The DU Speech https://www.duspeech.com/2022/08/australia-joar-abedon.html

সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩

অস্ট্রেলিয়া সরকার প্রতি বছর ১ লক্ষ ৯৫ হাজার স্থায়ী  অভিবাসী নিবে। করোনাকালে তাদের শিক্ষা ও ব্যবসা খাতে ব্যাপক কর্মী সংকট হয়েছে। তাদের অর্থনীতির জন্য স্থায়ী অভিবাসী প্রয়োজন। সূত্র - Independent Television 

সম্পূর্ণ আর্টিকেল পড়লে কোন ধরণের দালাল ছাড়াই ভিসার সকল প্রক্রিয়া যেমন ওয়ার্ক পারমিটের ওয়েবসাইট খোঁজা, ই-মেইলের মাধ্যমে আবেদন, কভার লেটার তৈরি সহ সকল কাজ নিজেই সম্পাদন করতে পারবেন। সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ সম্পর্কে আপনারা হয়ত অনেকেই জানেন না। আবার অনেকেরই ধারণা নেই কিভাবে সরকারিভাবে  অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ শুরু করবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টিকেল রাইটিং সংগঠনের এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ সম্পর্কে তথ্য জানতে পারবেন এছড়াও সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে অবগত হবেন।

অনুচ্ছেদ সূচী ( যে অংশ পড়তে চান তার উপর ক্লিক করুন)

  1. অস্ট্রেলিয়া ভিসার জন্য যেভাবে অবেদন করবেন 
  2. বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া স্টুডেন্ট ভিসা 
  3. অস্ট্রেলিয়া টুরিস্ট ভিসা করার নিয়ম
  4. অস্ট্রেলিয়া বেতন কত?
  5. প্রশ্ন-উত্তর
  6. লেখকের মন্তব্য 

১.অস্ট্রেলিয়া ভিসার আবেদন প্রক্রিয়া

অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়ার সম্পূর্ণ প্রসেস এখানে আপনি পাবেন। সব কিছু নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব, ইনশাল্লাহ।  এই আর্টিকেল মনোযোগ দিয়ে পড়ুন তাহলে সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া বুঝে যাবেন। প্রথমেই আলোচনা করব, ভিসা ক্যাটাগরি নিয়ে। আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে না পড়লে আপনি বুঝতে পারবেন না তাই সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। পড়া শেষ হলে কোন বিষয় বুঝতে না পারলে নিচে লেখকের ফেসবুক আইডির লিংক দিয়ে দিচ্ছি যোগাযোগ করবেন।

https://www.facebook.com/mamun.web1

মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, শিক্ষার্থী ,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।


অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার ভিসা ক্যাটাগরি 

অস্ট্রেলিয়ায় ০৩টি ক্যাটাগরিতে ভিসা প্রদান করা হচ্ছে।
  1. প্রবাসী
  2. শিক্ষিত শ্রেণি
  3. স্টুডেন্ট ভিসা 
প্রবাসী: যারা  বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন এবং ভালো ইংরেজিতে কথা বলতে পারেন তারা এই ক্যাটাগরিতে আবেদন করতে পারবেন।
শিক্ষিত শ্রেণী: যাদের পর্যাপ্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা রয়েছে অর্থাৎ অন্তত সম্মান পাস এবং ভালো ইংরেজিতে কথা বলতে পারেন তারা এই ক্যাটাগরিতে আবেদন করতে পারবেন।
স্টুডেন্ট: যারা বর্তমানে পড়াশুনা করার উদ্দেশ্যে অস্ট্রেলিয়া যেতে চান তারা এই ক্যাটাগরিতে আবেদন করতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়ায় কাজের জন্য সরকারি ওয়েবসাইট

ওয়েবসাইট লিংক : https://immi.homeaffairs.gov.au/visas/working-in-australia
উপরের যে লিংক দেওয়া হয়েছে সেটি অস্ট্রেলিয়ায় কাজের জন্য অস্ট্রেলিয়ান সরকারি ওয়েবসাইট। আপনি এই ওয়েবসাইটে গেলে বিভিন্ন ধরনের কাজের বিস্তারিত জানতে পারবেন।
এখান থেকে সাধারণত টেম্পোরারি ওয়ার্ক ভিসা ক্যাটাগরিতে আপনি অস্ট্রেলিয়াতে যেতে পারবেন। তবে অস্ট্রেলিয়াতে যাওয়ার পূর্বে অবশ্যই আপনাকে জব খুঁজে নিতে হবে। এবার আমরা জানাবো কিভাবে আপনি অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার জন্য জব খুঁজে বের করবেন।

জব খোঁজার উপায়

জব খোঁজার ওয়েবসাইটের লিংক: https://www.seek.com.au/
আপনি এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার প্রয়োজন এবং পছন্দমত জব অনুসন্ধান বা খোঁজ করবেন। 

এখানে প্রথম যে অপশন দেখতে পাচ্ছেন এখানে গিয়ে আপনি জব বা কোম্পানির নাম লিখে সার্চ করতে পারেন। দ্বিতীয় অপশনে বিভিন্ন ধরনের বিবরণ দেওয়া আছে এখান থেকে আপনি আপনার পছন্দমত জব সিলেক্ট করবেন। নিজের ছবিতে আমি দেখিয়ে দিচ্ছি যে কেমন ক্যাটাগরির  জব সাজেশন এখানে রয়েছে।

এভাবে আপনি বিভিন্ন কোম্পানির বা ক্যাটাগরির সব অনুসন্ধান করে নিবেন। জব খোঁজার পর আপনাকে একটা সিভি তৈরি করতে হবে।

অস্ট্রেলিয়া জবের আবেদনের জন্য সিভি ফরম্যাট

কিভাবে আপনি করবেন তা নিচের ছবিতে দেওয়া হয়েছে। এখানে আপনি আপনার অভিজ্ঞতা তুলে ধরবেন। তবে কোন মিথ্যা তথ্য এখানে প্রদান করবেন না। 


ঠিক এভাবে আপনি আপনার অভিজ্ঞতার আলোকে একটা সিভি তৈরি করবেন। যে কাজের জন্য সিভি তৈরি করছেন প্রাসঙ্গিকভাবে সে সকল কাজের অভিজ্ঞতা এখানে উল্লেখ করবেন। এখন আপনাদের সাথে শেয়ার করব কিভাবে আবেদন করবেন বা কোথায় আবেদন করবেন।

কিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন করবেন

আপনি যে লিংক থেকে জব খুঁজেছেন। ওই জবের কোম্পানির ঠিকানা থেকে ইমেইল নম্বর বা ঠিকানাটি সংগ্রহ করবেন। এবং উক্ত ইমেল অ্যাড্রেস এ নিচের মতো করে কভার লেটার লিখবেন এবং ওপরে যেভাবে সিভি ফরমেট তৈরি করার কথা বলা হয়েছে তার পিডিএফ সংযুক্ত করে বেশ কয়েকটি কোম্পানিতে ইমেইল সাবমিট করার মাধ্যমে আবেদন সম্পূর্ণ করবেন। আপনি যতগুলো কোম্পানিতে ই-মেইলের মাধ্যমে আবেদন করবেন আপনার অভিজ্ঞতা তত বাড়তে থাকবে।



এখানে সিভি ফর্মেটে বিভিন্ন কালার ব্যবহার করা হয়েছে আপনার বোঝার সুবিধার জন্য। আপনি যখন  কভার লেটার লিখবেন তখন কোন ধরনের কালার ব্যবহার করবেন না। এভাবে খুব সহজেই আপনি  অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন করতে পারবেন। এবার আপনাদের জানাবো অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার ভিসায়  কত টাকা খরচ হতে পারে।

ভিসা খরচ

এখানে তিনটি ক্যাটাগরিতে আপনাকে ভিসার জন্য খরচ করতে হবে।
  • sponsored cost - AUD 2770
  • Visa Cost - AUD 325
  • police clearance + medical + others
এখানে স্পন্সর খরচ হবে অস্ট্রেলিয়ান ২৭৭০ ডলার। এবং ভিসার জন্য খরচ করতে হবে অস্ট্রেলিয়ান ৩২৫ ডলার। এর সাথে থাকবে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স মেডিকেল এবং অন্যান্য খরচ। সব মিলিয়ে ধরা যায় দুই থেকে তিন লক্ষ টাকার মধ্যেই আপনি সকল প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে পারবেন।

২.বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া স্টুডেন্ট ভিসা । সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩

বাংলাদেশ থেকে যদি আপনারা কেউ অস্ট্রেলিয়া স্টুডেন্ট ভিসার মাধ্যমে যেতে চান তবে আপনাদের বেশ কিছু নিয়মকানুন এবং পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ আর্টিকেলটির এই অংশে আমরা আপনাদের স্টুডেন্ট ভিসার সকল তথ্য সম্পর্কে জানাব।

  • স্টুডেন্ট ভিসায় যদি আপনারা অস্ট্রেলিয়া যেতে চান তবে আপনাদের বেশ কিছু ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন হবে। এছাড়াও আপনাদেরকে ইংরেজি খুব ভালো করে শিখে নিতে হবে কারণ ইংরেজি এর জন্য আপনাদের একটি পরীক্ষা নেয়া হবে, যেটি হবে অনলাইনের মাধ্যমে।
  • আপনার বৈধ পাসপোর্ট এবং ব্যাংক স্টেটমেন্ট এর প্রয়োজন হবে। এগুলোর অবশ্যই প্রয়োজনীয়তা আছে। এগুলোর মাধ্যমে আপনি অবৈধ নাগরিক কিনা সেই সম্পর্কে যাচাই করা হবে এবং ব্যাংক স্টেটমেন্ট দিয়ে যাচাই করা হবে অস্ট্রেলিয়ায় পড়াশোনা করার জন্য আপনার যথেষ্ট টাকা রয়েছে কিনা। 
  • এগুলো ছাড়াও আরো বেশ কিছু প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পালন করার পর আপনি অস্ট্রেলিয়া দূতাবাস থেকে আপনার অস্ট্রেলিয়ার স্টুডেন্ট ভিসা সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। অস্ট্রেলিয়ার দূতাবাস থেকে ভিসা পাওয়ার পর আপনি যেকোনো এয়ার টিকিটের মাধ্যমে বাংলাদেশের এয়ারলাইন্স করে অস্ট্রেলিয়ায় যেতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ মুড সুইং কেন হয়?

৩.অস্ট্রেলিয়া টুরিস্ট ভিসা করার নিয়ম।সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩

আপনাদের মধ্যে অনেকেই বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া টুরিস্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে চান, তবে আপনারা জানেন না কিভাবে আবেদন করতে হয়। সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ এর এই অংশ তে আপনাদের জানানো হবে আপনারা কিভাবে অস্ট্রেলিয়া টুরিস্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে আপনাদের অবশ্যই একটি এবং বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে। আপনার পরিষ্কার একটি ছবি থাকতে হবে এবং ছবিটি চশমা ছাড়া হলে ভালো হয়।  তারপরে আপনাদের কে অস্ট্রেলিয়া টুরিস্ট ভিসা নামক ওয়েবসাইট এ যেতে হবে এবং সেখানে গিয়ে ফরম ফিলাপ করে নিতে হবে।

 এছাড়াও আপনারা বিএসএফের ওয়েবসাইটে গিয়ে অ্যাপ্লিকেশনের নির্দিষ্ট ফর্মটি ফিলাপ করে নিতে পারবেন। অস্ট্রেলিয়ায় যদি আপনার কোন আত্মীয় থেকে থাকে তবে তাদের কাছ থেকে আপনাকে ইনভাইটেশন নামক লেটার গ্রহণ করে নিতে হবে।  আর যদি আপনার আত্মীয় স্বজন না থেকে থাকে তবে আপনার অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়ার ট্রাভেল হিস্ট্রি টা অনেক লম্বা হতে পারে।

আপনার ব্যাংক এর স্টেটমেন্ট দিতে হবে। আপনাকে আপনার ব্যাংকে ৬ মাসের স্টেটমেন্ট দিতে হবে এবং সেখানে থেকে ব্যাংক সলভেনসি নামক সার্টিফিকেট টি আপনাকে সংগ্রহ করে নিতে হবে।তারপরে আপনাকে এই বিষয়গুলো পরিষ্কার করে কাভার লেটারে লিখতে হবে এবং সেটা পূরণ করে দিতে হবে।

 গুগলে সার্চ করলে আপনারা অনেক ধরনের কাভার লেটার পেয়ে যাবেন। আপনারা সেখান থেকে কাবার লেটার ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।আর যদি আপনার নিজের করতে কোন সমস্যা হয় তাহলে আপনারা অভিজ্ঞতা সম্পন্ন কাউকে দিয়ে লিখে নিতে পারেন। তারপর আপনাদের যে ট্রাভেল হিস্ট্রি রয়েছে এই সমস্ত বিষয় আপনাকে  ইমিগ্রেশনের সাথে সঠিকভাবে ফাইল করে জমা দিতে হবে। 

এরপর আপনাকে বুকিং দিতে হবে এবং ইয়ার্কিটে বুকিং এর একটা পেপার দিতে হবে যাতে করে তারা জানে এবং আপনি কত দিনে কত তারিখে সেখানে রওনা করছেন।আপনি অস্ট্রেলিয়া তে যে যে হোটেলে উঠতে চান সেই হোটেলে রিজার্ভেশন কপি আপনাকে দিতে হবে। কিংবা আপনি আপনার বিজনেসম্যান অ্যাকাউন্টটা দিতে পারেন।

আপনি যদি সার্ভিস হোল্ডার হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে আপনার সাধারণ স্টেটমেন্টটা দিতে হবে। এবং আপনার এনওসি লেটার দিতে হবে অর্থাৎ আপনি যতদিন ছুটি নিয়েছেন তার একটি পেপার আপনাকে দিতে হবে। আপনি যদি স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে ইউনিভার্সিটি অথবা কলেজ থেকে আপনাকে অবশ্যই একটি লিভ লেটার নিতে হবে এবং আপনার নিজের আইডি কার্ডের একটি ফটোকপি জমা দিতে হবে।

সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ আর্টিকেলের এই অংশ টি পড়ে আপনারা আশা করছি টুরিস্ট ভিসা সম্পর্কিত সকল তথ্য জানতে পেরেছেন।

৪.অস্ট্রেলিয়া বেতন কত?সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩

আপনারা যারা অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়ায় যে বিভিন্ন কাজ করে আপনাকে কেমন বেতন দিতে পারেন সে সম্পর্কে জানতে চান তারা  এই অংশে জানতে পারবেন।সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ আর্টিকেলটি এই অংশে আপনারা সেই সম্পর্কে জানতে পারছেন। 

অস্ট্রেলিয়ায় আপনারা যদি সপ্তাহ ২০ ঘন্টা কাজ করে থাকেন তাহলে আপনারা এক সপ্তাহে প্রায় ২৪০০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনারা বাংলাদেশি টাকার ৯০ থেকে ১ লক্ষ টাকা মাসে আয় করতে পারবেন।

৫. আর্টিকেল সম্পর্কিত প্রশ্ন- উত্তর

১.প্রশ্নঃ অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার ভিসা পাওয়া সম্ভব?

উত্তরঃ অবশ্যই সম্ভব।

২.প্রশ্নঃ স্টুডেন্ট ভিসায় অস্ট্রেলিয়া যাওয়া যায়?

উত্তরঃ হ্যাঁ যায়।

৩.টুরিস্ট ভিসা তে ডকুমেন্টস দরকার হয়?

উত্তরঃ হ্যাঁ বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর দরকার হয়।

৪.প্রশ্নঃ অস্ট্রেলিয়ায় মাসে ইনকাম কতো হতে পারে?

উত্তরঃ ৯০ থেকে ১ লক্ষ।

৬. লেখকের মন্তব্য

সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়ার যাওয়ার আবেদন ২০২৩ আর্টিকেলটি তে সাধারণত কিভাবে সরকারি নিয়ম নীতি মেনে বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে পারবেন সে সম্পর্কে জানানো হয়েছে। এছাড়া ও স্টুডেন্ট ভিসা টুরিস্ট ভিসা খরচ এবং নিয়ম নীতি সম্পর্কে তথ্য প্রদান করা হয়েছে। 

আমরা অনেকে ই বাংলাদেশ থেকে দেশের বাহিরে আরো সচ্ছল জীবন যাপনের জন্য অন্য দেশে পাড়ি দিতে চাই তবে দেশ ছেড়ে অন্য দেশে যাওয়ার পদ্ধতি খুব একটা সহজ হয় না বেশ কঠিন এবং জটিল কিছু পদ্ধতি এবং নিয়ম মেনে তারপরে আমরা অন্য দেশে যাবার ভিসা পেয়ে থাকি। এখানে নিয়ম, খরচা এবং ভিসার ধরন সম্পর্কে বলা হয়েছে। 

আপনারা সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আবেদন ২০২৩ আর্টিকেল টির বিভিন্ন অংশের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া এবং অস্ট্রেলিয়ার ভিসার সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের তথ্য জানতে পারবেন।এছাড়াও যদি আপনাদের আরো কোন প্রশ্ন থাকে তবে আপনারা আমাদের অন্য আর্টিকেল গুলো দেখে আসতে পারেন।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?