The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/08/best-movie-hoolywod.html

হলিউডের সেরা মুভি | হলিউডের সেরা ৩০টি রোমান্টিক মুভি


হলিউডের সেরা মুভি বা জনপ্রিয় ৩০টি রোমান্টিক মুভি নির্ণয় করা হয়েছে সর্বকালের আলোচিত হলিউড মুভিগুলো থেকে।এ্যাকশন কিংবা থ্রীলার ছাড়াও হলিউডের রোমান্টিক মুভিগুলো যথেষ্ট জনপ্রিয়। হলিউডে প্রচুর ব্যবসাসফল রোমান্টিক মুভি রয়েছে যেগুলো এখনো মানুষের মনকে দোলা দেয়। আজ হলিউডের সেরা মুভি অর্থাৎ জনপ্রিয় ৩০টি রোমান্টিক মুভি নিয়ে আলোচনা করবো। মুভি ইন্ডাস্ট্রিতে সমৃদ্ধ এক নাম হলিউড। পশ্চিমা সংস্কৃতির পূর্ণ প্রকাশ ঘটে।

 aro 


হলিডে

"হলিডে" অন্যতম জনপ্রিয় একটি রোমান্টিক হলিউড মুভি। এই রোমান্টিক হলিউড  মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৩৮। ফিল্মটির পরিচালক ছিলেন জর্জ কুকার। জর্জ কুকারের অসামান্য দক্ষ পরিচালনা এবং মুভির অভিনেতা, অভিনেত্রীদের অভিনয় ও মুভির কাহিনি তৎকালীন দর্শক হৃদয় জয় করেছিল।হলিডে মুভিতে অভিনয় করেছিলেন ক্যাথরিন হেপবার্ন, ক্যারি গ্রান্ট ও ডোরিস নোলান প্রমূখ।

aro 

 লাভ এ্যাফেয়ার

হলিডে মুভিতে অভিনয় করেছিলেন ক্যাথরিন হেপবার্ন, ক্যারি গ্রান্ট ও ডোরিস নোলান প্রমূখ।

"লাভ এ্যাফেয়ার" রোমান্টিক  ফিল্মটির প্রকাশকাল ১৯৩৯। জনপ্রিয় এই মুভিটি পরিচালনা করেছেন লিও ম্যাককেরি। দীর্ঘদিন কমিডি ধারার মুভি পরিচালনা করলেও এই রোমান্টিক মুভিটির দিকনির্দেশনায় তিনি অসামান্য দক্ষতা দেখিয়েছেন।ফিল্মটির কাহিনি লিখেছেন ডেলমার ডেবস এবং ডোনাল্ড অগডেন স্টুয়ার্ট। ফ্রেঞ্চ প্লে বয়ের সাথে আমেরিকান এক মেয়ের প্রেমের রোমান্টিক কাহিনি নিয়ে মুভিটি নির্মিত। এই রোমান্টিক মুভিটিতে অভিনয় করেছেন চার্লস বয়ার, ইরিন ডান এবং মারিয়া অস্পেন্সকায়া। ইরিন ডান এই জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভিটির জন্য সেরা অভিনেত্রীর এ্যাওয়ার্ড পান এবং মারিয়া পান সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রীর এ্যাওয়ার্ড। মুভিটি তৎকালীন সময়ে বক্স অফিস হিট হয়েছিল। এরপর এর রিমেকও তৈরি হয়েছিল। 

aro 

গন উইথ দ্য ওয়াইন্ড

"গন উইথ দ্য ওয়াইন্ড" রোমান্টিক  মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৩৯। মুভিটির পরিচালক ভিক্টর ফ্লেমিং। এই রোমান্টিক  মুভিটিতে অভিনয় করেছিলেন ক্লার্ক গ্যাবেল ও স্কারলেট ওহারা। মুভিটির কাহিনি নেয়া হয়েছিল মার্গারেট মিশেলের বেস্ট সেলিং বই "Gone with the wind" অবলম্বনে। তৎকালীন সময়ে বক্স অফিস হিট হয়ে ইতিহাসে নতুন রেকর্ড গড়েছিল এই মুভিটি। অস্কারে অন্যান্য জনপ্রিয় মুভিকে পেছনে ফেলে পুরস্কারও জিতেছিল গন উইথ দ্য ওয়াইন্ড। 

ক্যাসাব্লাঙ্কা

"ক্যাসাব্লাঙ্কা" জনপ্রিয় একটি রোমান্টিক মুভি। এই রোমান্টিক  মুভিটি প্রকাশ হয় ১৯৪২ সালে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর প্রেক্ষাপটকে ঘিরে এর কাহিনি গড়ে উঠেছে। আত্মত্যাগের দৃষ্টান্ত এতে উজ্জ্বল, মুভিতে রিক এবং লিসার আলাদা হওয়া দর্শক হৃদয়ে গভীর বেদনার রেখাপাত করেছিল তবে তা ছিল অবশ্যম্ভাবী। মুভিটির পরিচালক ছিলেন মাইকেল কার্টিজ। অভিনয় করেছিলেন হামফ্রী বোগার্ট এবং ইনগ্রিড বার্গম্যান। বেস্ট পিকচার, বেস্ট ডিরেক্টর এবং বেস্ট স্ক্রিনপ্লের জন্য এই রোমান্টিক মুভিটি অস্কার লাভ করে।

aro 

ইটস আ ওয়ান্ডারফুল লাইফ 

"ইটস আ ওয়ান্ডারফুল লাইফ" ১৯৪৬ সালে প্রকাশিত একটি জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভি। মুভিটিতে একজন ব্যবসায়ী বিষন্নতা থেকে সুইসাইডাল প্রবনতায় অবতীর্ণ হন। তখন তাকে এই বিষন্ন অবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য একজন পরী আসে তার জীবনে। পরী তাকে দেখায় তাকে ছাড়া পৃথিবী কেমন হতো। এই জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভিটির পরিচালক ফ্র্যাঙ্ক ক্যাপ্রা। মুভিটিতে অভিনয় করেছে জেমস স্টুয়ার্ট ও ডোরা রীড৷ লিবার্টি ফিল্মস প্রোডাকশন থেকে মুভিটি মুক্তি পায়। তৎকালীন সময়ের বক্স অফিসে ঝড় তোলা একটি রোমান্টিক মুভি ছিল এটি।

রোমান হলিডে

"রোমান হলিডে" একটি জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৫৩। রাজকীয় দায়িত্ব এবং অভিভাবকের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঘর পালানো এক রাজকুমারী এ্যানের সাথে রোমে আসা এক আমেরিকান নিউজ রিপোর্টার জো'র প্রেম কাহিনি মুভিটির মূল ঘটনা। মুভিটির পরিচালক উইলিয়াম হুইলার। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন জর্জ পিক ও অদ্রী হেপবার্ন। হেপবার্ন তার অভিনয়ের জন্য একাডেমি এ্যাওয়ার্ড পান। এছাড়া মুভিটি বেস্ট রাইটিং ও বেস্ট ব্ল্যাক এন্ড হোয়াইট কস্টিউম ডিজাইন পুরষ্কার পায়।

রোমিও এ্যান্ড জুলিয়েট

"রোমিও এন্ড জুলিয়েট" সর্বকালের সেরা একটি রোমান্টিক ফিল্ম। ফিল্মটির প্রকাশকাল ১৯৬৮। শ্রেষ্ঠ ঔপন্যাসিক উইলিয়াম শেক্সপীয়ারের উপন্যাস রোমিও এবং জুলিয়েটের কাহিনি অবলম্বনে মুভিটি নির্মিত। মুভিটি পরিচালনা করেছেন ফ্র্যাঙ্কো জেফ্রিলি। রোমিও এবং জুলিয়েটের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন যথাক্রমে লিওনার্দ হুইটনিং ও অলিভিয়া হাসি।

aro 

প্রীটি উইম্যান

"প্রীটি উইম্যান" রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৯০ সাল। যৌনকর্মী ভিভিয়ান ওয়ার্ড ও ধনী ব্যবসায়ী এডওয়ার্ড লুইসকে কেন্দ্র করে মুভির মূল কাহিনি।মুভিটি পরিচালনা করেছেন গ্যারি মারশাল। এতে অভিনয় করেছেন রিচার্ড গেরে, জুলিয়া রবার্টস ও জেসন আলেকজান্ডার। ১৯৯০ সালে প্রকাশিত মুভিগুলোর মধ্যে তৃতীয় সর্বোচ্চ আয়কারী ছিল এটি। 

হোয়াইল ইউ ওয়্যার স্লিপিং

"হোয়াইল ইউ ওয়্যার স্লিপিং" রোমান্টিক ফিল্মটির প্রকাশকাল ১৯৯৫। এটি আমেরিকান মুভি। মুভিটির পরিচালক জন টারটেলটাব। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন সান্দ্রা বুলক, বিল পুলম্যান এবং পিটার পয়েল।

 aro 

লাইফ ইজ বিউটিফুল 

"লাইফ ইজ বিউটিফুল" রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৯৭। মুভিটির পরিচালক রবার্ট বেনিগি। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন রবার্ট বেনিগি ও নিকোলাট ব্রাশি। মুভিটি ইতালিয়ান ভাষায় মুক্তি পায়। এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আয়কারী বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র হিসেবে পরিণত হয়েছে। মুভিটি অস্কারে বেস্ট অভিনেতার এ্যাওয়ার্ড পায়। রবার্ট বেনিগি ইতিহাসের দ্বতীয় পরিচালক যিনি নিজ মুভিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করে অস্কার পান। 

ইট হ্যাপেন্ড ওয়ান 

"ইট হ্যাপেন্ড ওয়ান নাইট" একটি জনপ্রিয় রোমান্টিক কমেডি হলিউড মুভি। মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৩৫। এটি একটি ত্রিকোণ প্রেমের গল্প। এই রোমান্টিক মুভিটির কাহিনি গড়ে ওঠেছে এক ধনীকন্যা এলি এবং দিন মজুর রিপোর্টার পিটারকে কেন্দ্র করে। ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে প্রেমানুভূতির সঞ্চার হয়। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন ক্লডেট কোলভার্ট এবং ক্লার্ক গ্যাবল। এটি শীর্ষ পাঁচটি অস্কার পুরস্কার লাভ করে। সেরা পিকচার, সেরা পরিচালক, সেরা নায়ক, সেরা নায়িকা এবং সেরা স্ক্রীনপ্লে।

ডক্টর ঝিভাগো

"ডক্টর ঝিভাগো" একটি রোমান্টিক মুভি। মুভিটি ১৯৬৫ সালে প্রকাশ হয়। মুভিটি রাশিয়ান বিপ্লবের পটভূমিতে নির্মিত। ইবরি ঝিবাগো এবং লারা এন্টিপোভা দুজনেই আলাদা ব্যক্তির সাথে এ্যাঙ্গেজড থাকে। কিন্তু একসময় তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যুদ্ধের কারণে তাদের আলাদা হয়ে যেতে হয়। এই রোমান্টিক মুভিটি পাঁচটি অস্কার লাভ করে।

aro 

পেগি সু গট ম্যারিড

"পেগি সু গট ম্যারিড" একটি রোমান্টিক হলিউড মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৮৬। পেগি সুর হাই স্কুল থাকাকালীন রোমাঞ্চকর চিন্তাভাবনা এবং পরে চার্লির সাথে প্রেম নিয়ে মুভিটির কাহিনি এগিয়েছে। এই রোমান্টিক মুভিটিতে অভিনয় করেছেন ক্যাথলিন টার্নার এবং নিকোলাস ক্যাজ। মুভিটির জন্য টার্নার গোল্ডেন গ্লোব এ্যাওয়ার্ড পায় এবং অস্কার নমিনেশন লাভ করে।

ডার্টি ডান্সিং

"ডার্টি ডান্সিং" একটি রোমান্টিক হলিউড মুভি। মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৮৭। এই রোমান্টিক মুভিটির মূল কাহিনি গড়ে উঠেছে জনি এবং বেবির প্রেম কাহিনিকে ঘিরে। ছুটিতে রিসোর্টে আসা ধনীকন্যা বেবিকে নাচ শেখায় ওই রিসোর্টের ওয়েটার জনি, যা বেবির বাবার রাগের কারণ হয়ে ওঠে। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন পেট্রিক শোয়েজ ও জেনিফার গ্রে।

aro 

মুন স্ট্রাক

"মুন স্ট্রাক" একটি জনপ্রিয় হলিউড রোমান্টিক মুভি। মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৮৭। নিজের নতুন প্রেমিকের সাথে আংটি বদল হওয়ার পর জনি বুঝতে পারে তার ভাই রনির প্রতি তার অনুভূতি রয়েছে। মুভিটির মূল কাহিনি একে ঘীরেই। মুভিটি পরিচালনা করেছেন জন প্যাট্রিক শ্যানলি। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন জ্যানি এইলো এবং নিকোলাস কেজ।

হয়েন হেরি মেট সালি

"হয়েন হেরি মেট সালি" হলিউডের জনপ্রিয় একটি রোমান্টিক মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটি ১৯৮৯ সালে প্রকাশিত হয়। একজন নারী এবং পুরুষ কি শুধু বন্ধু হতে পারে? মুভিটির মূল কাহিনি একে ঘিরেই। মুভিতে অভিনেতা মেগ রিয়ান এবং অভিনেত্রী বিলি ক্রিস্টাল রোড ট্রীপে যায় এবং সেখানেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।মুভিটির কাহিনি লিখেছেন নোরা এ্যাফ্রন।

বিউটি এ্যান্ড দ্য বিস্ট

"বিউটি এ্যান্ড দ্য বিস্ট" একটি জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভি। হলিউডের জনপ্রিয় এই মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৯১। এি মুভির কাহিনিটি গড়ে উঠেছে জনপ্রিয় এক কিংবদন্তিকে ঘীরে। একজন রাজকুমার অভিষপ্ত হয়ে জানোয়ারে পরিণত হয় এবং তার মনে ভালোবাসা জাগ্রত হলেই সে মানুষ হবে। এই লক্ষ্য পূরণে নায়িকাকে অপহরণ করা হয় এবং কাহিনি এগিয়ে চলে৷ এই রোমান্টিক মুভিটি বেস্ট পিকচার এবং অস্কারে নমিনেশন পাওয়া প্রথম এনিমেশন মুভি।

স্লিপলেস ইন সিটল

"স্লিপলেস ইন সিটল" অন্যতম জনপ্রিয় রোমান্টিক হলিউড মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ১৯৯৩। মুভিটিতে দেখা যায় স্যাম এবং এ্যানির ডিভোর্স হয়ে যায়। ডিভোর্সের পর এ্যানি একদিন রেডিও স্টেশনে তার বউয়ের প্রতি ভালোবাসা ব্যক্ত করে। এবং পুরো মুভি জুড়ে এ্যানি তার বউকে ফিরে পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যায়।এতে তাদের সন্তান জোনার ও মা-বাবাকে একত্রিত করার প্রভূত চেষ্টা চোখে পরে। শেষে যদিও তারা সফল হয়। এই রোমান্টিক মুভিটিতে অভিনয় করেছেন টম হাংকস এবং মেগ রিয়ান।

টাইটানিক

"টাইটানিক" সর্বকালের সেরা একটি রোমান্টিক মুভি। মুভিটি প্রকাশিত হয় ১৯৯৭ সালে। মুভিটি একটি জাহাজ ডুবির কাহিনি এবং সেখানের যাত্রী রোজ এবং জ্যাকের মধ্যে গড়ে ওঠা প্রেমকাহিনিকে ঘীরে গড়ে উঠেছে। এতে অভিনয় করেছেন লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও এবং কেট উইন্সলেট। সবচেয়ে বেশি অস্কার জেতা মুভি এটি, প্রায় ১১টি অস্কার জিতেছিল এই রোমান্টিক ট্র্যাজিক মুভিটি।সর্বকালের সেরা একশতটি হলিউড মুভির মধ্যে অন্যতম টাইটানিক। হলিউডের কিংবদন্তি মুভি "টাইটানিক" ১৯৯৭ সালে চিত্রায়িত হয়েছিল এবং ইতিহাসে সাতাশিটি পুরস্কার জিতেছেিল। এই সাতাশিটির মধ্যে এগারোটি ছিল অস্কার। মুভিতে তরুণ প্রেমিক জ্যাক এবং প্রেমিকা রোজ টাইটানিক জাহাজে একে অপরকে খুঁজে পেয়েছিল। চলচ্চিত্রটির প্রধান চরিত্রে অনবদ্য অভিনয় করেছিলেন কেট উইন্সলেট এবং লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও।টাইটানিক" চলচ্চিত্রের উদ্ধৃতিগুলি এখনও মানুষকে অভিভূত করে। টাইটানিক মুভির কয়েকটি জনপ্রিয় উদ্ধৃতি হলো


আমি যে টিকিট জিতেছি সেটা আমার কাছে ভাগ্যের সেরা উপহার। আমি তোমার সাথে দেখা করেছি! এর জন্য আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ, রোজ! গভীরভাবে কৃতজ্ঞ!


একজন মহিলার হৃদয় রহস্যে ঘেরা গভীর সমুদ্রের মতো ...


ছবিগুলো দেখে মনে হচ্ছে আপনি নিজেকেরূপকথার গল্পে খুঁজে পাচ্ছেন। একটি সত্য এবং কোন যুক্তি নেই.

লাভ এন্ড বাস্কেটবল

"লাভ এন্ড বাস্কেটবল" হলিউডের জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভি গুলোর মধ্যে একটি। এটির প্রকাশকাল ২০০০। বাস্কেটবল খেলার মাধ্যমে প্রেম গড়া মুভিটির মূল কাহিনি। এতে অভিনয় করেছেন সানা লেথান এবং ওমর এপস। 

মৌলিন রাফ

"মৌলিন রাফ" হলিউড মুভিটির প্রকাশকাল ২০০১। সত্য, সুন্দর, স্বাধীনতা এবং ভালোবাসার এক জনপ্রিয় মিশেল এই রোমান্টিক মুভিটি। যুবক কবি ক্রিস্টান এবং সাটিনের মধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত প্রেম গড়ে ওঠে একসময়। মুভিটির পরিচালক বাজ লরমানস। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন ইউয়ান ম্যাকগ্রেগর এবং নিকোল কিডম্যান।

লাভ একচুয়ালি

"লাভ একচুয়ালি" জনপ্রিয় রোমান্টিক হলিউড মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ২০০৩। ক্রিসমাস থিমের রোমান্টিক কমিডি মুভি লাভ একচুয়ালি। এটি পরিচালনা করেছেন রিচার্ড কার্টিস। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন হগ গ্রান্ট, লিয়াম নিসান, কলিন ফার্থ, লরা লিনে, এমা থম্পসন, এলান রিকমেন প্রমূখ।

এটারনাল সানশাইন অফ দ্য স্পটলেস মাইন্ড

"এটারনাল সানশাইন অফ দ্য স্পটলেস মাইন্ড" একটি অন্যতম জনপ্রিয় হলিউড মুভি। মুভিটি ২০০৪ সালে প্রকাশিত হয়। মুভিটির মুল কাহিনি গড়ে উঠেছে মৃদু ভাষী জোয়েল ও ক্লেমেন্টাইনকে নিয়ে। তাদের মধ্যে সহজেই একটি সম্পর্ক গড়ে ওঠে কিন্তু একসময় সেটা ভেঙেও যায়। তারা দুজনেই চায় তাদের দুঃসহ স্মৃতিগুলো মুছে ফেলতে কিন্তু জোয়েল চায় সুন্দর স্মৃতিগুলো যেনো থাকে। এভাবেই কাহিনি এগোতে থাকে। এই জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভিটিতে অভিনয় করেছেন জিম ক্যারি ও কেট উইন্সলেট।

দ্য নোটবুক

"দ্য নোটবুক" জনপ্রিয় হলিউড মুভিগুলোর একটি। এই রোমান্টিক মুভিটি প্রকাশিত হয় ২০০৪ সালে। নানা বাধা বিপত্তির মাঝেও একজন গরীব ছেলে এবং ধনী উত্তরাধিকারী কন্যার প্রেমকাহিনি এই মুভিটির মূল কাহিনি গড়ে উঠেছে। তারা বহুদিন একে অন্যের থেকে আলাদা থাকতে বাধ্য হয়। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন রিয়ান গসলিং এবং র‍্যাচেল ম্যাকএ্যাডামস।

ব্রোক ব্যাক মাউন্টেন

"ব্রোক ব্যাক মাউন্টেন" হলিউডের একটি রোমান্টিক মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটি প্রকাশিত হয় ২০০৫। মুভিটিতে দেকা যায় ইনিস ডেল মার এবং জ্যাক টুইস্ট বিভিন্ন বাধা পেরিয়ে একত্রে থাকতে চায়। মুভিটি পরিচালনা করেছেন এ্যাং লি। এই জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভিটিতে অভিনয় করেছেন হিথ লিগার এবং জ্যাক গিলেনহাল।

স্লামডগ মিলিয়নিয়ার

"স্লামডগ মিলিয়নিয়ার" জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভিগুলোর একটি। মুভিটি প্রকাশিত হয় ২০০৮ সালে। মুভিটিতে জামাল টিভিতে প্রচারিত অনুষ্ঠান "হু ওয়ান্টস টু বি আ মিলিওনিয়ার" প্রোগ্রামে র‍্যায় তবে টাকার জন্য নয়। তার ভালোবাসার লতিকাকে ফিরে পাবার জন্য। তার মনে হয় লতিকা হয়তো তাকে দেখবে এবং তার কাছে ফিরে আসবে। তিনি টাকার উপর ভালোবাসাকে স্থান দেয়। মুভিটি বেস্ট পিকচার এ্যাওয়ার্ড অর্জন করে।

ক্যারোল

"ক্যারোল" হলিউডের একটি রোমান্টিক মুভি। মুভিটির প্রকাশকাল ২০১৫ সাল। বিশ্বকে কেয়ার না করে প্রেমিক-প্রেমিকা উভয়ের অনুভূতির প্রকাশ এই মুভিটির মূল কাহিনি গড়ে উঠেছে। মুভিটি প্যাট্রিসিয়া হাইস্মিথের উপন্যাস দ্য প্রাইস অফ সল্ট এর কাহিনি অবলম্বনে নির্মিত। এই রোমান্টিক মুভিটিতে অভিনয় করেছেন রনি মারা এবং কেট ব্লানশেট। এই জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভিটি ছয়টি অস্কারে মনোনিত হয়।

লা লা ল্যান্ড

"লা লা ল্যান্ড" রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ২০১৬। একজন পিয়ানিস্ট এবং একজন অভিনেত্রীর প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে কাহিনি গড়ে উঠেছে এই রোমান্টিক মুভিটির। মুভিটির পরিচালক ডামিন চ্যাজেল। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন রিয়ান গসলিং, এমা স্টোন, জন লিজেন্ড। মুভিটিতে অনবদ্য অভিনয়ের জন্য এমা স্টোন সেরা অভিনেত্রী একাডেমি এ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

ক্রেজি রিচ এশিয়ানস

"ক্রেজি রিচ এশিয়ানস" রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ২০১৮।মুভিটিতে দেখা যায় প্রফেসর র‍্যাচেল নিক নামক এক লোকের সাথে ডেটে যায় এবং পরিবারের সাথে তাকে মিট করাতে চায়। একসময় র‍্যাচেল জেনে অবাক হয় যে নিক দেশের সবচেয়ে ধনী পরিবারের সন্তান। মুভিটি পরিচালনা করেছেন জন এম চু। মুভিটিতে অভিনয় করেছেন কন্সটান্স উ, হেনরি গোলডিং, গেমা চ্যান, লিসা লু প্রমূখ। 

ইফ বীলে স্ট্রীট কুড টক

"ইফ বীলে স্ট্রীট কুড টক" একটি জনপ্রিয় রোমান্টিক মুভি। এই রোমান্টিক মুভিটির প্রকাশকাল ২০১৮। মুভিটির কাহিনি গড়ে উঠেছে জেমস বাল্ডউইনসের ১৯৭৪ সালে একই নামের নোবেল থেকে৷ মুভিটিতে একজন প্রেমিকা নিজ পরিবারের সাপোর্টে তার প্রেমিককে জেল থেকে মুক্ত করতে চায় যাকে মিথ্যা অপবাদে বন্দী করা হয়েছে। তাও আবার নিজ সন্তান জন্মানোর পূর্বে। মুভিটা পরিচালনা করেছেন বারী জেনফিনস।মুভিটিতে অভিনয় করেছেন কিকি লাইন, স্টিফান জেমস, কোলমান ডোমিঙ্গো প্রমূখ। 


পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?