও বাইরে যে Heading দেওয়া লাগে সেটিং দিকে খেয়াল রাখে না। এতে করে হয় কি, যে পাঠক Heading এর অংশ টুকুই পরে পোস্ট টার প্রতি একটা অনিহা চলে আসে এতে করে আর পুরো ব্লগপোস্ট টি আর পড়ে দেখে না। তাই আমাদের এমন কিছু Heading ব্যাবহার করতে হবে আমাদের ওয়েবসাইট এ যাতে করে সবাই এর প্রতি আকর্ষিত হয়। কয়েক শব্দের মধ্যেই আমাদের এই হেডিং বা টাইটেল যাই বলি না কেন সেটার কাজ শেষ করতে হবে।

কমন শব্দ ব্যাবহার না করা-

আমরা অনেকেই আছি যারা কিনা কমন শব্দ ব্যাবহার করে থাকি আমাদের ব্লগ পোস্ট এ। এবং আমাদের পোস্ট এর Heading এও আমর জুড়ে দেই কমন কিছু শব্দ।কিন্তু বন্ধুরা এইটা করা একেবারেই ঠিক না।কেননা কেউ যখন কোনো কিছু লিখে গুগলে সার্চ দিবে তখন ইউজার রা খুজে খুজে বের করবে যে কোন ওয়েবসাইটটির ব্লগ আন কমন মনে হচ্ছে।যখন দেখবে যে আপনার  Heading এর ওয়েবসাইট টি অর্থাৎ পোস্ট টি একটু আনকমন ওয়ে তে লিখা তখন সবাই এর দিকেই ঝুকে যাবে।তাই বন্ধুরা আমারা যখন কোনো পোস্ট লিখব এবং যখন এর Heading ব্যবহার করব সেটি যেন হয় একেবারে আনকমন।

ইমোশনাল শব্দ ব্যাবহার করা-

আমাদের পোস্টটি তখন ই মানসম্মত হবে যখন কিনা এইটাই পাঠকের মন মানসিকতাকে পরিবর্তন করে দিতে পারবে। আর এইটি কেবল ই করা যায় ইমোশনাল শব্দ ব্যাবহার করার মাধ্যমে। আমরা যদি আমাদের ব্লগ পোস্ট এর Heading গুলোতে এমন কিছু শব্দ ব্যাবহার করি যাতে সে এই ব্লগ পোস্ট টি পড়তে বাধ্য হয় তবেই আমাদের পোস্ট লেখা স্বার্থক হবে।তাই আমাদের উচিত পোস্ট যেমন আমরা অনেক সময় নিয়ে ধৈর্য্য ধরে লিখি ঠিক তেমনি আমরা যদি একটু ভেবে চিন্তে ইমোশনাল শব্দ ব্যাবহার করে পোস্ট এর হেডিং ব্যবহার করে তবেই আমাদের পোস্ট টি প্রান পাবে।

হেড লাইনের লিস্ট করা-

আমরা কোনো কিছু পোস্ট এ লিখলে শুধু লিখতেই থাকি আর লিখতেই থাকি।কোনো ফর্মাটিং বা অন্য কিছুর দিকে খেয়াল রাখি না।কোনো পাঠক যখন আপনার হেডিং বা টাইটেল দেখে পোস্ট টিতে প্রবেশ করবে তখন পাঠক না পড়েই পুরো পোস্ট টি একবার করে স্ক্রল করে নেয়।এর মাঝে পাঠক দেখে নেয় যে তার চাওয়া পাওয়া সব কিছু এতে আছে কিনা।যদি থাকে তবে পুরো পোস্ট টি পাঠাক পড়ে থাকেন।তাই আমাদের উচিত আমরা ব্লগ পোস্ট টির Heading এর জন্য কিছু লিস্ট করে রাখা আমাদের পোস্টের একেবারে প্রথম দিকে।যাতে করে পাঠক ঢুকেই বুঝে ফেলে তার চাওয়া সবকিছু এতে উপস্থিত আছে কিনা।

শেষ কথা-

তো বন্ধুরা আশা করি উপরের পদ্ধতি গুলো ঠিকঠাক ভাবে অনুসরণ করলেই আপনি সঠিক ভাবে এই কাজটি করতে পারেন।এখন থেকে আশা করি আর পোস্ট এর Heading লিখা নিয়ে কোনো ঝামেলায় পরতে হবে না।আজ এই পর্যন্ত-ই।আবার অন্য একদিন কথা হবে অন্য কোনো বিষয় নিয়ে।সেই পর্যন্ত সবাই ভালো থাকবেন।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?