The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/08/gones-puja-poddhoti-.html

গণেশ পূজা পদ্ধতি ও মন্ত্র ২০২২

 অনেকেই গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২ সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা নেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের আজকের আর্টিকেলে গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা থাকবে। গণেশ পূজা ২০২২ সম্পর্কে জানতে সম্পূর্ণ আর্টিকেল মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। 



আর্টিকেল সূচীপত্র 

  1. গণেশ পূজা কি ২০২২
  2. গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২
  3. গণেশ পূজা কত তারিখে 
  4. গণেশ পূজা কীভাবে করতে হয়
  5. গণেশ পূজার মন্ত্র 
  6. গনেশ পূজার উপকরণ 
  7. গণেশ পূজার নিয়ম 
  8. গণেশ পূজা করলে কি হয়?
  9. গণেশ পূজার বই
  10. লেখকের মন্তব্য 

১. গণেশ পূজা কি? গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গণেশ পূজা গোটা ভারত উপমহাদেশের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ  পূজা। ভাদ্রমাসের শুক্লপক্ষ চতুর্থীকে 'গণেশ চতুর্থী'  বা 'গণেশ চৌথ' বলা হয়ে থাকে। গণেশ পূজা উপলক্ষ্যে সাজ সাজ রবে ভরে উঠে চারিদিক। দেবতাদের মধ্যে গণেশের স্থান সর্বোচ্চ হিসেবে অনেকেই মনে করেন। গণেশকে জ্ঞানের দেবতাও বলা হয়ে থাকে। 
গণেশ ভগবান শীব এবং পার্বতীর পূত্র। দেবতা গণেশ ভাদ্র মাসের শুল্কপক্ষের চতুর্থীতে জন্মগ্রহণ করেন এমনটাই শাস্ত্রে উল্লেখ আছে। এই রাতে চাঁদ দর্শনের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে অনেকে মনে করেন এতে চাঁদের কলঙ্ক নেওয়া হয়। ধুমধামের সাথে এই দিনে বিভিন্ন মণ্ডপে প্রতীমা স্থাপন করা হয়। এবং ১১ দিন পর এই প্রতীমা বিসর্জন দেওয়ার মধ্যমে আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ করা হয়। 
গণেশ পূজার মাধ্যমে অক্যাণ দূরীভূত করা হয়। কল্যাণ কামনা করা হয়। 

২. গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গণেশ পূজা পদ্ধতি সম্পর্কে এবার সহজ আলচনা করব আপনাদের সাথে। নীচে ধারাবাহিকভাবে গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২ নিয়ে নির্দেশনা দেওয়া হলো-
  • ওম গাং গনপতয়ে নমঃ মন্ত্র উচ্চারণের সাথে গণেশ পূজা শুরু হবে। 
  • আরতির থালায় সুগন্ধি ধূপ জ্বালিয়ে শুরু করুন পূজা।
  • চন্দণ কাঠের সামনে পান পাতার উপর সুপারি সাজিয়ে রাখুন।
  • আসনে প্রতীমা স্থাপনের পূর্বে কাপড় দিয়ে প্রতীমা জড়িয়ে রাখুন। 
  • প্রতীমা আনার পূর্বে বাড়িতে চাল চড়িয়ে দিবেন।
  • গণেশের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করার পর শুরু হবে পূজা।
  • ঋকবেদে বা গণেশ সুক্তায় পাবেন প্রাণ প্রতিষ্ঠার মন্ত্র। মন্ত্র পাঠ করে গণেশের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করুন।
  • এরপর শুরু হবে আরাধনা।
  • ১৬টি রিতির নামে গণেশ বন্দনা শুরু করুন।
  • ২১ টি মদক এবং ২১ টি দূর্বা ঘাস এবং লাল ফুল গণেশের সামনে রাখতে হবে।
  • মূর্তির মাথায় দিতে হবে লাল চন্দনের টিকা।
  • গণেশের মূর্তির সামনে নারিকেল ভেঙে দূর করতে হবে।
  • এরপর গণেশের মূর্তির সামনে করজোড়ে পরিবারের সুখ, সমৃদ্ধি এবং কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করতে হবে।
  • জপতে থাকুন 'ওঁ শ্রী গণেশায় নমঃ’ বা ‘ওঁ গাং গণেশায় নমঃ ওঁ শ্রী গণেশায় নমঃ’ বা ‘ওঁ গাং গণেশায় নমঃ।'

৩. গণেশ পূজা কত তারিখে? গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গনেশ পূজার তারিখ সাধারণত ভাদ্র মাসের  শুল্কপক্ষের চতুর্থ তিথিতে। 
  • চতুর্থী তিথি শুরু হবে ৩০ আগস্ট ২০২২ বিকাল ৩ টে বেজে ৩৩ মিনিটে।
  • চতুর্থীর তারিখ শেষ হবে  ৩১ আগস্ট ২০২২ বিকাল ৩ টে বেজে ২২ মিনিটে।
  • গণেশ চতুর্থীর উপবাসের তারিখ  ৩১ আগস্ট ২০২২ বিকাল 

৪. গণেশ পূজা কিভাবে করতে হয়? গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গণেশ পূজা করার নিয়ম নিচে বর্ণনা করা হলো-
ওম গাং গনপতয়ে নমঃ মন্ত্র উচ্চারণের সাথে গণেশ পূজা শুরু হবে। 
আরতির থালায় সুগন্ধি ধূপ জ্বালিয়ে শুরু করুন পূজা।
চন্দণ কাঠের সামনে পান পাতার উপর সুপারি সাজিয়ে রাখুন।
আসনে প্রতীমা স্থাপনের পূর্বে কাপড় দিয়ে প্রতীমা জড়িয়ে রাখুন। 
প্রতীমা আনার পূর্বে বাড়িতে চাল চড়িয়ে দিবেন।
গণেশের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করার পর শুরু হবে পূজা।
ঋকবেদে বা গণেশ সুক্তায় পাবেন প্রাণ প্রতিষ্ঠার মন্ত্র। মন্ত্র পাঠ করে গণেশের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করুন।
এরপর শুরু হবে আরাধনা।
১৬টি রিতির নামে গণেশ বন্দনা শুরু করুন।
২১ টি মদক এবং ২১ টি দূর্বা ঘাস এবং লাল ফুল গণেশের সামনে রাখতে হবে।
মূর্তির মাথায় দিতে হবে লাল চন্দনের টিকা।
গণেশের মূর্তির সামনে নারিকেল ভেঙে দূর করতে হবে।
এরপর গণেশের মূর্তির সামনে করজোড়ে পরিবারের সুখ, সমৃদ্ধি এবং কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করতে হবে।
জপতে থাকুন 'ওঁ শ্রী গণেশায় নমঃ’ বা ‘ওঁ গাং গণেশায় নমঃ ওঁ শ্রী গণেশায় নমঃ’ বা ‘ওঁ গাং গণেশায় নমঃ।'

৫. গণেশ পূজার মন্ত্র | গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গণেশ পূজার মন্ত্র জানতে পারবেন এখন।
'একদন্তং মহাকায়ং লম্বোদর গজাননম।

বিঘ্নবিনাশকং দেবং হেরম্বং পনমাম্যহম।।'

অর্থাৎ, যিনি একদন্ত, মহাকায়, লম্বোদর, গজানন এবং বিঘ্ননাশকারী সেই হেরম্বদেবকে আমি প্রণাম করি।

৬. গণেশ পূজার উপকরণ | গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

বিভিন্ন উপকরণের প্রয়োজন হয় যেমন - গণেশ পূজার উপকরণ গুলো হল আরতির থালা, ধুপ, চন্দন কাঠ, গণেশের জন্য নতুন পোশাক, সুপারি, পান পাতা এবং লাল ফুল। 

৭. গণেশ পূজার নিয়ম | গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

বেশ কিছু নিয়ম রয়েছে -
  • ওম গাং গনপতয়ে নমঃ মন্ত্র উচ্চারণের সাথে গণেশ পূজা শুরু হবে। 
  • আরতির থালায় সুগন্ধি ধূপ জ্বালিয়ে শুরু করুন পূজা।
  • চন্দণ কাঠের সামনে পান পাতার উপর সুপারি সাজিয়ে রাখুন।
  • আসনে প্রতীমা স্থাপনের পূর্বে কাপড় দিয়ে প্রতীমা জড়িয়ে রাখুন। 
  • প্রতীমা আনার পূর্বে বাড়িতে চাল চড়িয়ে দিবেন।
  • গণেশের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করার পর শুরু হবে পূজা।
  • ঋকবেদে বা গণেশ সুক্তায় পাবেন প্রাণ প্রতিষ্ঠার মন্ত্র। মন্ত্র পাঠ করে গণেশের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করুন।
  • এরপর শুরু হবে আরাধনা।
  • ১৬টি রিতির নামে গণেশ বন্দনা শুরু করুন।
  • ২১ টি মদক এবং ২১ টি দূর্বা ঘাস এবং লাল ফুল গণেশের সামনে রাখতে হবে।
  • মূর্তির মাথায় দিতে হবে লাল চন্দনের টিকা।
  • গণেশের মূর্তির সামনে নারিকেল ভেঙে দূর করতে হবে।
  • এরপর গণেশের মূর্তির সামনে করজোড়ে পরিবারের সুখ, সমৃদ্ধি এবং কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করতে হবে।
  • জপতে থাকুন 'ওঁ শ্রী গণেশায় নমঃ’ বা ‘ওঁ গাং গণেশায় নমঃ ওঁ শ্রী গণেশায় নমঃ’ বা ‘ওঁ গাং গণেশায় নমঃ।'

৮. গণেশ পূজা করলে কি হয়? গণেশ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গণেশ পূজা করলে সমাজে এবং পরিবারের সুখ সমৃদ্ধি প্রতিষ্ঠা হয় পাশাপাশি সমাজ থেকে অকল্যাণ এবং অভ্র ভেদি ও শুভশক্তি দূরীভূত হয় এতে করে সমাজ জীবনে নেমে আসে শান্তির এবং সুখের সু বাতাস।

৯. গণেশ পূজার বই | গনেষ পূজা পদ্ধতি ২০২২

গণেশ পূজা নিয়ে তেমন একটি বই অনলাইনে পাওয়া যায় না মানুষ পূজার বই সম্পর্কে জানতে বা সংগ্রহ আপনার নিকটস্থ লাইব্রেরীতে যোগাযোগ করতে পারেন এতে করে আপনি শুধু গণেশ পূজার বই নয় পাশাপাশি অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্বাস্থ্য এবং গ্রন্থ সম্পর্কে ধারনা লাভ করতে সক্ষম হবেন।

১০. লেখকের মন্তব্য 

গণেশ পূজা আসলে গুরুত্বপূর্ণ পূজার মাধ্যমে সমাজের সুখ সমৃদ্ধি এবং কল্যাণ কামনা করা হয়। গণেশ যেহেতু ভগবান শিব এবং পার্বতীর পুত্র এবং দেবতাদের মধ্যে সর্বোচ্চ তাই এই পূজার গুরুত্ব অপরিসীম পাশাপাশি গণেশ জ্ঞানের দেবতা আমরা গণেশের পূজার মাধ্যমে জ্ঞানের চর্চা ছড়িয়ে দিতে পারি বিশ্বময়। 

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?